কাজের পদ্ধতি

রিউমর স্ক্যানার সর্বমোট আটটি প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে ফ্যাক্টচেক সম্পাদন করে থাকে। প্রক্রিয়াগুলো হচ্ছে ফ্যাক্টচেক অনুরোধ, সক্রিয় পর্যবেক্ষণ দল, যাচাই এর জন্য দাবী নির্বাচন, গবেষণা, প্রতিবেদন লেখা ও সম্পাদনা, ডিজিটাল ব্যানার, রেটিং এবং সংশোধন।

১. ফ্যাক্টচেক অনুরোধঃ

বিভিন্ন উৎস থেকে আমরা বিভ্রান্তিকর তথ্য যাচাই ও গুজব শনাক্তের জন্য ফ্যাক্টচেক অনুরোধ পেয়ে থাকি এবং গৃহীত তথ্যগুলো যাচাই করে আমরা অনুরোধকারীকে বিষয়টি সম্পর্কে অবগত করি।

অধিকাংশ ফ্যাক্টচেক অনুরোধ ই আমাদের ফেসবুক পেজ ও হোয়াটসঅ্যাপ হেল্পলাইনের মাধ্যমে আসে, এছাড়াও মেইল এড্রেস ও ‘রিউমর স্ক্যানার বাংলাদেশ’ ফেসবুক গ্রুপের সদস্যদের মাধ্যমে আমরা কিছুসংখ্যক ফ্যাক্টচেক অনুরোধ পেয়ে থাকি।

. সক্রিয় পর্যবেক্ষণ দলঃ

আমাদের একটি দক্ষ পর্যবেক্ষণ দল ধারাবাহিকভাবে সামাজিক মাধ্যমগুলো সহ বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে প্রচারিত বিষয়বস্তু গুলো পর্যবেক্ষণ করে থাকে এবং অতিরঞ্জিত বা অসামঞ্জস্যপূর্ণ কোন বিষয় খুঁজে পেলে সেটি সম্পর্কে উর্ধতন কর্মকর্তাদের অবগত করে। প্রাসঙ্গিক বিষয়ে সামাজিক প্রভাব বিবেচনা করে পরবর্তী কার্যবিধি পরিচালনা করা হয়।

৩. যাচাই এর জন্য দাবী নির্বাচনঃ

তথ্য যাচাই বা ফ্যাক্ট চেকিং এর বিষয়বস্তু নির্বাচনের ক্ষেত্রে রিউমর স্ক্যানার যেসব প্রশ্ন বিবেচনা করে:

  •  এটি কি বিশাল সংখ্যক লোককে প্রভাবিত করে?
  • বিষয়টি কি উস্কানিমূলক বা সংবেদনশীল এবং যাচাই করা না হলে সম্ভাব্য ক্ষতির কারণ হতে পারে?
  • বিষয়টির সত্যতা যাচাই না হলে এতে করে ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান বা গোষ্ঠী কি ক্ষতির সম্মুখীন হতে পারে?
  •  বিষয়টি যাচাই না হলে কি সমাজে ব্যাপক প্রভাব পড়তে পারে?
  • জনসাধারণের নিকট বিষয়টি নিয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া কি কঠিন?

যেসব বিষয় আমাদের কাজের আওতায় পড়েনা:

  •  মিমস, ট্রল, হাস্যরস বা কৌতুক বিষয়বস্তু।
  • •কোন প্রেক্ষাপট বা ঘটনাকে কেন্দ্র করে ভবিষ্যৎবাণী বা আশাবাদী যা স্বভাবতই যাচাইযোগ্য নয়।
  • মুদ্রণে অনিচ্ছাকৃত ভুল, বানান ভুল ও বক্তব্যে সাধারণ ভুল। (slip of tongue)
  •  বিভিন্ন মাধ্যম থেকে পাওয়া ফ্যাক্টচেক অনুরোধের বিষয়বস্তু সম্পর্কে যথাযথ সূত্রের অস্তিত্ব না পাওয়া গেলে।
  • ধর্ম বিষয়ক ফ্যাক্টচেকের ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট ধর্মের তথ্যসূত্র বিতর্কিত হলে ফ্যাক্ট চেক করা হয় না।
  • অলৌকিক ঘটনার তথ্য বা দাবী যাচাইযোগ্য নয়।

