শনিবার, এপ্রিল 13, 2024
spot_img

মেসি ফাউন্ডেশন থেকে তুরস্ক ও সিরিয়ায় ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্তদের ৩৫ লাখ ইউরো দান করার দাবিটি মিথ্যা

গত ০৬ ফেব্রুয়ারি তুরস্ক ও সিরিয়ায় ৭.৮ মাত্রার শক্তিশালি ভূমিকম্পের ঘটনাকে কেন্দ্র করে আর্জেন্টাইন ফুটবল তারকার ‘লিও মেসি ফাউন্ডেশন’ তুরস্ক ও সিরিয়ার এ ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য ৩৫ লাখ ইউরো দান করার ঘোষণা দিয়েছেন দাবিতে একটি তথ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও গণমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। 

Image from CrowdTangle.

উক্ত দাবিতে ফেসবুকে প্রচারিত কিছু পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে
পোস্টগুলোর আর্কাইভ দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে

Screenshot from Daily Inqilab

একই দাবিতে মূলধারার গণমাধ্যম ভোরের কাগজ, মানবকন্ঠ, ঢাকা মেইল, দৈনিক ইনকিলাব, যুগান্তর, দৈনিক আমাদের সময়, আরটিভি, ডিবিসি, চেঞ্জ টিভি, স্পোর্টসজোন২৪, প্যাভিলিয়ন, একাত্তর টিভি, রিদ্মিক নিউজ, স্টার সংবাদ, ২৪ লাইভ নিউজপেপার, আজকালের খবর এবং বিজনেস বাংলাদেশ সংবাদ প্রচার করেছে। 

একই দাবিতে ভারতীয় গণমাধ্যম নিউজ১৮ সংবাদ প্রচার করে।

একই দাবিতে অনলাইন পোর্টাল সিভয়েস২৪, বাংলাদেশ মোমেন্টস, দৈনিক শিক্ষাবার্তা, স্বাধীন আলো, ট্রাস্ট নিউজ২৪ এবং প্রবাসীর দিগন্ত সংবাদ প্রচার করেছে। 

Screenshot from YouTube.

একই দাবিতে ইউটিউবে প্রচারিত কিছু ভিডিও দেখুন এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে
ভিডিওগুলোর আর্কাইভ দেখুন এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে

Screenshot from TikTok

টিকটকে প্রচারিত কিছু ভিডিও দেখুন এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে
ভিডিওগুলোর আর্কাইভ দেখুন এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে। 

Screenshot from Twitter.

টুইটারে প্রচারিত কিছু টুইট দেখুন এখানে, এখানে এবং এখানে
টুইটগুলোর আর্কাইভ দেখুন এখানে, এখানে এবং এখানে

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, লিও মেসি ফাউন্ডেশন তুরস্ক ও সিরিয়ার এ ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য ৩৫ লাখ ইউরো দান করার ঘোষণা দিয়েছে দাবিতে প্রচারিত তথ্যটি সত্য নয় বরং ইউনিসেফকে বানোয়াট সূত্র দেখিয়ে এই দাবিটির প্রচার শুরু হয়।

দাবিটি যেভাবে ছড়ালো

অনুসন্ধানে, গত ০৭ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ সময় দুপুর ১টা ৫৩ মিনিটে ‘Fc Barcelona Ruling Club since : 1899’ নামের একটি ফেসবুক পেজে “LEO MESSI FOUNDATION WILL DONATE €3.5M TO RECENT VICTIMS WHO SUFFERED FROM DEVASTATING EARTHQUAKE AND TSUNAMI IN TURKEY AND SYRIA.” (অনুবাদঃ সম্প্রতি তুরস্ক এবং সিরিয়ায় বিধ্বংসী ভূমিকম্প এবং সুনামিতে ক্ষতিগ্রস্থদের জন্য সাড়ে তিন মিলিয়ন ইউরো দান করবে লিও মেসি ফাউন্ডেশন)  শীর্ষক লেখাযুক্ত একটি ব্যানার (আর্কাইভ) খুঁজে পাওয়া যায়। এটিই আলোচিত দাবিতে রিউমর স্ক্যানার টিমের পাওয়া সর্বপ্রথম ফেসবুক পোস্ট। উক্ত পোস্টটি ছাড়াও সেদিন একই ব্যানার আরো অসংখ্য ফেসবুক আইডি এবং পেজে প্রচার হতে দেখা যায়। এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)।

