ভুয়া বিতর্ক প্রতিযোগিতায় রাকিবের সেরা হওয়ার ভুয়া খবর কারেন্ট অ্যাফেয়ার্সে

সাম্প্রতিক তথ্য বিষয়ক ম্যাগাজিন ‘কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স’ এর মে মাসের সংখ্যার ২৩তম পৃষ্ঠায় ‘বিশ্বসেরা বিতার্কিক রংপুরের রাকিব’ শীর্ষক শিরোনামে একটি খবর প্রচার করা হয়েছে। 

যেখানে দাবি করা হয়েছে, “বিশ্বের ভবিষ্যৎ নেতাদের খোঁজা শীর্ষক শিরোনামে হোয়াইট হাউস আয়োজিত যুক্তরাষ্ট্র সরকারের সংসদীয় বিতর্কের সব রেকর্ড ভেঙে ১৪৪ পর্বে জিতে সেরা বিতার্কিক হয় বাংলাদেশি স্কুলছাত্র শাহ মুহাম্মদ রাকিব হাসান। হোয়াইট হাউস আন্তর্জাতিক বিতর্ক প্রতিযোগিতা ২৭ ফেব্রুয়ারি-১৪ মার্চ ২০২৩ পর্যন্ত অনলাইনের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হয়। এই বছর বিশ্বের ৭৩ দেশের ৫৩৪ জন বিতার্কিক প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে। ২৮ মার্চ ২০২৩ ওয়াশিংটনের হোয়াইট হাউস সাউথ কোর্ট অডিটরিয়ামে আনুষ্ঠানিকভাবে পুরস্কার বিরতণ করা হয়। তবে পাসপোর্ট না থাকায় রাকিব সরাসরি পুরস্কার গ্রহণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত হতে পারেনি। জন্ম থেকেই শারীরিক প্রতিবন্ধী রাকিব রংপুর পুলিশ লাইনস স্কুল অ্যান্ড কলেজের দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী।”

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, হোয়াইট হাউসের নাম ব্যবহার করে বিতর্ক প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশি রাকিবের সাফল্যের যে খবর ‘কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স’ এ প্রকাশিত হয়েছে তা সঠিক নয় বরং হোয়াইট হাউস সম্প্রতি এমন কোনো প্রতিযোগিতার আয়োজন করেনি। হোয়াইট হাউসের ডোমেইনের সাথে মিল রেখে ভুয়া ওয়েবসাইট তৈরি করে ভুয়া একটি প্রতিযোগিতায় রাকিব সেরা বিতার্কিক হয়েছেন বলে দাবি করেছেন।

মূলত, গত মার্চ মাসের শেষের দিকে দেশের একাধিক গণমাধ্যমে ‘যুক্তরাষ্ট্রের হোয়াইট হাউসের উদ্যোগে আয়োজিত একটি বিতর্ক প্রতিযোগিতায় রংপুরের শাহ মুহাম্মদ রাকিব হাসান নামে এক স্কুল শিক্ষার্থী সেরা বিতার্কিক হয়েছেন’ শীর্ষক দাবিতে সংবাদ প্রচার করা হয়। একই বিষয় সাম্প্রতিক তথ্য বিষয়ক ম্যাগাজিন ‘কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স’ এর মে মাসের সংখ্যার ২৩তম পৃষ্ঠায় প্রচার করা হয়। তবে এ নিয়ে পূর্বেই ফ্যাক্টচেক প্রকাশ করেছে রিউমর স্ক্যানার।

রিউমর স্ক্যানারের অনুসন্ধানে জানা যায়, হোয়াইট হাউস সম্প্রতি এমন কোনো প্রতিযোগিতার আয়োজন করেনি এবং এ বিষয়ে হোয়াইট হাউস বা প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের কোনো সংশ্লিষ্টতার প্রমাণ মেলেনি। হোয়াইট হাউসের ডোমেইনের সাথে মিল রেখে ভুয়া ওয়েবসাইট তৈরি করে ভুয়া প্রতিযোগিতার বিষয়টি ছড়ানো হয়েছে। রাকিব তার ফেসবুক পোস্টে প্রতিযোগিতার লিগ্যাল ডকুমেন্টস দাবিতে যে ছবিগুলো দিয়েছেন তাতে দুইজন মার্কিন কর্মকর্তার জাল স্বাক্ষরের প্রমাণ মিলেছে। তাছাড়া, রাকিব দুইটি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমকে জড়িয়ে ভুয়া খবরের স্ক্রিনশট পোস্ট করেছেন। এমনকি এই কথিত আয়োজনের পুরস্কার বিতরণীর প্রস্তুতি সভার একটি ছবি রয়েছে ভুয়া সাইটটিতে, যেটি মূলত ২০১৮ সালের বেসরকারি একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিতর্ক প্রতিযোগিতার ছবি।

এ বিষয়ে গত ১ এপ্রিল রিউমর স্ক্যানারের প্রকাশিত বিস্তারিত ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদন দেখুন এখানে

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img