৪. গবেষণাঃ

দাবী নির্বাচনের পর বিষয়টি যাচাই এর জন্য আমরা বিভিন্ন সার্চ ইঞ্জিন, ওপেন সোর্স, রিভার্স ইমেজ সার্চ টুলস এবং দেশীয় ও আন্তর্জাতিক মূলধারার সংবাদমাধ্যমগুলোর সহায়তা গ্রহণ করে গবেষণা সম্পাদন করি। কোন বিবৃতি বা বক্তব্য যাচাই এর ক্ষেত্রে আমরা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির সাথে যোগাযোগ করে সাক্ষাতকার গ্রহণের মাধ্যমে সত্যতা যাচাইয়ের চেষ্টা করি। এছাড়া ক্ষেত্রবিশেষে কোন প্রতিবেদনের ব্যাখ্যাদানের জন্য আমরা সম্পূর্ণ নিরপেক্ষভাবে বিশেষজ্ঞের সাক্ষাৎকার নিয়ে থাকি।

গবেষণার ক্ষেত্রে যদি কোন বিবৃতির সত্যতা যাচাই এর প্রয়োজন হয় সেক্ষেত্রে রিউমর স্ক্যানার টিমের প্রধান গবেষক নিজেই সূত্রের সাথে যোগাযোগ স্থাপন করে সাক্ষাতকার গ্রহণ করে। সম্পূর্ণ সাক্ষাতকার প্রক্রিয়াটি নিরপেক্ষভাবে সম্পন্ন করা হয় এবং সাক্ষাতকার শেষে তার অনুমতি ক্রমে প্রতিবেদনে তার নাম উল্লেখ করা হয়।

উল্লেখ্য, যেহেতু একটি স্বচ্ছ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে প্রধান গবেষক নিজেই এসকল সাক্ষাতকার গ্রহণ করে থাকেন এবং সাক্ষাতকারটি ভিডিও হয়ে থাকলে পুরো ভিডিওটিই প্রতিবেদনে প্রকাশ করা হয় তাই এখানে পক্ষপাতের কোন সুযোগ নেই।

৫. প্রতিবেদন লেখা ও সম্পাদনাঃ

প্রতিটি প্রতিবেদন লেখার ক্ষেত্রে আমরা আমাদের নিজস্ব নিরপেক্ষতা নীতি অনুসরণ করে থাকি। আমাদের প্রতিবেদনে কোন বিশেষ ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে আক্রমণ করা হয় না এবং সম্পূর্ন নির্দলীয় ভাবে প্রতিটি প্রতিবেদন লেখা হয়। এছাড়াও প্রতিবেদনে আমাদের নিজস্ব কোন মন্তব্যের উল্লেখ থাকেনা।

ইন্টারন্যাশনাল ফ্যাক্ট-চেকিং নেটওয়ার্ক ( আইএফসিএন ) প্রণীত ফ্যাক্ট চেকার্স কোড অব প্রিন্সিপালস্ এর প্রতি আমরা সম্পূর্ন শ্রদ্ধাশীল এবং আমাদের প্রতিটি প্রতিবেদনে তা রক্ষা করা হয়।

