রবিবার, জুলাই 21, 2024
spot_img

সাকিবের উইকেট ব্যাঙ্গাত্মকভাবে উদযাপনের জন্য তামিম ইকবাল লাইভে এসে ক্ষমা চাননি 

সদ্য সমাপ্ত বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ (বিপিএল) এর গ্রুপ পর্বের একটি ম্যাচে রংপুর রাইডার্সের অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান মেহেদী হাসান মিরাজের বলে আউট হলে সেটি ব্যাঙ্গাত্মকভাবে উদযাপন করেন ফরচুন বরিশালের অধিনায়ক তামিম ইকবাল। এরই প্রেক্ষিতে ভিডিও শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম ইউটিউব ও শর্ট ভিডিও শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম টিকটকে ‘সাকিব দয়াকরে আমাকে মাফ করে দিস, হঠ্যাৎ লাইভে এসে একি বললেন তামিম ইকবাল’ শীর্ষক শিরোনাম ও থাম্বনেইল ব্যবহার করে একটি ভিডিও প্রচার করা হয়েছে।

সাকিবের উইকেট

উক্ত দাবিতে ইউটিউবে প্রচারিত ভিডিও দেখুন এখানে (আর্কাইভ)

উক্ত দাবিতে টিকটকে প্রচারিত ভিডিও দেখুন এখানে (আর্কাইভ)

এই প্রতিবেদন প্রকাশ হওয়া অবধি উক্ত দাবিতে ইউটিউবে ভাইরাল ভিডিওটি প্রায় ১৫ হাজর বার দেখা হয়েছে। ভিডিওটিতে প্রায় আড়াই শত পৃথক অ্যাকাউন্ট থেকে প্রতিক্রিয়া জানানো হয়েছে এবং ভিডিওটিতে ১৩ টি মন্তব্য করা হয়েছে।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, সাকিবের আউট হওয়া নিয়ে ব্যাঙ্গাত্মকভাবে সেলিব্রেশনের জন্য তামিম ইকবাল লাইভে এসে সাকিব আল হাসানের কাছে ক্ষমা চাননি বরং তামিম ইকবালের ভিন্ন প্রেক্ষাপটের পুরোনো একটি ভিডিও ক্লিপের সাথে তামিম ইকবাল এবং সাকিব আল হাসানের কিছু ছবি যুক্ত করে ডিজিটাল প্রযুক্তির সহায়তায় সম্পাদনার মাধ্যমে আলোচিত ভিডিওটি তৈরি করা হয়েছে।

অনুসন্ধানের শুরুতে আলোচিত ভিডিওটি পর্যবেক্ষণ করে রিউমর স্ক্যানার টিম। উক্ত ভিডিওটিতে তামিম ইকবালকে সাকিব আল হাসানের কাছে ক্ষমা চাইতে দেখা যায়নি। ভিডিওটির সংবাদপাঠ অংশে বলা হয়, “লাইভে এসে তামিম ইকবাল বলেন, “ সাকিবের আউটে আমি যেভাবে ব্যঙ্গাত্মকভাবে উদযাপন করেছি সেটা করা আমার উচিত হয়নি, তাই আমি সাকিবকে বলবো, তুই আমাকে দয়া করে মাফ করে দিস। আমি খেলার মধ্যে উত্তেজনায় করে ফেলেছি। এটা করা আমার উচিত হয়নি।”

বিষয়টি যাচাইয়ে আলোচিত ভিডিওটি থেকে কিছু স্থিরচিত্র নিয়ে রিভার্স ইমেজ সার্চের মাধ্যমে তামিম ইকবালের ভেরিফাইড ফেসবুক পেজে ২০২৩ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর ‘আমি চাইনি আপনারা ভুল কিছু জানুন’ শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি ভিডিও খুঁজে পাওয়া যায়। উক্ত ভিডিওটিতে তামিম ইকবালকে ২০২৩ সালের ওডিআই বিশ্বকাপের স্কোয়াডে না থাকার বিষয়ে কথা বলতে দেখা যায়।

Screenshot: Tamim Iqbal Facebook

এই ভিডিওটি’র একটি অংশের সাথে আলোচিত ভিডিওটি’র শুরুতে প্রদর্শিত তামিম ইকবালের ভিডিও ক্লিপের হুবহু মিল পাওয়া যায়।

Video Comparison by Rumor Scanner

অর্থাৎ, এই ভিডিওটি ২০২৩ সালের এবং সাথে আলোচিত দাবির কোনো সম্পর্ক নেই।

পাশাপাশি, গণমাধ্যম, তামিম ইকবালের ভেরিফাইড ফেসবুক পেজ কিংবা সংশ্লিষ্ট অন্যকোনো নির্ভরযোগ্য সূত্রে উক্ত ম্যাচের পর তামিম ইকবালকে লাইভে এসে সাকিব আল হাসানের কাছে ক্ষমা চাওয়ার বিষয়ে কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

মূলত, সদ্য সমাপ্ত বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ (বিপিএল) এর দশম আসরে গ্রুপ পর্বের একটি ম্যাচে গত ১৯ ফেব্রুয়ারি ফরচুন বরিশালের মুখোমুখি হয় রংপুর রাইডার্স। উক্ত ম্যাচে ফরচুন বরিশালের অধিনায়ক তামিম ইকবালকে আউট করে উদযাপন করেন সাকিব আল হাসান। পরবর্তীতে রংপুর রাইডার্সের অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান মেহেদী হাসান মিরাজের বলে আউট হলে সেটি ব্যাঙ্গাত্মকভাবে উদযাপন করেন ফরচুন বরিশালের অধিনায়ক তামিম ইকবাল। এরই প্রেক্ষিতে ভিডিও শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম ইউটিউব ও শর্ট ভিডিও শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম টিকটকে ‘সাকিব দয়াকরে আমাকে মাফ করে দিস, হঠ্যাৎ লাইভে এসে একি বললেন তামিম ইকবাল’ শীর্ষক শিরোনাম ও থাম্বনেইল ব্যবহার করে একটি ভিডিও প্রচার করা হয়েছে। তবে রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, উক্ত দাবিটি সঠিক নয়। প্রকৃতপক্ষে তামিম ইকবাল উক্ত ঘটনায় লাইভে এসে সাকিবের কাছে ক্ষমা চাননি। ডিজিটাল প্রযুক্তির সহায়তায় সম্পাদনার মাধ্যমে তামিম ইকবালের ভিন্ন প্রেক্ষাপটের পুরোনো একটি ভিডিও ক্লিপের সাথে তামিম ইকবাল এবং সাকিব আল হাসানের কিছু ছবি যুক্ত করে আলোচিত দাবি সম্বলিত ভিডিওটি প্রচার করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গতকাল (পহেলা মার্চ) বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ (বিপিএল) এর দশম আসরে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে ৬ উইকেটে পরাজিত করে প্রথমবারের মত চ্যাম্পিয়ন হয়েছে তামিম ইকবালের নেতৃত্বাধীন ফরচুন বরিশাল।

উল্লেখ্য, বিপিএলের সদ্য সমাপ্ত আসরকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন ভুয়া তথ্য প্রচারের প্রেক্ষিতে একাধিক ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে রিউমর স্ক্যানার। এমন কয়েকটি প্রতিবেদন দেখুন এখানে, এখানে এবং এখানে

সুতরাং, তামিম ইকবাল লাইভে এসে সম্প্রতি সাকিব আল হাসানের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন দাবিতে ইন্টারনেটে প্রচারিত তথ্যটি সম্পূর্ণ মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img