কোরিয়ান কে-পপ ব্যান্ড বিটিএস ভেঙে যাওয়ার তথ্যটি মিথ্যা

সম্প্রতি দক্ষিণ কোরিয়ার বিখ্যাত কে-পপ ব্যান্ড বিটিএস ভেঙে যাওয়ার দাবিতে দেশের বেশ কয়েকটি মূলধারার গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, বিটিএস ব্যান্ড ভেঙে যায়নি বরং ব্যান্ডটির পৃষ্ঠপোষক হাইব জানিয়েছে, বিটিএস ব্যান্ড ভাঙছে না। ব্যান্ডটির সদস্যরা গ্রুপ ও ব্যক্তিগত উভয় প্রজেক্টগুলো করে যাবে। তবে বর্তমানে ব্যক্তিগত প্রজেক্টের উপরই বেশি জোর দিবে।

গত ১৫ জুন দৈনিক ইনকিলাব বিটিএস সদস্য সুগাকে উদ্ধৃত করে জানায় ‘তারা এখন আলাদা হয়ে যাচ্ছেন। ফলে ভেঙে যাচ্ছে বিটিএস। এখন থেকে তারা দলবদ্ধ হয়ে নয়, বরং একক ক্যারিয়ারে নজর দেবেন।

Screenshot Inqilab website

একইদিনে বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল আরটিভি তাদের ওয়েবসাইটে ‘বিটিএস’ ভাঙার গুঞ্জন শীর্ষক শিরোনামে প্রতিবেদন প্রচার করে। 

প্রতিবেদনটিতে তারা জানায়, “থেমে গেল বিটিএসের পথচলা। এখন থেকে তারা দলবদ্ধ হয়ে নয়, বরং একক ক্যারিয়ারেই নজর দিচ্ছেন। অর্থাৎ যার যার মতো করে আলাদা গান করবেন। মোদ্দাকথা, ভেঙে গেছে বিটিএস।”

Screenshot Prothom alo website

এছাড়া দেশীয় মূলধারার গণমাধ্যম দৈনিক প্রথম আলো, আরটিভি, ইনকিলাব, একুশে টিভিকালের কন্ঠ, ঢাকা পোস্ট, সময়ের আলো, আমাদের সময় ডটকম, একাত্তর টিভি, সমকাল, এবি নিউজ২৪, রাইজিং বিডি সহ অনেক গণমাধ্যম বিটিএস ভেঙে গেছে শীর্ষক প্রতিবেদন প্রচার করে। 

এদের মধ্যে প্রথম আলো বিটিএসের ভাঙন নিয়ে একাধিক প্রতিবেদন প্রকাশ করে। 

Screenshot Dhaka Post website

এছাড়া অনলাইন ঢাকা পোস্টের ইউটিউব চ্যানেলেও ভেঙে গেল বিটিএস শিরোনামে ভিডিও প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়। 

গুজবের সূত্রপাত

অনুসন্ধানে জানা যায়, চলতি মাসের ১৩ জুন বিটিএস ব্যান্ড ৯ বছর পূর্ণ করে৷ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী স্মরণে ১০ জুন ব্যান্ডটি মুক্তি দেয় তাদের নতুন অ্যালবাম প্রুফ। এরপর গত মঙ্গলবার ছিল ব্যান্ডটির বার্ষিক ‘ফিসটা’ ডিনার৷ এই ডিনার আয়োজনের পুরোটা বিটিএসের অফিসিয়াল ইউটিউব চ্যানেলে প্রচার করা হয়। এই আয়োজনের একটি পর্যায়ে বিটিএসের অন্যতম সদস্য সুগা ব্যান্ডের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা নিয়ে কথা বলতে শুরু করেন। কোরিয়ান ভাষায় প্রচারিত পুরো ভিডিওটিতেই ছিল ইংরেজি সাবটাইটেল। সেখানে ২১ তম মিনিটে সুগা কোরিয়ান ভাষায় বলেন, আমরা একটি সাময়িক বিরতিতে যাচ্ছি। তার এ বক্তব্যের সূত্র ধরেই বিটিএস ভেঙে যাওয়ার সংবাদ গণমাধ্যমে উঠে আসে। 