আমাদের মনিটরিং টিমের সদস্যরা কোনো অতিরঞ্জিত বা অসামঞ্জস্যপূর্ণ বিষয়বস্তু খুঁজে পেলে তারা বিষয়টি উর্ধ্বতনদের অবহিত করে এবং বিষয়টি যাচাইযোগ্য কিনা সে বিষয়ে সহকারী সম্পাদক প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদকের সাথে আলোচনা করেন। বিষয়টি যাচাইযোগ্য হলে অর্থাৎ দাবি নির্বাচনের পর প্রধান গবেষক তার গবেষণা দল নিয়ে উক্ত বিষয়ে অনুসন্ধান করে রিপোর্ট পেশ করেন এবং একজন ফ্যাক্ট চেকার বিষয়টি নিয়ে খসড়া প্রতিবেদন লিখেন। খসড়াটি সহকারী সম্পাদক নির্ভুলতা যাচাই স্বাপেক্ষে ওয়েবসাইট এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশের পূর্বে প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদকের থেকে একটি চুড়ান্ত অনুমোদন নেন। প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক প্রতিবেদনে শব্দ নির্বাচন, বাক্যের ভারসাম্য এবং উৎসগুলো পুনঃযাচাই করে অনুমোদন প্রদান করেন এবং এরপর ফ্যাক্টচেকিং এর ক্ষেত্রে কোন প্রাযুক্তিক সমস্যা থাকলে আমাদের প্রযুক্তি উপদেষ্টা সেবিষয়ে পরামর্শ প্রদান করেন। অতঃপর প্রধান প্রযুক্তি কর্মকর্তা প্রতিবেদনটি ওয়েবসাইটে প্রকাশ করেন এবং গ্রাফিক্স ডিজাইনার দ্বারা একটি ডিজিটাল ব্যানার নির্মাণ করা হয়। সর্বশেষে একজন ফ্যাক্ট চেকার প্রতিবেদনটি রিউমর স্ক্যানারের সকল সামাজিক মাধ্যমে প্রকাশ করেন।

৬. ডিজিটাল ব্যানারঃ

রিউমর স্ক্যানার এর আরেকটি বিশেষায়িত্ব হচ্ছে ডিজিটাল ব্যানার নির্মাণ ও প্রচার। কোন বিষয়ে প্রতিবেদন লেখার পর আমরা আমাদের দক্ষ ডিজাইনার দ্বারা ফ্যাক্টচেক ব্যানার তৈরি করে থাকি। আমাদের তৈরি প্রতিটি ব্যানারেই গুজব/ভুল তথ্যের স্ক্রিনশট এবং ফ্যাক্ট/সোর্স এর স্ক্রিনশট এর স্বচ্ছ উল্লেখ থাকে ফলে সাধারণ মানুষ সহজেই ভুল/বিভ্রান্তিকর তথ্য সম্পর্কে বুঝতে পারে। ভুল তথ্যের স্ক্রিনশট নির্বাচণের ক্ষেত্রে সর্বাধিক প্রচারিত পোস্টগুলো বিবেচনা করা হয়।

৭. রেটিংঃ

যেকোন প্রতিবেদন সম্পাদন শেষে আমরা রেটিং প্রদানের মাধ্যমে একটি মাত্রা নির্দেশ করি।

আমরা ছয় ধরণের রেটিং ব্যবহার করে থাকি:

১. সত্য

তথ্যটির দাবির পক্ষে সত্যতা পাওয়া গেছে এবং ঘটনাটি সত্য। পাশাপাশি যেসকল গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে সেগুলোও গ্রহণযোগ্য এবং রিউমর স্ক্যানারের অনুসন্ধানেও তথ্যটিতে কোনো অসামঞ্জস্যতা খুঁজে পাওয়া যায় নি।

২. আংশিক সত্য

সংবাদটির অর্ধেকেরও বেশি তথ্যই সঠিক, কিন্তু সামান্য কিছু অংশ বানোয়াট বা ভিত্তিহীন ।

৩. মিথ্যা

তথ্যটির দাবির পক্ষে সত্যতা পাওয়া যায় নি। বরং গ্রহণযোগ্য সূত্রসমূহ এর বিপরীত দাবি করছে। পাশাপাশি রিউমর স্ক্যানারের অনুসন্ধানেও তথ্যটিতে অসামঞ্জস্যতা বিদ্যমান।

৪. বিভ্রান্তিকর

  • কোন সংবাদে সূত্র হিসেবে যা উল্লেখ করা হয়েছে তা সত্য তবে সেই সূত্রে উক্ত সংবাদের দাবি সরাসরি প্রতিষ্ঠিত হয় না। যেমন তথ্যে ব্যবহৃত ছবি, ভিডিও সত্য হলেও তথ্যে বিভ্রান্তিকর উপাদান রয়েছে যা তথ্যটিকে ভুল/বিকৃত অথবা ভিন্ন অর্থে প্রকাশ করে সেক্ষেত্রে এই রেটিংটি ব্যবহার করা হয়।
  • তথ্যের ব্যাখ্যা সত্য হলেও ব্যবহৃত ছবি ও ভিডিওটি পুরোনো ভিন্ন ঘটনার হয়ে থাকলে এই রেটিং ব্যবহার করা হয়।
  • তথ্যে উল্লেখিত উৎস, প্রসঙ্গ ও অর্থের অসামঞ্জস্যতা পাওয়া গেলে এবং কোন ব্যক্তি বা পরিস্থিতিকে ভুলভাবে উপস্থাপন করলে ( যেমন: ব্যক্তি এমন কোন বক্তব্য দেন নি) সেটাও এই রেটিং এর আওতাভুক্ত।

