থাম্বনেইলে বাংলাদেশের পুলিশের ছবি ব্যবহার করে বোমা হামলায় ৭ পুলিশ নিহত হওয়ার বিভ্রান্তিকর সংবাদ

সম্প্রতি ‘তারাবি শেষেই ভয়াবহ বোমা হামলা ৭ পুলিশ নিহত’ শীর্ষক শিরোনামে একটি ভিডিও সামাজিক  যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হয়েছে। 

ফেসবুকে প্রচারিত এমন একটি পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে
আর্কাইভ ভার্সন দেখুন এখানে এবং এখানে।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, বাংলাদেশে বাংলাদেশে ভয়াবহ বোমা হামলায় ৭ পুলিশ সদস্য নিহতের ঘটনা ঘটেনি বরং পাকিস্তানে বোমা হামলায় ৪ পুলিশ সদস্য নিহতের ঘটনা ঘটেছে এবং কোন দেশের পুলিশ তা নির্দিষ্ট করে উল্লেখ না করা এবং ভিডিও’র থাম্বনেইলে বাংলাদেশের পুলিশের ছবি ব্যবহার করার কারণে বিষয়টি নিয়ে বিভ্রান্তি তৈরি হয়েছে। 

গত ৩০ মার্চ News Plus নামের একটি পেজ থেকে ‘তারাবি শেষেই ভয়াবহ বোমা হামলা ৭ পুলিশ নিহত’ শীর্ষক শিরোনাম এবং থাম্বনেইলে বাংলাদেশের পুলিশের ছবি ব্যবহার ভিডিওটি প্রকাশ করা হয়।

ভিডিওটি পর্যবেক্ষণ করলে দেখা যায়, এটি কয়েকটি প্রতিবেদন নিয়ে তৈরি একটি নিউজ বুলেটিন ভিডিও। ৮ মিনিট ১২ সেকেন্ডের এই ভিডিওটিতে ৭ মিনিট ৪৮ সেকেন্ডের সময় ভয়াবহ বোমা হামলায় পুলিশ নিহতের ব্যাপারে বলা হয়। এবিষয়ে সংবাদ পাঠ ৭ মিনিট ৪৮ সেকেন্ড থেকে শুরু হয়ে ৮ মিনিট ১২ সেকেন্ড পর্যন্ত চলে। তবে ভিডিও’র ক্যাপশন এবং থাম্বনেইলে ৭ পুলিশ সদস্যের কথা লেখা হলেও বিস্তারিত প্রতিবেদনে ৪ পুলিশ সদস্য নিহতের কথা বলা হয়। প্রতিবেদনে বলা হয়, পাকিস্তানে বোমা হামলায় নিহত ৪ পুলিশ। পাকিস্তানের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে বুধবার (২৯ মার্চ) রাতে বোমা হামলায় চার পুলিশ কর্মকর্তা নিহত হয়েছেন। রেডিও ফ্রী এশিয়ার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়। জেলা পুলিশের মুখপাত্র শাহিদ খান জানান, বন্দুকধারীরা ওয়াজিরিস্তান উপজাতীয় অঞ্চলের নিকটবর্তী লাক্কি মারওয়াত জেলার একটি পুলিশ স্টেশনে হামলা চালায়। সিনিয়র অফিসার ইকবাল মোহমান্দের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল তাদের সহকর্মীদের সহায়তায় ছুটে যায়।

উক্ত প্রতিবেদনের সূত্র ধরে প্রাসঙ্গিক কি ওয়ার্ড অনুসন্ধানের মাধ্যমে মূল ধারার গণমাধ্যম ইত্তেফাকের অনলাইন সংস্করণে ‘পাকিস্তানে বোমা হামলায় নিহত ৪ পুলিশ’ শীর্ষক শিরোনামে গত ৩০ মার্চ প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন(আর্কাইভ) খুঁজে পাওয়া যায়। 