Image Source: Facebook

আলোচিত ব্যানারটি ভালোভাবে লক্ষ্য করলে দেখা যায়, ব্যানারে থাকা দাবির বিপরীতে ইউনিসেফকে সূত্র দেখানো হয়েছে। এছাড়া, ‘sarcasmfootballmnepal’ নামের একটি ফেসবুক ইউজারনেমও ব্যানারে লক্ষ্য করা যায়। সেটির সূত্র ধরে ‘Sarcasm Football Nepal’ নামের একটি ফেসবুক পেজ খুঁজে পাওয়া যায়। পেজটি কার্যক্রম পর্যালোচনা করা করে জানা যায় এটি ফুটবল বিষয়ক একটি পেজ, যেখানে ফুটবলের বিভিন্ন সংবাদ এবং সার্কাজম পোস্ট করা হয়।

পেজটির টাইমলাইন ঘুরে উক্ত ব্যানারটি সেখানে খুঁজে পাওয়া যায়নি। তবে সেদিন এই ব্যানার পোস্ট করা একাধিক ব্যক্তির সাথে যোগাযোগ করা হলে তারা এই ব্যানারটি ‘Sarcasm Football Nepal’ থেকেই সংগ্রহ করেছেন বলে জানান। যার ফলে প্রতীয়মান হয়, সার্কাজম ফুটবল নেপাল নামের ফেসবুক পেজ থেকে এই ব্যানারটি পোস্ট করা হলেও পরবর্তীতে তারা এই ব্যানারটি সরিয়ে নেয়। এই বিষয়ে পেজটির সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তাদের কাছ থেকে কোনো প্রত্যুত্তর পাওয়া যায়নি।

তাছাড়া, ব্যানারে দাবিটির সূত্র ‘ইউনিসেফ’ উল্লেখ করা হলেও ইউনিসেফের ওয়েবসাইট কিংবা সোশ্যাল মিডিয়া প্রোফাইলে এমন কোনো তথ্য খুঁজে পাওয়া যায়নি। এমনকি বিশ্বস্ত কোনো গণমাধ্যমেও এই তথ্যের অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি।

উল্লেখ্য, গত ২৯ ডিসেম্বর ফুটবল কিংবদন্তি পেলের মৃত্যুর পর ‘ফিফা কর্তৃক পেলের পায়ের পাতাগুলো জাদুঘরে রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে’ দাবিতে একটি তথ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ে। সেসময় রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, দাবিটি সম্পূর্ণ মিথ্যা। অনুসন্ধানে উঠে আসে ‘Sarcasm Football Nepal’ পেজ থেকে ব্রাজিলের গণমাধ্যম ‘TNT SPORTS BRASIL’ কে সূত্র দেখিয়ে সর্বপ্রথম এই গুজবটি প্রচার করা হয় এবং পরবর্তীতে রিউমর স্ক্যানারে প্রতিবেদন প্রকাশের পর পেজটি থেকে পোস্টটি সরিয়ে নেওয়া হয়। সে প্রতিবেদনটি পড়ুন এখানে। 

গত ০৮ ফেব্রুয়ারি তুরস্ক ভিত্তিক ভেরিফাইড টুইটার প্রোফাইল ‘Trivela Sports’ এ উক্ত দাবিতে একটি টুইট প্রচার হতে দেখা যায়। তবে সেখানে এই দাবির বিপরীতে কোনো সূত্র উল্লেখ করা হয়নি। 

Screenshot from Twitter

পরবর্তীতে, আলবেনিয়ান অনলাইন পোর্টাল ‘Tiranapost’ এর ওয়েবসাইটে একই দিনে উক্ত দাবিতে একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়। প্রতিবেদনে সূত্র হিসেবে লেখা হয়েছে ‘তুরস্কের সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে’। তবে সেদিন অবধি তুরস্কের মূলধারার কোনো গণমাধ্যমে এই দাবিতে সংবাদ প্রকাশ হয়নি। তুরস্কের ফ্যাক্টচেকারদের সাথে যোগাযোগ করা হলে তারাও একই বিষয় জানায়।

Screenshot from Tiranapost.