৫. যাচাই যোগ্য নয়

সংবাদের সূত্রসমূহ কিংবা সঠিক তথ্য দিতে সক্ষম এমন ব্যক্তিবর্গ বা প্রতিষ্ঠানসমূহ নানাবিধ কারণে নাগালের বাইরে থাকলে এবং নির্ভরযোগ্য উৎসের অনুপস্থিতি অথবা তা যাচাই প্রক্রিয়া দুরূহ হয়ে থাকলে আমরা এই রেটিংটি ব্যবহার করে থাকি।

৬. অপ্রমাণিত

কোন দাবির বিশ্বাসযোগ্যতা যাচাই প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার পরেও অমীমাংসিত থাকলে আমরা এই রেটিংটি ব্যবহার করি।

৮. সংশোধনঃ

তথ্যের নির্ভুলতা ও জবাবদিহিতায় রিউমর স্ক্যানার সর্বদা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। কোন প্রতিবেদন প্রকাশের পর যদি আমরা জানতে পারি প্রতিবেদনটিতে ত্রুটি রয়েছে বা কোনকিছু বাদ পড়েছে, সেক্ষেত্রে আমরা যথাসম্ভব দ্রততার সাথে প্রতিবেদনটি সংশোধন করে থাকি।

তথ্যযাচাইয়ের ধাপসমূহঃ

রিউমর স্ক্যানারের প্রতিটি ফ্যাক্ট-চেক পরিচালনা ও প্রতিবেদন তৈরির ক্ষেত্রে একটি স্বচ্ছ এবং ব্যাখ্যামূলক পদ্ধতি অনুসরণ করা হয়।

তথ্য যাচাইয়ের জন্য রিউমর স্ক্যানার নিম্নলিখিত নিয়মগুলো অনুসরণ করে থাকেঃ

  •  যে তথ্যটির সত্যতা যাচাই করা হবে তার উৎস কি এবং কেন এই তথ্যটি যাচাই করা দরকার? এরপর উৎস শনাক্ত করণের ক্ষেত্রে আমরা তথ্যের স্ক্রিনশট এবং সংশ্লিষ্ট লিংকগুলো প্রতিবেদনে সংযুক্ত করে থাকি।
  • তথ্যটি নিয়ে প্রয়োজনীয় গবেষণা সাপেক্ষে আমরা ঐ তথ্যটির সত্য/মিথ্যা সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে থাকি এবং প্রতিবেদনের এই ধাপে আমরা আমাদের মূল্যায়ন যুক্ত করি। এরপর ধাপে ধাপে আমরা আমাদের দাবির পক্ষে প্রমাণ উপস্থাপন করি।

গবেষণার ক্ষেত্রে যদি কোন বিবৃতির সত্যতা যাচাই এর প্রয়োজন হয় সেক্ষেত্রে রিউমর স্ক্যানার টিমের প্রধান গবেষক নিজেই সূত্রের সাথে যোগাযোগ স্থাপন করে সাক্ষাতকার গ্রহণ করে। সম্পূর্ণ সাক্ষাতকার প্রক্রিয়াটি নিরপেক্ষভাবে সম্পন্ন করা হয় এবং সাক্ষাতকার শেষে তার অনুমতি ক্রমে প্রতিবেদনে তার নাম উল্লেখ করা হয়।

উল্লেখ্য, যেহেতু একটি স্বচ্ছ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে প্রধান গবেষক নিজেই এসকল সাক্ষাতকার গ্রহণ করে থাকেন এবং সাক্ষাতকারটি ভিডিও হয়ে থাকলে পুরো ভিডিওটিই প্রতিবেদনে প্রকাশ করা হয় তাই এখানে পক্ষপাতের কোন সুযোগ নেই।

