বৃহস্পতিবার, জুলাই 18, 2024
spot_img

সাকিব আল হাসানের অধিনায়কত্ব হারানোর গুজব

হবিগঞ্জ-৪ আসনের নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার সায়েদুল হক সুমনকে হামলা চেষ্টার কারণে মাগুরা-১ আসনের নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড থেকে দলের অধিনায়কত্ব হারিয়েছেন শীর্ষক দাবি সম্বলিত শিরোনাম ও থাম্বনেইল ব্যবহার করে গত ১১ জানুয়ারি Sports Center নামের একটি ইউটিউব চ্যানেলে একটি ভিডিও প্রচার করা হয়েছে।

অধিনায়কত্ব

ভিডিওটি দেখুন এখানে (আর্কাইভ)।

এই প্রতিবেদন প্রকাশ হওয়া অবধি ভিডিওটি দেখা হয়েছে প্রায় ৭৫ হাজার বার। ভিডিওটিতে ১ হাজার ৫ শত পৃথক অ্যাকাউন্ট থেকে প্রতিক্রিয়া জানানো হয়েছে।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, মাগুরা-১ আসনের নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসানকে অধিনায়কত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়নি বরং অধিক ভিউ পাওয়ার আশায় চটকদার শিরোনাম ও থাম্বনেইল ব্যবহার করে তাতে ভিন্ন ভিন্ন ঘটনার পুরোনো কিছু ভিডিও ক্লিপ ও ছবি যুক্ত করে ডিজিটাল প্রযুক্তির সহায়তায় সম্পাদনার মাধ্যমে আলোচিত ভিডিওটি তৈরি করা হয়েছে।

অনুসন্ধানের শুরুতে আলোচিত ভিডিওটি পর্যবেক্ষণ করে রিউমর স্ক্যানার টিম। ভিডিওটিতে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন, অধিনায়ক সাকিব আল হাসান এবং ব্যারিস্টার সায়েদুল হক সুমনের পুরোনো কিছু ছবি ও ভিডিও ক্লিপ প্রদর্শিত হতে দেখা যায়।

ভিডিওটি’র সংবাদপাঠ অংশে দাবি হয়, পুরোনো শত্রুতার জেরে এমপি হওয়ার পর আবারও ব্যারিস্টার সুমনকে মারার হুমকি দেয় সাকিব আল হাসান। এই খবর নাজমুল হাসান পাপনের কানে পৌছালে তিনি এক সংবাদ মাধ্যমে এসে সাকিব আল হাসানকে অহংকারী এবং বেয়াদব আখ্যা দিয়ে তাকে তিন ফরম্যাটের অধিনায়কের দায়িত্ব থেকে বহিস্কার করেন।

পরবর্তী অনুসন্ধানে আলোচিত ভিডিওটিতে থাকা ছবি ও ভিডিও ক্লিপগুলোর বিষয়ে আলাদাভাবে অনুসন্ধান চালায় রিউমর স্ক্যানার টিম।

ভিডিও যাচাই: ১

ভিডিওটি থেকে কিছু স্থিরচিত্র নিয়ে রিভার্স ইমেজ সার্চের মাধ্যমে মূলধারার গণমাধ্যম কালবেলা’র ইউটিউব চ্যানেলে ২০২৩ সালের ১৬ মার্চ ‘ব্যারিস্টার সুমনকে মারতে গিয়েছিলেন সাকিব আল হাসান’ শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমনের সাক্ষাৎকারের একটি ভিডিও খুঁজে পাওয়া যায়।

এই ভিডিওটি’র একটি অংশের সাথে আলোচিত ভিডিওটি’র শুরুতে দেখানো ব্যারিস্টার সুমনের ভিডিও ক্লিপের হুবহু মিল পাওয়া যায়।

Video Comparison by Rumor Scanner

ভিডিওতে সেসময় ব্যারিস্টার সায়েদুল হক সুমনকে সাকিব আল হাসানের বিরুদ্ধে হামলা চেষ্টার অভিযোগ সহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কথা বলতে দেখা যায়।

অর্থাৎ, এই ভিডিওটি সাম্প্রতিক সময়ের নয়।

ভিডিও যাচাই ২

ভিডিওটি থেকে কিছু স্থিরচিত্র নিয়ে রিভার্স ইমেজ সার্চের মাধ্যমে বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল ‘এখন টিভি’রর ইউটিউব চ্যানেলে ২০২৩ সালের ২৯ অক্টোবর ‘বাংলাদেশের ব্যর্থতা নিয়ে যা বললেন পাপন’ শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি ভিডিও খুঁজে পাওয়া যায়।

Screenshot: EKHON TV

ভিডিওতে উল্লেখিত বিস্তারিত তথ্য থেকে জানা যায়, এটি ২০২৩ সালে ভারতে অনুষ্ঠিত ওয়ানডে বিশ্বকাপে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের পরাজয় প্রসঙ্গে সেসময় সাংবাদিকদের সাথে বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের কথা বলার ভিডিও।

এই ভিডিওটি’র একটি অংশের সাথে আলোচিত ভিডিওটি’র নাজমুল হাসান পাপনের বক্তব্যের ফুটেজ অংশের হুবহু মিল পাওয়া যায়।

Video Comparison by Rumor Scanner 

অর্থাৎ, এই ভিডিওটি সাম্প্রতিক সময়ের নয় এবং এর সাথে আলোচিত দাবির কোনো সম্পর্ক নেই।