আলবেনিয়ান এই অনলাইন পোর্টালকেই তুরস্কের গণমাধ্যম দাবি করে দেশীয় একাধিক মূলধারার গণমাধ্যমে সংবাদ প্রচার করা হয়েছে। এমনকি দেশীয় কিছু গণমাধ্যমে লিও মেসি ফাউন্ডেশনের ভেরিফাইড টুইটার প্রোফাইল থেকেও এমন বার্তা পাওয়া গেছে দাবি করা হয়।

Screenshot Source: Daily Inqilab

তবে রিউমর স্ক্যানার টিম গত ০৭ ফেব্রুয়ারি থেকে লিও মেসি ফাউন্ডেশনের টুইটার এবং ফেসবুক পেজ নিয়মিত নজরে রেখেছে। তবে সেখানে এমন কোনো পোস্ট প্রচার হতে দেখেনি। এমনকি দীর্ঘ সময় যাবৎ ফাউন্ডেশনটির টুইটার এবং ফেসবুক পেজে কোনো পোস্ট করা হচ্ছে না। টুইটারে সর্বশেষ পোস্ট (আর্কাইভ) করা হয়েছিলো ২০২১ সালের ২৫ ডিসেম্বর এবং ফেসবুক পেজে সর্বশেষ পোস্ট (আর্কাইভ) করা হয়েছিলো ২০২২ সালের ২১ মার্চ।

Last social media activity of Leo Messi Foundation.

অর্থাৎ, গত ০৭ ডিসেম্বর তুরস্ক এবং সিরিয়ায় ভূমিকম্পের একদিন পরেই ‘Sarcasm Football Nepal’ নামের একটি  ফেসবুক পেজে ইউনিসেফের নামে বানোয়াট সূত্র দিয়ে আলোচিত দাবিতে একটি ব্যানার পোস্ট করা হয়। পরবর্তীতে, সেদিন কপি-পেস্টের মাধ্যমে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এই দাবিটি ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ে। পরের দিন ০৮ ফেব্রুয়ারি তুরস্কের একটি ভেরিফাইড টুইটার প্রোফাইল থেকে কোনো সূত্র ব্যতীত উক্ত দাবিতে একটি টুইট করা হয়। একই দিন আলবেনিয়ান অনলাইন পোর্টাল ‘Tranapost’ তুরস্কের সংবাদমাধ্যমে বলা হয়েছে উল্লেখ করে উক্ত দাবিতে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে এবং আলবেনিয়ান এই অনলাইন পোর্টালকেই তুরস্কের গণমাধ্যম দাবি করে দেশীয় একাধিক মূলধারার গণমাধ্যমে সংবাদ প্রচার হয়। তাছাড়া দেশীয় কিছু গণমাধ্যমে লিও মেসি ফাউন্ডেশনের ভেরিফাইড টুইটার প্রোফাইল থেকে এমন বার্তা পাওয়া যাওয়ার মিথ্যা দাবি করা হয়।

তুরস্ক এবং সিরিয়ার ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য মেসির যত সাহায্য

গত ১২ ফেব্রুয়ারি লিওনেল মেসির ভেরিফাইড ইন্সটাগ্রাম এবং ফেসবুক প্রোফাইল থেকে তুরস্ক ও সিরিয়ার ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তায় এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে পোস্ট করা হয়। পোস্টটিতে মেসি তার ফলোয়ারদের তুরস্ক ও সিরিয়ায় ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্ত শিশুদের সহায়তায় কাজ করা জাতিসংঘের শিশুবিষয়ক সংস্থা ইউনিসেফের কাছে অর্থ সহায়তা পাঠানোর আহ্বান জানিয়ে একটি অনুদানের লিংক প্রচার করেছেন। 

Screenshot of an Instagram post by Leo Messi.