  • রিউমর স্ক্যানার টিমের তথ্য সংগ্রহের প্রাথমিক মাধ্যম হচ্ছে গণমাধ্যম ও সামাজিক মাধ্যম। তবে ক্ষেত্রবিশেষে আমরা সংবাদটির প্রাথমিক উৎসের ( ব্যক্তি, এজেন্সি, গোষ্ঠী বা সাংবাদিক) সাথে যোগাযোগ স্থাপনের মাধ্যমেও দাবীটির সত্যতা যাচাই করে থাকি।
  • রাজনৈতিক সংবেদনশীল বিষয়গুলো যাচাইয়ের ক্ষেত্রে রিউমর স্ক্যানার টিম সম্পূর্ণ নিরপেক্ষভাবে সকল প্রামাণ্য তথ্য সংগ্রহ করে থাকে, উদাহরণস্বরুপঃ যদি কোন রাজনৈতিক ব্যক্তি বা রাজনৈতিক দলকে নিয়ে কোন তথ্য যাচাইয়ের প্রয়োজন পড়ে সেক্ষেত্রে প্রথমত আমরা দাবীটি সম্পর্কে দেশীয় নির্ভরযোগ্য বা আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদের সহায়তা নিয়ে থাকি। উক্ত বিষয়টি যদি কোন ছবি বা ভিডিও কেন্দ্রীক হয়ে থাকে সেক্ষেত্রে আমরা গুগল ইমেজ সার্চ টুল, টিন আই রিভার্স ইমেজ সার্চ টুল সমূহের সহায়তা গ্রহণ করি। এছাড়াও বিষয়টি অধিক যাচাইয়ের জন্য সম্ভব হলে আমরা উক্ত বিষয় সম্পর্কে তথ্য দিতে সক্ষম এমন ব্যক্তিবর্গের সাথে যোগাযোগ করে সাক্ষাতকার নিয়ে থাকি।

রিউমর স্ক্যানার টিম শুধুমাত্র সেসকল রাজনৈতিক সংবেদনশীল বিষয়গুলো যাচাই করে থাকে যা দেশ ও জাতীয় স্বার্থের সাথে সম্পর্কিত এবং বৃহৎ আকারে মানুষকে প্রভাবিত করে।

উল্লেখ্য, রিউমর স্ক্যানার শুধুমাত্র কোন রাজনৈতিক ব্যক্তি বা দলের সাক্ষাতকারের উপর পুরোপুরি নির্ভর করে এধরণের সংবেদনশীল প্রতিবেদন প্রকাশ করেনা এবং দাবীটি সম্পর্কে নির্ভরযোগ্য গণমাধ্যম সহ একাধিক সূত্রের সাহায্যে সম্পূর্ণ নিশ্চিত হয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করে।

রাজনৈতিক বিষয়গুলোতে তথ্য দিতে সক্ষম এমন ব্যক্তিবর্গ বা দলের সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব না হলে আমরা দাবীটি অপ্রমাণিত হিসেবে উল্লেখ করি।

যেহেতু আমাদের ফ্যাক্টচেক এর বিষয়বস্তুর সূত্রগুলো সম্পূর্ণ স্বচ্ছ এবং আমাদের প্রকাশিত প্রতিবেদনে আমাদের নিজস্ব কোন মন্তব্যের উল্লেখ থাকেনা তাই আমাদের কাজের মাধ্যমে বাংলাদেশের ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের কোন ধারার ব্যাঘাত ঘটেনা।

