আর্থিক প্রতারণার উদ্দেশ্যে ভারতীয় শিশু আয়নাকে বাংলাদেশী শিশু মাইসা দাবিতে প্রচার

সম্প্রতি “আমার হাফেজি মেয়ে মাইসাকে বাচাতে  চিকিৎসার জন্য 25/35লক্ষ টাকার প্রয়োজন শীর্ষক শিরোনামে একটি শিশুর কয়েকটি ছবি সংযুক্ত করে একটি মানবিক সাহায্যের আবেদন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে।

ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়া এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে। পোস্টগুলোর আর্কাইভ ভার্সন দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে। 

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, হাফেজী পড়া কন্যা শিশু দাবিতে প্রচারিত ছবিগুলো কোনো বাংলাদেশি শিশুর নয় বরং এগুলো  আয়না নামে ভারতে বিরল জেনেটিক রোগ স্পাইনাল মাসকুলার অ্যাট্রোফি আক্রান্ত একটি শিশুর ছবি।

রিভার্স ইমেজ সার্চ পদ্ধতির মাধ্যমে, ভারতের গণ-অর্থায়ন প্লাটফর্ম ‘Impact GuRu’ এর অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে গত ২৯ এপ্রিল প্রকাশিত শিশুটির চিকিৎসার জন্য প্রয়োজনীয় তহবিল সংগ্রহের অনুরোধ করা মূল পোস্টটি খুঁজে পাওয়া যায়।

পোস্টটিতে উল্লেখ করা হয়, আয়না নামের শিশুটি ভারতের বিরল জেনেটিক রোগ স্পাইনাল মাসকুলার অ্যাট্রোফি টাইপ ২ এর বিরুদ্ধে লড়াই করছেন। চিকিৎসকদের মতে, উন্নত চিকিৎসার মাধ্যমে আয়না সুস্থ করে তোলা সম্ভব। কিন্তু এই চিকিৎসার জন্য ২৫/৩৫ লক্ষ টাকা প্রয়জন, যা আয়না বাবা মায়ের পক্ষে বহন করা সম্ভব নয়।

তাছাড়া, Impact GuRu’’ এর ওয়েবসাইটে “Help Ayna Juned Mansuri Raise Funds To Fight SMA” শীর্ষক শিরোনামে আয়না জন্য আর্থিক সহায়তার অনুরোধের একটি প্রতিবেদন পাওয়া যায়।

যদিও, ভিন্ন ভিন্ন সময়ে ছবি ধারণ করার কারণে Impact GuRu এর ফেসবুক পেজে এবং ওয়েবসাইটে ব্যবহৃত  আয়না ছবি গুলো হুবহু এক নয়।

মূলত, ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়া ছবিগুলো ভারতের আয়না নামের ৪ বছর বয়সী এক শিশু কন্যার। সে  বর্তমানে স্পাইনাল মাসকুলার অ্যাট্রোফিতে ভুগছেন, আহমেদাবাদের রয়্যাল ইনস্টিটিউট অফ চাইল্ড নিউরোসায়েন্স (বোদাকদেভ) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। ভারতীয় শিশু আয়না ছবি ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহ করে বাংলাদেশি রোগাক্রান্ত হাফেজী পড়া মাইসা মেয়ে শিশুটির  চিকিৎসার জন্য আর্থিক সহায়তা প্রয়োজন দাবিতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হচ্ছে।

এছাড়া, সাম্প্রতিক সময়ে মাইসা নামের মেয়ে শিশুটির নামে আর্থিক সাহায্যের জন্য আবেদনকৃত ফেসবুক পোস্টগুলোয় উল্লিখিত ব্যক্তিগত বিকাশ ও নগদ নাম্বারে যথাক্রমে 01913672172 এ একাধিক বার যোগাযোগ করার চেষ্টা করে তা বন্ধ পাওয়া যায়।

উল্লেখ্য, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বিগত কয়েকমাস যাবত শুধুমাত্র নাম ও ছবি পরিবর্তন করে ভিন্ন ভিন্ন শিরোনামে আর্থিক সহায়তার নামে প্রতারণা মূলক তথ্য প্রচার করা হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, রিউমর স্ক্যানার টিম পূর্বেও বিভিন্ন নাম ব্যবহার করে প্রতারণার উদ্দেশ্যে আর্থিক সাহায্য চেয়ে করা পোস্টগুলোকে শনাক্ত করে একাধিক ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। প্রতিবেদন গুলো দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে

সুতরাং, আর্থিক সহায়তার নামে প্রতারণার উদ্দেশ্যে ভারতীয় রোগাক্রান্ত শিশু আয়না ছবি ব্যবহার করে বাংলাদেশের রোগাক্রান্ত শিশুর ছবি দাবি করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হচ্ছে; যা সম্পূর্ণ মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img