কিন্তু পরবর্তীতে কী-ওয়ার্ড অনুসন্ধানের মাধ্যমে বার্তা সংস্থা এপিনিউজের ওয়েবসাইটে গত ১৫ জুন “K-pop supergroup BTS says it’s making time for solo projects” শীর্ষক শিরোনামে একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়। 

বিটিএস
Screenshot Ap website

প্রতিবেদনটিতে তারা বিটিএসের পৃষ্ঠপোষক হাইবের একটি বিজ্ঞপ্তি উদ্ধৃত করে বলে, বিটিএস ভাঙছে না৷ তারা বিভিন্ন প্রজেক্টে দল ও ব্যক্তিগত উভয়ভাবেই কাজ করবে। তবে বর্তমানে তারা ব্যক্তিগত প্রজেক্টের উপরই বেশি জোর দিবে।

আমেরিকা ভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম bustle.com এ ও ১৫ জুন “Did BTS Break Up? Members Explain Their Hiatus & Promise To “Return Someday”  শীর্ষক শিরোনামে একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়। প্রতিবেদনটিতে বিটিএস সদস্য জাংকুক ও জে হোপকে উদ্ধৃত করা হয়।

যেখানে জ্যন কুক বলেন, আমরা প্রতিজ্ঞা করছি, আমরা এখনের চেয়েও আরও পরিপক্ক হয়ে ফিরে আসব। তাই আমি আশা করছি, তোমরা (ভক্ত) আমাদেরকে আশীর্বাদ করে যাবে৷ আমরা আমাদেরকেও ছাড়িয়ে যাব। 

জে হোপ বলেন, বিটিএস আরও শক্তিশালী হয়ে ফিরবে। এটা বিটিএসের দ্বিতীয় অধ্যায়ের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

মূলত, বিটিএস সদস্যরা একটি সরাসরি সম্প্রচারিত আড্ডা অনুষ্ঠানে বিটিএস ব্যান্ডে দলগত কাজের পাশাপাশি নিজেদের একক কাজে জোর দিতে বিরতি ঘোষণা করেন। ব্যক্তিগত বিরতিতে যাওয়ার এই তথ্যটিকেই বিটিএস ব্যান্ড ভেঙে যাচ্ছে দাবিতে দেশীয় মূলধারার গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে।

আরো পড়ুনঃ বিটিএস সদস্যদের আর্জেন্টিনার জার্সি পরিহিত এই ছবিগুলো এডিটেড

তবে এবারই প্রথম নয়, বিটিএস ব্যান্ড এর আগেও ২০১৯ ও ২০২১ সালের ডিসেম্বরে সংক্ষিপ্ত বিরতিতে গিয়েছিল বলে ব্রিটিশ গণমাধ্যম দ্যা গার্ডিয়ান এর একটি প্রতিবেদন থেকে জানা যায়। 

দ্যা গার্ডিয়ানে ১৫ জুন “BTS to take a break as K-pop band members announce ‘hiatus’ to pursue solo work” শীর্ষক শিরোনামে একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়। 

প্রতিবেদনটিতে বিটিএসকে উদ্ধৃত করে গণমাধ্যমটি জানায়, বিটিএস এর আগেও ২০১৯ ও ২০২১ সালের ডিসেম্বরে সংক্ষিপ্ত বিরতিতে গিয়েছিল। 

এছাড়া বিটিএসের টুইটার একাউন্টেও তাদের ব্যান্ড ভাঙন নিয়ে কোনো পোস্ট দেখা যায়নি৷ 

উল্লেখ্য, বিটিএস দক্ষিণ কোরিয়ার একটি জনপ্রিয় কে-পপ ব্যান্ড। বিটিএস এর পূর্ণরুপ Bangtan Boys (ব্যাংটন বয়েজ) অথবা Bangtan Sonyandan (ব্যাংটন সোনিয়ান্দন)।

সুতরাং, বিটিএস ব্যান্ড ভেঙে গেছে দাবিতে গণমাধ্যমে প্রচারিত সংবাদটি সম্পূর্ণ মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

Youtube-BTS: BTS

AP news.com: K-pop supergroup BTS says it’s making time for solo projects

Bustle.com: Did BTS Break Up? Members Explain Their Hiatus & Promise 
The Guardian: BTS to take a break as K-pop band members announce ‘hiatus’ to pursue solo work

RS Team
RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img