  • রিউমর স্ক্যানার টিম কোন তথ্য যাচাইয়ের ক্ষেত্রে সাধারণত বাংলাদেশে পরিচালিত বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলোর সূত্র বেশি প্রাধান্য দিয়ে থাকে কারণ দেশের অধিকাংশ গণমাধ্যম বা গণমাধ্যমের বাক স্বাধীনতা প্রশ্নবিদ্ধ এবং দেশীয় অধিকাংশ গণমাধ্যমগুলোতে সংবেদনশীল তথ্যগুলো প্রকাশিত হয়না।
  • তথ্য যাচাইয়ের উৎস নির্বাচনের ক্ষেত্রে রিউমর স্ক্যানার প্রতিষ্ঠিত গণমাধ্যম, সংবাদ এজেন্সি কিংবা দায়িত্বপ্রাপ্ত অথোরিটিকেই প্রামাণ্য বিবেচনা করে। কোন বিষয়ে প্রামাণ্য সূত্র না পাওয়া পর্যন্ত আমরা সিদ্ধান্ত গ্রহণ করি না। তবে ইমেজ বা ভিডিও যাচাইয়ের ক্ষেত্রে আমরা প্রতিষ্ঠিত কিছু ইমেজসার্চ প্লাটফর্ম যেমন গুগল ইমেজ সার্চ টুলস, টিন আই রিভার্স ইমেজ সার্চ টুলস, ইত্যাদির সহায়তা নিয়ে থাকি।
  • যেসকল বিষয়বস্তু যাচাইয়ের ফলে প্রতিবেদনে উল্লেখিত সূত্রের ব্যক্তির নিজ নিরাপত্তা নিয়ে সংশয় সৃষ্টি হবার সম্ভাবনা থাকে, সেসকল বিষয়গুলো প্রকাশের ক্ষেত্রে রিউমর স্ক্যানার শুধুমাত্র সূত্র হতে প্রদত্ত প্রমাণ বা তথ্যটুকো উপস্থাপন করে থাকে। ফলে সূত্রের ব্যক্তির নিরাপত্তাজনিত সংশয় সৃষ্টির কোন সম্ভাবনা থাকেনা।

উল্লেখ্য, সূত্রের ব্যক্তি সেচ্ছায় নিজের পরিচয় প্রকাশে আগ্রহী হয়ে থাকলে শুধুমাত্র সেক্ষেত্রে প্রতিবেদনে তা উল্লেখ করা হয়।

  • প্রতিবেদন প্রকাশের ক্ষেত্রে রিউমর স্ক্যানার সর্বোচ্চ স্বচ্ছতা নিশ্চিত করে এবং আমাদের প্রতিটি প্রতিবেদনেই পূর্ণাঙ্গ সূত্রনির্দেশনার উল্লেখ থাকে। আমাদের প্রতিবেদনের প্রতিটি ধাপে এই সূত্র সন্নিবেশ করা হয় এবং এতেকরে পাঠকের পক্ষে তথ্যযাচাই এর প্রক্রিয়াটুকো সহজেই বোধগম্য হয়। যদি এমন মনে হয় যে, সূত্রটি সাধারণের পক্ষে অপ্রবেশ্য কিংবা কোনো কারণে পরবর্তীতে খুঁজে নাও পাওয়া যেতে পারে সেক্ষেত্রে আমরা অতিরিক্ত দায়িত্বে হিসেবে সেই সূত্রের স্ক্রিণশট এবং আর্কাইভ লিংক প্রতিবেদনে যুক্ত করে থাকি।
  • সাধারণত আমাদের ফ্যাক্ট-চেকিং পদ্ধতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে একটি নির্দিষ্ট রেটিংকে নির্দেশ করে। তবে, প্রতিটি প্রতিবেদনের ক্ষেত্রে আমরা আমাদের সদস্যদের মধ্যে ভোটিং পদ্ধতির সাহায্যে রেটিং নির্ধারণ করে থাকি অর্থাৎ অর্ধেকেরও বেশি সদস্য যে রেটিংটিকে উক্ত বিষয়ের জন্য গ্রহণযোগ্য মনে করবে সেটিই নির্বাচন করা হয়।
  • সাধারণত প্রতিটি প্রতিবেদনের শেষে আমরা রেটিং ব্যবহার করে থাকি। পাশাপাশি আমাদের ডিজিটাল ব্যানারেও রেটিংটির উল্লেখ থাকে।

ক্যাটাগরিসমূহঃ

আমরা মোট ছয়টি ক্যাটাগরিতে প্রতিবেদনগুলো সন্নিবেশ করে থাকি :

  •  ফ্যাক্টচেক
  • ট্রেন্ডিং গুজব
  •  করোনা ভাইরাস
  •  নিউজ ফ্যাক্টচেক
  • ভিডিও ফ্যাক্টচেক
  • ডু ইট ইওরসেল্ফ ( ডিআইওয়াই ) ফ্যাক্টচেক

 

Methodology:

Rumor Scanner performs a fact check through a total of eight processes. These processes are fact check request, active monitoring team, Select a claim to fact check, research, Write a fact check & editing, digital banner, rating, and correction.