এই বিষয়টিই প্রচার করতে গিয়ে তুরস্কের গণমাধ্যমে ‘Fotomac’ এবং ‘Ensonhaber’ লিওনেল মেসির তুরস্ক এবং সিরিয়ায় ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তায় ৩৫ লাখ ইউরো দান করেছেন বলে উল্লেখ করা হয়। তবে, মেসির উক্ত পোস্টগুলো কিংবা পোস্টে থাকা ইউনিসেফর উক্ত অনুদান প্রদানের লিংকে গেলেও এমন তথ্যে পাওয়া যায়নি।

মেসির জার্সি নিলাম

মেসির থেকে তার স্বাক্ষর করা জার্সি সংগ্রহ করে তা নিলামে তুলেছেন তুরস্কের ফুটবলার মেরিহ ডেমিরাল। নিলাম থেকে প্রাপ্ত অর্থ ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের জন্য ব্যয় করা হবে। মেসি ছাড়াও রোনালদো, নেইমার, এমবাপ্পে ছাড়াও আরো অনেক তারকা ফুটবলারদের জার্সি একই ভাবে নিলামে তুলেছেন ডেমিরাল। 

Screenshot Source: CNN

মূলত, গত ০৬ ফেব্রুয়ারি তুরস্ক ও সিরিয়ায় ভয়াবহ ভূমিকম্প আঘাত হানে। ভূমিকম্পের ঘটনার পরের দিন ০৭ ফেব্রুয়ারি ‘Sarcasm Football Nepal’ নামের একটি ফেসবুক পেজ থেকে জাতিসংঘের আন্তর্জাতিক জরুরি শিশু তহবিল ইউনিসেফের সূত্র দেখিয়ে ‘লিও মেসি ফাউন্ডেশন তুরস্ক ও সিরিয়ার ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য ৩৫ লাখ ইউরো দান করার ঘোষণা দিয়েছেন’ শীর্ষক একটি দাবি পোস্ট হয়। যা পরবর্তীতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। এর পরের দিন ০৮ ফেব্রুয়ারি তুরস্ক ভিত্তিক ফুটবল বিষয়ক ভেরিফাইড টুইটার প্রোফাইলে কোনো প্রকার সূত্র ছাড়াই এই দাবিটি টুইট করা হয়। সেদিনই ‘তুরস্কের কিছু গণমাধ্যমে বলা হয়েছে’ উল্লেখ করে আলবেনিয়ান অনলাইন পোর্টাল তিরানাপোস্টে এই দাবিটি প্রচার করা হয়। পরবর্তীতে আলবেনিয়ান এই অনলাইন পোর্টালকে তুরস্কের গণমাধ্যম দাবি করে দেশীয় মূলধারার গণমাধ্যমে তুরস্ক ও সিরিয়ায় ভূমিকম্পে লিও মেসির ৩৫ লাখ ইউরো দানের কথিত সংবাদ প্রচার করা হয়। তবে, ইউনিসেফের সূত্র দেখিয়ে এই দাবিটির সূত্রপাত ঘটলেও সংস্থাটির সোশ্যাল মিডিয়া প্রোফাইলগুলো ঘুরেও এমন তথ্য পাওয়া যায়নি। এমনকি বিশ্বস্ত কোনো গণমাধ্যমেও এই তথ্যের অস্তিত্ব খুঁজে পাওয়া যায়নি। এছাড়া, যে পেজ থেকে প্রথম এই দাবিটি ছড়িয়েছে সে পেজ থেকে ইতোমধ্যেই পোস্টটি সরানো হয়েছে এবং সে পেজ থেকে পূর্বেও গুজব ছড়ানো হয়েছিলো, সে গুজবও শনাক্ত করেছিলো রিউমর স্ক্যানার টিম। তাছাড়া, তিরানাপোস্টে তুরস্কের গণমাধ্যমের কথা উল্লেখ করা হলেও সেদিন অবধি তুরস্কের মূলধারার কোনো গণমাধ্যমই এই বিষয়ে সংবাদ প্রচার করেনি।

উল্লেখ্য, আন্তর্জাতিক ফ্যাক্ট-চেকিং নেটওয়ার্ক এর স্বীকৃতি প্রাপ্ত পর্তুগিজ ফ্যাক্ট-চেকিং সংস্থা ‘Observador’ ইতোমধ্যেই আলোচিত দাবিটিকে মিথ্যা শনাক্ত করে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

সুতরাং, ‘আর্জেন্টাইন ফুটবল তারকার ‘লিও মেসি ফাউন্ডেশন’ তুরস্ক ও সিরিয়ার এ ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য ৩৫ লাখ ইউরো দান করার ঘোষণা দিয়েছেন’ শীর্ষক দাবিটি সম্পূর্ণ মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img