রোগাক্রান্ত শিশু আয়েশার চিকিৎসার জন্য আর্থিক সহায়তা দাবিতে প্রতারণা

সম্প্রতি, “ছোট্ট #আয়েশা_আক্তার_আলভিয়া কে বাচাতে এগিয়ে আসুন। টাকা দিয়ে সাহায্য করতে না পারলে শেয়ার করে বিভিন্ন গ্রুপে ছড়িয়ে দেন যেন বিত্তবান দের নজরে আসে।” শীর্ষক শিরোনামে এক শিশুর কয়েকটি ছবি সংযুক্ত করে একটি মানবিক সাহায্যের আবেদন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে।

ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে। আর্কাইভ ভার্সন দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, আয়েশা আক্তার আলভিয়া নামে প্রচারিত ছবির শিশুটি বাংলাদেশের নয় বরং ছবিগুলো আশু সাইনী নামের ভারতের এক শিশুর।

মূলত, ছবিতে থাকা শিশুটির নাম আশু সাইনি, বয়সঃ ৩ বছর, লিঙ্গঃ ছেলে। Milaap এর ফান্ডরাইজিং পোস্ট হতে জানা যায়, আশু’র অ্যাকিউট লিভার ফেইলিউর, স্টেজ 3 অ্যাকিউট রেনাল ফেইলিউর এবং হেমোলাইটিক ইউরেমিক সিনড্রোম (HUS) ধরা পড়ে। তার লিভার স্বাভাবিকভাবে কাজ করতে পারে না এবং তার কিডনি তার রক্ত ​​থেকে বর্জ্য ফিল্টার করতে পারে না। আশুর চিকিৎসার জন্য ১০ লাখ টাকা প্রয়োজন বলে ডাক্তার জানিয়েছিলেন।

অন্যদিকে, সাম্প্রতিক সময়ে আশু’র ছবি সংযুক্ত করে ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়া পোস্টগুলোতে; আয়েশা আক্তার আলভিয়া, পিতাঃ মোঃ হাকিম মিয়া, স্থায়ী বাসা: ব্রাহ্মণবাড়িয়া বিজয় নগর পরিচয় দেওয়া হচ্ছে এবং বলা হয়েছে আয়েশা আক্তার আলভিয়া বর্তমানে কিশোরগঞ্জ জেলার জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। আয়েশার ফুসফুস ছিদ্র ও কিডনি তে সমস্যা। সেখানে পিতার নাম মোঃ হাকিম মিয়া উল্লেখ থাকলেও সহযোগীতা পাঠানোর জন্য বিভিন্ন গ্রুপ-পেজে করা পোস্টগুলোতে ভিন্ন ভিন্ন বিকাশ, নগদ, রকেট ও উপায় নাম্বার সংযুক্ত করা হয়েছে।

এছাড়া, সাম্প্রতিক সময়ে আয়েশা আক্তার আলভিয়ার আর্থিক সাহায্যের জন্য আবেদনকৃত ফেসবুক পোস্টগুলোতে উল্লিখিত বিকাশ, নগদ, রকেট ও উপায় (01772133227) নাম্বারে একাধিক বার যোগাযোগ করার চেষ্টা করে তা বন্ধ পাওয়া যায়।

বিষয়টি পূর্বেও মিথ্যা হিসেবে শনাক্ত করে ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে রিউমর স্ক্যানার।

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img