নুরুল হক নুরের মার্কিন ভিসা নিষিদ্ধ হওয়ার দাবিটি গুজব

সম্প্রতি, গণঅধিকার পরিষদের একাংশের সভাপতি নুরুল হক নুরের মার্কিন ভিসা নিষিদ্ধ হয়েছে দাবিতে একটি তথ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হচ্ছে।

মার্কিন ভিসা

ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, গণঅধিকার পরিষদের একাংশের সভাপতি নুরুল হক নুরের মার্কিন ভিসা নিষিদ্ধ হওয়ার বিষয়টি সঠিক নয় বরং কোনো তথ্যপ্রমাণ ছাড়াই নুরুল হক নুরের নামে পরিচালিত একটি ফেসবুক পেজের এক পোস্টের স্ক্রিনশট শেয়ারের মাধ্যমে এই দাবিটি প্রচার করা হচ্ছে।

অনুসন্ধানের শুরুতে আলোচিত পোস্টটি পর্যবেক্ষণ করে রিউমর স্ক্যানার টিম। এতে দেখা যায়, Nurul Haque Nur নামের একটি ফেসবুক পেজের পোস্টের স্ক্রিনশট শেয়ার করে নুরুল হক নুরের মার্কিন ভিসা নিষিদ্ধ হওয়ার বিষয়টি বলা হয়।

Screenshot: Facebook 

নুরুল হক নুরের নামে পরিচালিত ফেসবুক পেজের পোস্টের স্ক্রিনশটটিতে বলা হয়েছে, “আমাকে কেন ভিসা নিষেধাজ্ঞা দিলো বুঝতে পারলাম না। এই সরকারের অধীনে নির্বাচন সুষ্ঠু হবে না, এটাই বলেছিলাম। তাতেই আমার ভিসা নিষিদ্ধ করলো মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। আসলে মাফিয়া সরকারের মত যুক্তরাষ্ট্রও অন্ধ হয়ে বসে আছে। যতই নিষেধাজ্ঞা আসুক, আমাকে কেউ থামাতে পারবে না। ষোলো কোটি জনতা আমার পাশে আছে।”

তবে স্ক্রিনশটে প্রদর্শিত একই প্রোফাইল পিকচার সম্বলিত Nurul Haque Nur নামের ফেসবুকে পেজে নুরুল হক নুরের মার্কিন ভিসা নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে কোনো পোস্ট খুঁজে পাওয়া যায়নি। 

তবে এই পেজটিতে বিভিন্ন ব্যক্তিদের ওপর সাম্প্রতিক মার্কিন ভিসা নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে গত ২৪ সেপ্টেম্বর প্রকাশিত একটি পোস্ট খুঁজে পাওয়া যায়।

Screenshot: Nurul Haque Nur Facebook 

উক্ত পোস্টটিতেও নুরুল হক নুরের মার্কিন ভিসা নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

এছাড়াও, কি ওয়ার্ড সার্চ পদ্ধতি ব্যবহার করে গণমাধ্যম বা অন্যকোনো সূত্রে নুরুল হক নুরের মার্কিন ভিসা নিষিদ্ধ বা নিষেধাজ্ঞার দাবিটির কোনো সত্যতা খুঁজে পাওয়া যায়নি।

তাছাড়াও, মূলধারার গণমাধ্যম ডেইলি স্টারের অনলাইন সংস্করণে গত ২২ সেপ্টেম্বর ‘ভিসা নীতির প্রয়োগ নিয়ে ডেইলি স্টারকে যা বললেন ডোনাল্ড লু’ শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে  যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়া বিষয়ক সহকারী সেক্রেটারি ডোনাল্ড লু এর সাক্ষাৎকার থেকে জানা যায়, ভিসা নীতির আওতায় যাদের নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হবে, তাদের নাম প্রকাশ করা হবে না। কাউকে ভিসা না দেওয়াসহ যেকোনো ভিসা রেকর্ড মার্কিন আইন অনুযায়ী গোপনীয় তথ্য।

Screenshot: The Daily Star

অর্থাৎ, উপরোক্ত বিষয়গুলো পর্যালোচনা করলে এটা স্পষ্ট যে, গণঅধিকার পরিষদের একাংশের সভাপতি নুরুল হক নুরের মার্কিন ভিসা নিষিদ্ধ হওয়ার বিষয়টি সঠিক নয়।

মূলত, গত ২২ সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তর থেকে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক নির্বাচনী প্রক্রিয়াকে বাধাগ্রস্ত করার জন্য দায়ী বা জড়িত থাকার অভিযোগে বাংলাদেশি কিছু নাগরিকের বিরুদ্ধে ভিসা নিষেধাজ্ঞা দেয়ার প্রক্রিয়া শুরুর কথা জানানো হয়। এর পরবর্তী সময়ে বিভিন্ন রাজনৈতিক ব্যক্তিদের ওপর মার্কিন ভিসা নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভিন্ন তথ্য প্রচারের প্রবণতা দেখা যায়। এরই ধারাবাহিকতায় গত ২৪ সেপ্টেম্বর নুরুল হক নুরের নামে পরিচালিত একটি ফেসবুক পেজে এক পোস্টের স্ক্রিনশট শেয়ারের মাধ্যমে নুরুল হক নুরের মার্কিন ভিসা নিষিদ্ধ হওয়ার বিষয়টি ছড়িয়ে পড়ে। তবে অনুসন্ধানে স্ক্রিনশটে উল্লেখিত উক্ত পোস্টের অস্তিত্ব খুঁজে পাওয়া যায়নি। তাছাড়া, গণমাধ্যম এবং সংশ্লিষ্ট অন্যকোনো সূত্রে নুরের মার্কিন ভিসা নিষেধাজ্ঞার বিষয়টির সত্যতা পাওয়া যায়নি।

উল্লেখ্য, পূর্বেও বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তির মার্কিন ভিসা বাতিলের গুজব ছড়িয়ে পড়লে সেসময় বিষয়গুলো নিয়ে একাধিক ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে রিউমর স্ক্যানার। এমন কয়েকটি প্রতিবেদন দেখুন-

সুতরাং, নুরুল হক নুরের মার্কিন ভিসা নিষিদ্ধ করা হয়েছে দাবিতে ফেসবুকে প্রচারিত তথ্যটি সম্পূর্ণ মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img