মঙ্গলবার, জুলাই 23, 2024
spot_img

যুক্তরাষ্ট্র ইসরায়েলকে সমর্থন করলে রাশিয়া ইরানকে সমর্থন করবে পুতিন এমন ঘোষণা দেননি

গত ১ এপ্রিল সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কে অবস্থিত ইরানি কনস্যুলেটে ইসরায়েলি হামলার জবাবে গত ১৩ এপ্রিল ইসরায়েলে সরাসরি হামলা চালিয়েছে ইরান। ইরান হামলা চালানোর পর একেক দেশ একেক রকম বিবৃতি দিয়েছে। দেশ দুটির এমন সংঘাতের মধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দাবি করা হয়েছে ‘রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ঘোষণা করেছেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ইসরায়েলকে সমর্থন করলে রাশিয়া ইরানকে সমর্থন করবে।’

যুক্তরাষ্ট্র

ফেসবুকে প্রচারিত দাবিটি দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ)।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, যুক্তরাষ্ট্র ইসরায়েলকে সমর্থন করলে রাশিয়া ইরানকে সমর্থন করবে শীর্ষক কোনো ঘোষণা দেননি পুতিন বরং, কোনো নির্ভরযোগ্য তথ্য-প্রমাণ ছাড়াই সামাজিক মাধ্যমে এমন তথ্য ছড়ানো হয়েছে।

এই বিষয়ে অনুসন্ধানের শুরুতেই বিভিন্ন কি-ওয়ার্ড সার্চ করেও পুতিনের এমন ঘোষণার বিষয়ে গণমাধ্যমে সংবাদ বা তথ্য পাওয়া যায়নি। এমন ঘোষণা দিলে স্বাভাবিকভাবেই তা নিয়ে খবর প্রকাশিত হতো। কিন্তু এমন কিছু না ঘটায় আমরা বিষয়টি নিয়ে আরও খোঁজখবর করার চেষ্টা করি। 

অনুসন্ধানে রাশিয়ার সংবাদমাধ্যম ‘The Moscow Times এ গত ১৪ এপ্রিল Russia Urges ‘Restraint’ After Iranian Attack on Israel’ শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন পাওয়া যায়। 

প্রতিবেদনটিতে উল্লেখ করা হয়, ইসরায়েলে ইরান নজিরবিহীন ক্ষেপণাস্ত্র ও ড্রোন হামলা চালানোর পর সব পক্ষকে ‘সংযম প্রদর্শনের’ আহ্বান জানিয়েছে রাশিয়া। রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে বলেছে, তারা ‘রাজনৈতিক ও কূটনৈতিক উপায়ে বিদ্যমান সমস্যাগুলো সমাধানের জন্য আঞ্চলিক দেশগুলোর ওপর নির্ভর করছে। মস্কো ‘এই অঞ্চলে এমন বিপজ্জনক উত্তেজনা বৃদ্ধিতে চরম উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।

এতে বলা হয়, তারা বহুবার সতর্ক করে বলেছে, ‘মধ্যপ্রাচ্যে, বিশেষ করে ফিলিস্তিন-ইসরায়েল সংঘাতময় অঞ্চলে চলমান সংকটের সমাধান না হলে তা অস্থিতিশীলতা বাড়িয়ে তুলবে।

অনুসন্ধানে কাতারের সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার ওয়েবসাইটে গত ১৬ এপ্রিল Russia’s Putin urges restraint in call with Iran’s Raisi as tensions soar শিরোনামে প্রকশিত একটি প্রতিবেদন পাওয়া যায়। 

প্রতিবেদনটিতে উল্লেখ করা হয়, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ইরানের নজিরবিহীন ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলার প্রতিক্রিয়া জানিয়ে সংযত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন। মঙ্গলবার ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসির সঙ্গে এক ফোনালাপে পুতিন এ মন্তব্য করেন।