1. Fact Check Request :

We receive fact-check requests from various sources to verify misleading information. After verifying the information we notify the requester.

Most of the fact check requests come through our Facebook page and WhatsApp helpline & we also receive several fact check requests through our mail address and also from the member of ‘Rumor Scanner Bangladesh Facebook group.

2. Active Monitoring Team :

Our expert monitoring team continuously monitors the contents of various media outlets, including social media and notifies superiors if it finds any exaggerated or inconsistent content. Subsequent procedures are conducted considering the social impact on the relevant issue.

3. Select a claim to fact check :

Before selecting any content for data verification or fact-checking, the rumor scanner considers these queries:

  • Does it impact a large number of people?
  • Is the content provocative or sensitive and could potentially cause harm if left unchecked?
  • If the truth of the matter is not revealed, can individuals, organizations, or groups be harmed by it?
  • If the matter is not checked, can it have a huge impact on society?
  • Is it difficult for the public to decide on the matter?

What we do not cover :

  • Meme, troll, humor, and sarcasm contents.
  • A prediction or optimism based on a context or event that is not naturally verifiable.
  • Inconsequential glitches, such as a misspelling or slip of the tongue
  • In the absence of proper sources for the content of fact check requests obtained from various sources.
  • In the case of a fact check on religion, the fact check is not done if the references of the concerned religion are disputed.
  • Conspiracy theories, paranormal incidents, or claims are not verifiable.

4. Research :

After selecting the claim for a fact check, we research with the help of various search engines, open-source, reverse image search tools, and local and international mainstream media. For verifying any statement we try to verify the authenticity by contacting the concerned person and conducting an interview. We also conduct expert interviews in a completely unbiased manner to interpret the report in certain cases.

If the research requires verification of a statement, the lead researcher of the Rumor Scanner team will contact the source and conduct an interview. The entire interview process is done impartially and his name is mentioned in the report in the order of his permission at the end of the interview.

Note that since the lead researcher conducts these interviews through a transparent process and if the interview is a video, the entire video is published in the report, so there is no room for bias.

5. Write a fact check & Editing :

We follow our Non-Partisanship Policy to write any report. Our report does not attack any particular person or organization and every report is written in a completely non-partisan manner. Also, we do not mention our comments in the report.

We fully respect the fact-checkers code of principles enacted by the International Fact-Checking Network ( IFCN ) and the principles are adhered to in each of our reports.

When our monitoring team members are finds any exaggerated or inconsistent content they notifies superiors & then the Deputy editor discuss with Chief editor if it is fact-check able or not. After selecting the claim, Head Researcher do research on the context with the research associate & then a fact-checker initially writes a draft report at the end of the team research. Deputy Editor verifies the accuracy of the draft and receives final approval from the Founding Editor. The Founding editor approves the report by re-examining word selection, sentence balance, and sources. Our technical advisor provides advice if there are any technical issues while fact-checking. Then the CTO publishes the article in the website & fact-check digital banner is created for all social media platform by the graphics designer. finally a fact checker posted the report to all the social media platforms of Rumor Scanner.

6. Digital Banner :

Another important feature of ‘Rumor Scanner’ is the creation and promotion of digital banners. After writing a report on any claim, we create a fact check banner by our expert designer.

Each of our banners has a screenshot of rumors/misinformation and a clear mention of screenshots of facts/sources so that, people can easily understand false/misleading information. Most viral posts are considered in the selection of screenshots of false information.

7. Rating :

At the end of the execution of any report, we indicate a level by providing a rating.

Six types of ratings we use :

1. True

The claim of information has been found to be true and the fact is true. Besides, all the media outlets that have published on this topic are acceptable. Even in the research of rumor scanner no inaccuracy have been found.

2. Partial True

The claim is mostly true, but a small portion is false or baseless.

 

3. False

The claim of information has not found any authenticity. Rather acceptable sources are claiming the opposite. Besides in the research of rumor scanner inconsistencies have been found in the information.

