বাইতুল মুকাদ্দাসে হামাস যোদ্ধাদের প্যারাসুট নিয়ে নামার দাবিতে প্রচারিত ভিডিওটি মিশরের  

সম্প্রতি,বায়তুল মোকাদ্দাস রক্ষায় হামাস যোদ্ধাদের প্যারাসুট নিয়ে আকাশ থেকে অবতরণের দাবিতে “আমি বায়তুল্লাহ (১ম ক্বিবলা) রক্ষায় পাঠানো আবাবিল দেখি নাই, কিন্তু বায়তুল মোক্বাদ্দাস (২য় ক্বিবলা) রক্ষায় পাঠানো আবাবিল দেখতে পাচ্ছি। আল্লাহুআকবার” শীর্ষক একটি ভিডিও ইন্টারনেটে প্রচার করা হচ্ছে।

বাইতুল মুকাদ্দাসে

ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু ভিডিও দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)। 

টিকটকে প্রচারিত এমন কিছু ভিডিও দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)। 

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, বাইতুল মুকাদ্দাস রক্ষায় হামাস যোদ্ধাদের আকাশ থেকে প্যারাসুট নিয়ে অবতরণের দাবিতে প্রচারিত ভিডিওটি ফিলিস্তিনের নয়। প্রকৃতপক্ষে মিশরের পুরোনো একটি ভিডিওকে উক্ত দাবিতে ইন্টারনেটে প্রচার করা হচ্ছে। 

দাবিটি নিয়ে অনুসন্ধানের শুরুতে আলোচিত ভিডিওটি পর্যবেক্ষণ করে রিউমর স্ক্যানার টিম। এতে উক্ত ভিডিওটিতে একটি আরবি বাক্যের উল্লেখ পাওয়া যায়। আরবি বাক্যটির অনুবাদ করে সেখানে মিশরের নাম দেখতে পাওয়া যায়। এ থেকে সন্দেহ জাগে, এটি মিশরের কোনো ভিডিও হতে পারে। 

পরবর্তীতে ভিডিওটিতে থাকা আরবি এই বাক্যটির সূত্র ধরে অনুসন্ধানে গত ২৩ সেপ্টেম্বর মাউদ হাসান নামে একজন মিশরীয় নাগরিকের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে একই ভিডিও খুঁজে পাওয়া যায়। 

উক্ত ভিডিওটি পর্যবেক্ষণ করে ভিডিওটিতে দেখা যাওয়া পতাকার সাথে ফিলিস্তিনের পতাকার কোনো মিল খুঁজে পাওয়া যায়নি। এছাড়া ভিডিওটিতে তিনি ‘النسور البشرية في مصر’ শীর্ষক একটি শিরোনাম যুক্ত করেন। যার বাংলা অনুবাদ দাঁড়ায়, মিশরে মানব শকুন।

Image Collage: Rumor Scanner

পাশাপাশি এই ভিডিওটিতে olaalkasem একটি টিকটক অ্যাকাউন্টের নাম দেখতে পাওয়া যায়। উক্ত নামের সূত্র ধরে অনুসন্ধানে গত ২০ সেপ্টেম্বর টিকটকেও একই শিরোনামে এই ভিডিও খুঁজে পাওয়া যায়। 

Screenshot: ola alkasem Tiktok

অর্থাৎ ভিডিওটি গত সেপ্টেম্বর থেকেই ইন্টারনেটে বিদ্যমান। অপরদিকে চলমান ইসরায়েল-ফিলিস্তিন সংঘাত শুরু হয় গত ৭ অক্টোবর থেকে।

উপরিউক্ত বিষয়গুলো পর্যবেক্ষণ করার মাধ্যমে বিষয়টি স্পষ্ট যে, আলোচিত দাবিতে প্রচারিত ভিডিওটি ফিলিস্তিনের কোনো ভিডিও নয় এবং চলমান সংঘাতেরও নয়।

মূলত, গত ৭ অক্টোবর ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকা থেকে ইসরায়েলে আকস্মিক এবং নজিরবিহীন মিসাইল হামলা চালায় হামাস। এরপর ইসরায়েল সীমানা অতিক্রম করে দেশটিতে প্রবেশ করে হামাস যোদ্ধারা। এরই পরিপ্রেক্ষিতে সম্প্রতি বায়তুল মুকাদ্দাস রক্ষায় হামাস যোদ্ধাদের প্যারাসুট দিয়ে আকাশ থেকে অবতরণের দাবিতে একটি ভিডিও ইন্টারনেটে প্রচার করা হয়। তবে রিউমর স্ক্যানার অনুসন্ধানে দেখা যায়, উক্ত ভিডিওটির সাথে হামাস কিংবা ফিলিস্তিনের কোনো সম্পর্ক নেই। প্রকৃতপক্ষে মিশরের পুরোনো একটি ভিডিওকে আলোচিত দাবিতে প্রচার করা হচ্ছে।  

উল্লেখ্য, পূর্বেও হামাস যোদ্ধাদের প্যারাসুটের মাধ্যমে ইসরাইলে অবতরণের ভিডিও দাবিতে মিশরের পুরোনো ভিডিও প্রচার করা হলে সেটি মিথ্যা প্রমাণ করে ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদন প্রকাশ করে রিউমর স্ক্যানার। 

সুতরাং, মিশরের পুরোনো একটি ভিডিওকে বায়তুল মুকাদ্দাস  রক্ষায় হামাস যোদ্ধাদের প্যারাসুট নিয়ে আকাশ থেকে অবতরণের দৃশ্য দাবিতে প্রচার করা হচ্ছে; যা সম্পূর্ণ মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img