Screenshot: Ittefaq 

প্রতিবেদনে রেডিও ভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম রেডিও ফ্রি এশিয়ার বরাতে জানানো হয়, পাকিস্তানের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে বুধবার (২৯ মার্চ) রাতে বোমা হামলায় চার পুলিশ কর্মকর্তা নিহত হয়েছেন। জেলা পুলিশের মুখপাত্র শাহিদ খান জানান, বন্দুকধারীরা ওয়াজিরিস্তান উপজাতীয় অঞ্চলের নিকটবর্তী লাক্কি মারওয়াত জেলার একটি পুলিশ স্টেশনে হামলা চালায়। সিনিয়র অফিসার ইকবাল মোহমান্দের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল তাদের সহকর্মীদের সহায়তায় ছুটে যায়। কিন্তু তাদের গাড়িটি রিমোট নিয়ন্ত্রিত বোমার আঘাতে বিস্ফোরিত হয়। বিস্ফোরণে মোহমান্দসহ চার পুলিশ কর্মকর্তা নিহত ও পাঁচজন আহত হয়েছেন।  তালিবান পাকিস্তান (টিটিপি) এই হামলার দায় স্বীকার করেছে।

পরবর্তীতে Radio Free Europe এ ‘Pakistani Taliban Kills Four Police Officers In Bomb Attack’ শিরোনাম  গত ৩০ মার্চ প্রকাশিত মূল প্রতিবেদনটি(আর্কাইভ) খুঁজে পাওয়া যায়।

Screenshot: rferl.org

রিউমর স্ক্যানার যাচাই করে দেখেছে ইত্তেফাকের প্রতিবেদনটি দাবিকৃত ভিডিওতে প্রতিবেদনের শেষ পর্যন্ত হুবহু পাঠ করা হয়েছে। তাছাড়া দাবিকৃত ভিডিও’র শিরোনামে বোমা হামলায় ৭ পুলিশ নিহতের কথা লেখা হলেও বিস্তারিত সংবাদ পাঠের সময়ে ইত্তেফাকের প্রতিবেদন অনুযায়ী পাকিস্তানের বোমা হামলায় ৪ পুলিশ সদস্য নিহতের কথা বলা হয়।

Image Collage: Rumor Scanner

পাশাপাশি দেশীয় কিংবা আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম কিংবা অন্যকোনো সূত্রে  ভয়াবহ বোমা হামলায় বাংলাদেশের পুলিশ নিহতের কোনো সংবাদ খুঁজে পাওয়া যায়নি। 

অর্থাৎ, প্রচারিত ভিডিও’র বিস্তারিত প্রতিবেদন এবং এবিষয়ে গণমাধ্যমমের প্রতিবেদন পর্যালোচনা করলে এটা স্পষ্ট যে, পাকিস্থানে বোমা হামলায় বোমা হামলায় ৪ পুলিশ নিহত হওয়ার ঘটনাকে পাকিস্তানের নাম উল্লেখ না করে ভয়াবহ বোমা হামলায় ৭ পুলিশ নিহত হয়েছে দাবি করে থাম্বনেইলে বাংলাদেশ পুলিশের ছবি ব্যবহার করে বিভ্রান্তিকরভাবে প্রচার করা হয়েছে।

মূলত, সম্প্রতি পাকিস্তানে তালেবানের বোমা হামলায় ৪ পুলিশ সদস্য নিহত হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। তবে বাংলাদেশে একটি নিউজ বুলেটিন ভিডিওতে দেশটির নাম উল্লেখ না করে ‘তারাবি শেষেই ভয়াবহ বোমা হামলা ৭ পুলিশ নিহত’ শীর্ষক শিরোনাম এবং ভিডিও’র থাম্বনেইলে বাংলাদেশের পুলিশের ছবি ব্যবহার করার কারণে বিষয়টি নিয়ে বিভ্রান্তি তৈরি হয়।

উল্লেখ্য, ক্যাপশন এবং থাম্বনেইলে চটকদার শিরোনাম ব্যবহার করে বিভিন্ন সময় বিভ্রান্তিকর তথ্য প্রচার করা হচ্ছে। এসব ঘটনা নিয়ে পূর্বেও ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে রিউমর স্ক্যানার।

সুতরাং, পাকিস্তানে বোমা হামলায় পুলিশ নিহতের ঘটনার সংবাদের ভিডিও’র ক্যাপশনে শুধুমাত্র ”তারাবি শেষেই ভয়াবহ বোমা হামলা ৭ পুলিশ নিহত’ লিখে প্রচার করা হচ্ছে এবং থাম্বনেইলে বাংলাদেশের পুলিশের ছবি ব্যবহার করা হচ্ছে; যা বিভ্রান্তিকর। 

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img