4. Misleading

  • What has been mentioned as a source of news is true but it does not support the claim directly. For example, images or videos used are real but they have been interpreted in a misleading way, misinterprets or distorts the information.
  • Although the interpretation of the information is true, this rating is used if the photo and video used are from different old events.
  •  If the explanation is found inconsistent with the source, underlying issue and/or meaning, or it attributes statements to people who have not made it, we also rate claims misleading.

5. Could Not Be Verified

Primary sources or contacts that can verify information are beyond our reach. If we cannot find enough reliable sources to actually go through fact-checking, we rate claims as “Could not be verified”.

6. Unproven

We use this rating if a claim is still unresolved after the credibility verification process has been completed.

8. Correction :

Rumor Scanner is committed to the accuracy and accountability of information. After the publication of a report, if we discover that we have made a mistake or omissions, we correct the report as quickly as possible.

Fact-Checking Process and Report Writing: Step by Step

Rumor Scanner followed a transparent and explanatory procedure in conducting each fact-check report.

We go through the following steps to prepare our fact-checking report to file and publish:

  •  What have we found and where? What is the claim we need to fact-check? We check screenshots and archived links to locate the claim.
  • Subject to the necessary research on the information, we make true / false decisions about that information and we add our assessment to this step of the report.Then step by step we present evidence in support of our claim.

If the research requires verification of a statement, the lead researcher of the Rumor Scanner team will contact the source and conduct an interview. The entire interview process is done impartially and his name is mentioned in the report in the order of his permission at the end of the interview.

Note that since the lead researcher conducts these interviews through a transparent process and if the interview is a video, the entire video is published in the report, so there is no room for bias.

  • Why could this claim be challenged? We gather evidence against the claim from primary and secondary sources, conflicting information and/or reports. We also assess reliability of the source’s.
  • The Rumor Scanner team collects all the evidence in a completely unbiased manner to verify politically sensitive issues. For example, If there is a need to verify any information about a political person or political party, we first rely on the news of the claim in the national reliable or international media. If the subject is based on image or video then we take the help of google image search tool, tin eye reverse image search tools, etc. We also take interview from people who are able to provide information on the subject if possible for further verification.

Rumor Scanner team verify only those politically sensitive issues that relate to the country and national interests and affect people on a large scale.

Besides Rumor Scanner does not publish such sensitive reports solely on the basis of interviews with any political person or party, and publishes the report with complete confirmation of the claim through multiple sources, including national reliable media.

If it is not possible to contact individuals or party who are able to provide information on political matters, we refer to the claim as unproven.

Since the sources of our fact check content are completely transparent and our published report does not mention any of our own comments, our work does not conflict with any section of the Digital Security Act of Bangladesh.

  • The rumor scanner team usually focuses on various international media outlets operating in Bangladesh to verify any information because most of the media outlets in the country or media freedom of speech is in question and most of the domestic media outlets do not publish sensitive information.
  • For both sides of the story, we look for primary sources — like information collected from contacting people directly, found on webpages and social media accounts, traceable expert opinions, scholarly literature (books and journal articles) — and secondary sources like reports from trustworthy media. For images and videos, we utilize trustworthy image assessment platforms like Google images, Tineye reverse image search etc.
  • During the verification of a content, it may raise doubts about the safety of the source ( person) mentioned in the report. In that case, Rumor scanner only presents the evidence or information given from the source. As a result, there is no possibility of creating security concerns for the person.

Note that, the report only mentions if the person in the source is willing to disclose his identity voluntarily.

  • We are absolutely transparent about our reporting of fact-checks. We provide our complete list of sources in every report. We add notes on where we found evidence at every step as hyperlinked citations, so that our fact checking procedure and what tools we used is clear to readers. We also list the sources in a footnote. If the evidence is not easily accessible or stable, we save a screenshot & archive for our own records and include them in our reports.
  • Generally our fact-checking method automatically indicates a certain rating. However, In every fact-check report we determine a voting system among the team members. If more than half members choose any rating, then that rating is acceptable for the subject.
  • We usually use ratings at the end of each report. The rating is also mentioned in our digital banner.

Categories :

We have a total of six categories and one of them titled Coronavirus, specifically created to address the covid-19 pandemic situation.

  • Fact Check
  • Trending Rumor
  • Coronavirus
  • News Fact Check
  • Video Fact Check
  • Do it yourself ( DIY ) Factcheck