ছবি যাচাই

ভিডিওটিতে প্রদর্শিত নাজমুল হাসান পাপনের ছবিটি রিভার্স ইমেজ সার্চের মাধ্যমে বাংলাদেশের জাতীয় সংবাদ সংস্থা ‘বাসস’ এর ওয়েবসাইটে ২০২৩ সালের ২৩ জুলাই ‘বিশ্বকাপে তামিমই আমাদের অধিনায়ক’ শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়। 

উক্ত প্রতিবেদনে ব্যবহৃত ছবির সাথে আলোচিত ভিডিওতে ব্যবহৃত নাজমুল হাসান পাপনের ছবির হুবহু মিল পাওয়া যায়।

Image Comparison by Rumor Scanner

প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, এটি ২০২৩ সালে ভারতে অনুষ্ঠিত ওয়ানডে বিশ্বকাপে তামিম ইকবাল বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের অধিনায়ক হওয়া প্রসঙ্গে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের সাংবাদিকদের সাথে কথা বলার সময়ের ছবি।

অর্থাৎ, এই ছবিটি সাম্প্রতিক সময়ের নয় এবং এর সাথে আলোচিত দাবির কোনো সম্পর্ক নেই।

পাশাপাশি, গণমাধ্যম কিংবা সংশ্লিষ্ট অন্যকোনো নির্ভরযোগ্য সূত্রে এখন পর্যন্ত সাকিব আল হাসানকে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়কের পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়ার কোনো তথ্য খুঁজে পাওয়া যায়নি। 

তবে ব্যারিস্টার সায়েদুল হক সুমনের অফিশিয়াল  ফেসবুক পেজে ২০২৩ সালের ১৬ মার্চ প্রকাশিত এক ভিডিও বার্তায় তিনি সাকিব আল হাসানের দুবাইয়ে গিয়ে আলোচিত স্বর্ণ ব্যবসায়ী আরাভ খানের জুয়েলারি শপ উদ্বোধন করতে যাওয়ার বিষয়ের সমালোচনা করে সাকিবের বিরুদ্ধে তার (সুমন) ওপর হামলার চেষ্টার অভিযোগ করেন। তবে উক্ত ঘটনায় সেসময় বা পরবর্তীতে কোনো ধরনের মামলা করা হয়নি।

এছাড়া, মূলধারার গণমাধ্যম ‘যুগান্তর’ এর অনলাইন সংস্করণে গত ২৯ ডিসেম্বর ‘সাকিব এখনো আমাদের অধিনায়ক’ শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বিসিবির ক্রিকেট অপারেশনস কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনূসের বক্তব্য থেকে জানা যায়, রাজনৈতিক ব্যস্ততা এবং ইনজুরির কারণে সেসময় দলের বাইরে থাকলেও সাকিব আল হাসানই বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক হিসেবে থাকবেন। সাকিব আল হাসানের পরিকল্পনা জেনে পরবর্তীতে দীর্ঘমেয়াদী অধিনায়ক কে হবেন সেব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

অর্থাৎ, উপরোক্ত বিষয়গুলো পর্যালোচনা করলে এটা স্পষ্ট যে, আলোচিত ভিডিওটিতে প্রচারিত দাবিটি সঠিক নয়।

মূলত, ব্যারিস্টার সায়েদুল হক সুমনের অফিশিয়াল ফেসবুক পেজে ২০২৩ সালের ১৬ মার্চ প্রকাশিত এক ভিডিও বার্তায় তিনি সাকিব আল হাসানের দুবাইয়ে গিয়ে আলোচিত স্বর্ণ ব্যবসায়ী আরাভ খানের জুয়েলারি শপ উদ্বোধন করতে যাওয়ার বিষয়ের সমালোচনা করে সাকিবের বিরুদ্ধে তার (সুমন) ওপর হামলার চেষ্টার অভিযোগ করেন। পরবর্তী উক্ত বিষয়টি ব্যাপক ভাইরাল হলে তা নিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়। সাকিব ও সুমনের এই পুরোনো দ্বন্দ্বকে পুঁজি করে গত ১১ জানুয়ারি Sports Center নামের একটি ইউটিউব চ্যানেলে হবিগঞ্জ-৪ আসনের নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার সায়েদুল হক সুমনকে হামলা চেষ্টার কারণে মাগুরা-১ আসনের নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড থেকে দলের অধিনায়কত্ব হারিয়েছে শীর্ষক দাবি সম্বলিত শিরোনাম ও থাম্বনেইল ব্যবহার করে একটি ভিডিও প্রচার করা হয়। তবে অনুসন্ধানে উক্ত দাবির সত্যতা পাওয়া যায়নি। প্রকৃতপক্ষে সাকিব আল হাসানকে অধিনায়কত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়ার কোনো ঘটনা ঘটেনি। সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর সায়েদুল হক সুমন ও সাকিব আল হাসানের মধ্যে পুনরায় দ্বন্দ্বে জড়িয়ে যাওয়ার কোনো সংবাদ পাওয়া যায়নি এবং তাদের পুরোনো দ্বন্দ্ব নিয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের প্রেসিডেন্ট নাজমুল হাসান পাপন সাম্প্রতিক সময়ে কোনো বক্তব্য প্রদান করেননি।

উল্লেখ্য, পূর্বেও ব্যারিস্টার সুমন এবং সাকিব আল হাসানের বিষয়ে ভুল তথ্য প্রচারের প্রেক্ষিতে ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে রিউমর স্ক্যানার।

সুতরাং, ব্যারিস্টার সায়েদুল হক সুমনকে হামলা চেষ্টার অভিযোগের প্রেক্ষিতে সাকিব আল হাসান বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়কত্ব হারিয়েছেন দাবিতে ইন্টারনেটে প্রচারিত তথ্যটি সম্পূর্ণ মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img