আরও উল্লেখ করা হয়, গত ১ এপ্রিল সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কে ইরানি কনস্যুলেটে ইসরায়েলি হামলার পর ক্রেমলিন ‘ইরানের প্রতিশোধমূলক পদক্ষেপ’ নিয়ে আলোচনা করেন।

ক্রেমলিন জানিয়েছে, পুতিন সব পক্ষকে এমন পদক্ষেপ থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন যা একটি নতুন সংঘাতের সূত্রপাত করতে পারে যা মধ্যপ্রাচ্যের জন্য বিপর্যয়কর পরিণতি ডেকে আনবে।

ইরানের হামলা নিয়ে প্রথম প্রকাশ্যে প্রচারিত মন্তব্যে পুতিন বলেন, মধ্যপ্রাচ্যের বর্তমান অস্থিতিশীলতার মূল কারণ ইসরায়েল-ফিলিস্তিন সংঘাত অব্যাহত রাখা।

ক্রেমলিন জানিয়েছে, “ভ্লাদিমির পুতিন আশা প্রকাশ করেছেন সব পক্ষই যুক্তিসঙ্গত সংযম প্রদর্শন করবে এবং পুরো অঞ্চলের জন্য বিপর্যয়কর পরিণতির পরিণতির নতুন দফা রোধ করবে।”

এই বিষয়ে আরও অনুসন্ধানে The Ministry of Foreign Affairs of the Russian Federation ওয়েবসাইটে গত ১৪ এপ্রিল Foreign Ministry statement in connection with the attack on Israeli territory শিরোনামে প্রকাশিত একটি বিবৃতি পাওয়া যায়। 

বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়, ‘আমরা এই অঞ্চলে আরও একটি বিপজ্জনক পরিস্থিতিতে আমাদের চরম উদ্বেগ প্রকাশ করছি। আমরা বারবার সতর্ক করে দিয়েছি যে, মধ্যপ্রাচ্যে অসংখ্য অমীমাংসিত সংকট, প্রাথমিকভাবে ফিলিস্তিন-ইসরায়েল সংঘাতের ক্ষেত্রে, যা প্রায়শই দায়িত্বজ্ঞানহীন উস্কানিমূলক কর্মকাণ্ডের দ্বারা চালিত হয়, উত্তেজনা বাড়িয়ে তুলবে। আমরা সংঘাতে জড়িত সব পক্ষকে সংযম প্রদর্শনের আহ্বান জানাচ্ছি। আমরা আশা করি, আঞ্চলিক রাষ্ট্রগুলো রাজনৈতিক ও কূটনৈতিক উপায়ে বিদ্যমান সমস্যার সমাধান করবে।

অর্থাৎ, আলোচিত দাবি সংক্রান্ত কোনো তথ্য এর সাথে সম্পর্কিত কোনো ঘটনাপ্রবাহে উল্লেখ পাওয়া যায়নি। 

মূলত, সিরিয়ার ইরানি কনস্যুলেটে ইসরায়েলি হামলার জবাবে গত ১৩ এপ্রিল ইরান নিজেদের ভূখন্ড থেকে ইসরায়েলে হামলা চালায়। দেশ দুটির সংঘাতের মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্র ইসরায়েলকে সমর্থন করলে রাশিয়া ইরানকে সমর্থন করবে বলে ঘোষনা দিয়েছেন ভ্লাদিমির পুতিন শীর্ষক একটি দাবি সামজিক মাধ্যমে প্রচার করা হয়েছে। তবে রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, ভ্লাদিমির পুতিন এমন কোনো ঘোষণা দেননি। কোনো রকম তথ্য-প্রমাণ ছাড়াই আলোচিত দাবিটি প্রচার করা হয়েছে। 

সুতরাং, ইরান-ইসরায়েল ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্র ইসরায়েলকে সমর্থন করলে রাশিয়া ইরানকে সমর্থন করবে এমন ঘোষণা ভ্লাদিমির পুতিন শীর্ষক দাবিটি ভিত্তিহীন। 

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img