শিক্ষা সফরে গিয়ে ছাত্র-শিক্ষিকার অন্তরঙ্গ ফটোশুটের ঘটনাটি ভারতের

সম্প্রতি, শিক্ষা সফরে গিয়ে ছাত্রের সঙ্গে শিক্ষিকার অন্তরঙ্গ ফটোশুটের একটি তথ্য বাংলাদেশের দাবিতে বিভিন্ন গণমাধ্যমের নাম এবং ফটোকার্ড যুক্ত করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হয়েছে।

শিক্ষিকার অন্তরঙ্গ

ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, শিক্ষা সফরে গিয়ে ছাত্র-শিক্ষিকার অন্তরঙ্গ ফটোশুটের উক্ত ঘটনাটি বাংলাদেশের নয় বরং ঘটনাটি ভারতের কর্ণাটকের।

অনুসন্ধানের শুরুতে ফেসবুকে প্রচারিত পোস্টগুলোর সূত্রধরে কি-ওয়ার্ড সার্চের মাধ্যমে দেশীয় একাধিক গণমাধ্যমে (দেশ রূপান্তর, কালবেলা, সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা পোস্ট) এ বিষয়ে প্রকাশিত প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়।

Screenshot: Desh Rupantor

প্রচারিত প্রতিবেদনগুলো পর্যবেক্ষণ করলে দেখা যায়, সংবাদ গুলোর শিরোনামে ঘটনাটির স্থান উল্লেখ করা না হলেও প্রতিবেদনগুলোর বিস্তারিত অংশে এটি ভারতের কর্ণাটকের ঘটনা বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

তাছাড়া একাধিক গণমাধ্যম তাদের ফেসবুক পেজে (, , ) বিষয়টির বিস্তারিত উল্লেখ না করে শুধুমাত্র শিরোনাম এবং ফটোকার্ড পোস্ট করার ফলে ঘটনাটি ভারতের হলেও স্থানের নাম উল্লেখ না করে বাংলাদেশে প্রচার করায় বিষয়টি বাংলাদেশের ভেবে বিভ্রান্তির সৃষ্টি হচ্ছে এবং বাংলাদেশের নেটিজেনরা বিষয়টি সঠিকভাবে না জেনেই ঘটনাটি বাংলাদেশের মনে করেছেন।

Screenshot: Kalbela Facebook

উক্ত পোস্টগুলোর কমেন্টবক্স বিশ্লেষণ করে নেটিজেনদের ঘটনাটি বাংলাদেশের ভেবে বিভ্রান্তিকর মন্তব্য করতে দেখা যায়।

Comment Collage by Rumor Scanner 

পরবর্তীতে বিষয়টি নিয়ে কি ওয়ার্ড অনুসন্ধানের মাধ্যমে ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভি’র ওয়েবসাইটে গত ২৯ ডিসেম্বর ‘Photoshoot Of Karnataka Teacher And Student Goes Viral, Internet Shocked’ শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়।

প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, ভারতের কর্ণাটকের চিক্কাবল্লাপুর জেলার একটি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের একজন শিক্ষিকা এবং তার এক ছাত্রের ঘনিষ্ঠ ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। সংবাদমাধ্যম ডেকান হেরাল্ডের বরাতে বলা হয়, শিক্ষা সফরের সময় ছাত্রের সঙ্গে ওই অন্তরঙ্গ ‘ফটোশুট’ করেন শিক্ষিকা।

অর্থাৎ, শিক্ষা সফরে গিয়ে ছাত্র-শিক্ষিকার অন্তরঙ্গ ফটোশুটের উক্ত ঘটনাটি বাংলাদেশের নয়। তবে এসম্পর্কিত খবরের শিরোনামে স্থানের নাম না উল্লেখ করায় ঘটনাটি বাংলাদেশের ভেবে নেটিজেনরা বিভ্রান্ত হয়েছেন।

পাশাপাশি, মূলধারার গণমাধ্যম কিংবা অন্যকোনো নির্ভরযোগ্য সূত্রে সাম্প্রতিক সময়ে শিক্ষা সফরে গিয়ে বাংলাদেশের কোনো ছাত্র-শিক্ষিকার অন্তরঙ্গ ফটোশুটের বিষয়ে কোনো তথ্য খুঁজে পাওয়া যায়নি।

মূলত, ভারতের কর্ণাটকের চিক্কাবল্লাপুর জেলার একটি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের একজন শিক্ষিকা এবং তার এক ছাত্রের ঘনিষ্ঠ ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়। উক্ত বিষয়ে ভারতীয় গণমাধ্যমের বরাতে বাংলাদেশের একাধিক গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনের শিরোনামে ঘটনাটির স্থানের নাম উল্লেখ না করে সংবাদ প্রচার করা হয়। পরবর্তীতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারকারীরা বিষয়টি বাংলাদেশের ঘটনা মনে করে ফেসবুকে প্রচার করেন।

উল্লেখ্য, পূর্বেও ভারতের ঘটনা বাংলাদেশের দাবিতে প্রচারিত হলে তা নিয়ে ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে রিউমর স্ক্যানার। এমন কয়েকটি প্রতিবেদন দেখুন এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে

সুতরাং, শিক্ষা সফরে গিয়ে কর্ণাটকের ছাত্র-শিক্ষিকার অন্তরঙ্গ ফটোশুটের ঘটনাটি বাংলাদেশে স্থানের নাম উল্লেখ না করে ফেসবুকে প্রচার করা হয়েছে; যা বিভ্রান্তিকর।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img