যৌতুক চাওয়ায় বর ও বরের বাবাকে রশি দিয়ে বেঁধে রাখার ভাইরাল ভিডিওটি স্ক্রিপ্টেড

সম্প্রতি “বিয়েতে যৌতুক চাওয়ায় বরের বাবাকে রশি দিয়ে বেঁধে রেখেছে বউ এর পরিবার” শীর্ষক দাবিতে একটি ভিডিও এবং ভিডিওটির কিছু স্থিরচিত্র ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়েছে।

ভিডিওতে দেখা যায়, বিয়ের কাবিনের সময় যৌতুক হিসেবে গাড়ি চাওয়ায় বর এবং বরের বাবাকে দড়ি দিয়ে বেঁধে রেখেছে পাত্রীপক্ষ। 

যৌতুক চাওয়ায়

উক্ত বিষয়ে ফেসবুকে প্রচারিত কিছু পোস্ট দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)।

মূলধারার গণমাধ্যম দৈনিক ইত্তেফাকের ফেসবুক পেজে উক্ত ভিডিওটি প্রচার করা হয়েছে। ইত্তেফাকের ফেসবুক পেজে প্রচারিত ভিডিওটি এই প্রতিবেদন প্রকাশ অবধি ৮ লক্ষ ৫০ হাজার বার দেখা হয়েছে। ভিডিওটিতে প্রায় ২০ হাজার পৃথক অ্যাকাউন্ট থেকে প্রতিক্রিয়া জানানো হয়েছে, শেয়ার করা হয়েছে প্রায় ২ হাজার ২শত বার এবং মন্তব্য করা হয়েছে প্রায় ১ হাজার ৬শ টি।

এ বিষয়ে ফেসবুকে ভাইরাল (আর্কাইভ) একটি ভিডিও প্রায় ১০ লক্ষ বার দেখা হয়েছে। ভিডিওটিতে এখন পর্যন্ত প্রায় ১৪ হাজার ভিন্ন অ্যাকাউন্ট থেকে প্রতিক্রিয়া জানানো হয়েছে, শেয়ার করা হয়েছে ৬ হাজার ১শত বার এবং ভিডিওটিতে প্রায় ১ হাজার ২ শত টি মন্তব্য করা হয়েছে।

জনপ্রিয় অভিনেত্রী মেহজাবিন চৌধুরীর ফেসবুক পেজেও উক্ত ভিডিওটি শেয়ার করা হয়েছে, যা এখন পর্যন্ত ১০ লাখ বার দেখা হয়েছে। ভাইরাল এই পোস্টে প্রায় ৩৭ হাজার ভিন্ন অ্যাকাউন্ট থেকে প্রতিক্রিয়া জানানো হয়েছে, শেয়ার করা হয়েছে প্রায় ১ হাজার ৬ শত বার। ভিডিওটিতে ১ হাজার ৩ শত এর বেশি মন্তব্য করা হয়েছে।

টিকটকে একই দাবিতে প্রচারিত ভিডিও দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)।

ইউটিউবে একই দাবিতে প্রচারিত ভিডিও দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)। 

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, যৌতুক চাওয়ার কারণে বর এবং তার বাবাকে পাত্রীপক্ষের রশি দিয়ে বাঁধার ভাইরাল ভিডিওটি বাস্তব কোনো ঘটনার নয় বরং বিনোদনের উদ্দেশ্যে তৈরি উক্ত ভিডিওটি বাস্তব দাবিতে ইন্টারনেটে প্রচার করা হচ্ছে।

ভাইরাল ভিডিওটি পর্যবেক্ষণের পর প্রাসঙ্গিক কি-ওয়ার্ড সার্চের মাধ্যমে, গত ১২ এপ্রিল ‘Sk Sagor’ নামের একটি ফেসবুক পেজে ৩ মিনিট ৩৯ সেকেন্ডের মূল ভিডিওটি (আর্কাইভ) খুঁজে পাওয়া যায়। ফেসবুকে ভাইরাল আলোচ্য ভিডিওটি এই ভিডিওরই খণ্ডিত অংশ। 

Screenshot: Facebook.

একই পেজে গতকাল ১৭ এপ্রিল যৌতুক প্রথা বিষয়ে আলোচ্য ভিডিওর মতো একই ধরণের ভিন্ন একটি ভিডিও (আর্কাইভ) প্রচার হতে দেখা ভাইরাল ভিডিওতে বর ও বরের বাবার ভূমিকায় থাকা ব্যক্তিরা এই ভিডিওতেও একই ভূমিকায় দেখা যায়।

পরবর্তীতে এসকে সাগর নামের ফেসবুক পেজটি (আর্কাইভ) পর্যবেক্ষণ করে রিউমর স্ক্যানার টিম। পেজের বায়োতে লেখা রয়েছে, “এখন থেকে অনেক মজার মজার ফানি ভিডিও দেয়া হবে সবাই আমাদের ভিডিও গুলো দেখবেন আশা করি অনেক আনন্দ পাবেন।” এই বিবরণ থেকে বোঝা যায় পেজটিতে প্রচারিত উক্ত ভিডিওগুলো মূলত বিনোদনের উদ্দেশ্যে তৈরি করা হয়েছে।

Screenshot: Facebook. 

এরপর এই পেজে প্রচারিত অন্যান্য ভিডিওগুলোও পর্যবেক্ষণ করি আমরা। ভাইরাল ভিডিওতে বরের বাবার ভূমিকায় অভিনয় করা ব্যক্তিকে গত ১৭ মার্চ একই পেজে প্রচারিত বাইক চুরি সম্পর্কিত ভিন্ন একটি ভিডিওতে বাইকের মালিকের চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা যায়।

Comparison: Rumor Scanner. 

একই ব্যক্তিকে গত ১৮ মার্চ পেজটিতে প্রচারিত ছাগল চুরি সম্পর্কিত একটি ভিডিওতে ছাগলের মালিকের চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা যায়। 

Comparison: Rumor Scanner. 

ভাইরাল ভিডিওটিতে পাত্রীপক্ষের চরিত্রে অভিনয় করা এক ব্যক্তিকেও এই ভিডিওতে ছাগল চোরের চরিত্রে দেখা যায়। 

Comparison: Rumor Scanner. 

অর্থাৎ, যৌতুক সম্পর্কিত ভাইরাল ভিডিওটি বাস্তব কোনো ঘটনার নয়।

মূলত, গত ১২ এপ্রিল ‘Sk Sagor’ নামের একটি ফেসবুক পেজে বিয়ের দিন যৌতুক চাওয়ায় বর ও বরের বাবাকে রশি দিয়ে বেঁধে রাখার একটি স্ক্রিপ্টেড ভিডিও কনটেন্ট প্রচার করা হয়। তবে ভিডিওতে কোনো ডিসক্লেইমার না থাকায়, নেটিজেনরা ভিডিওটিকে বাস্তব ঘটনা ভেবে বিভ্রান্ত হন। পরবর্তীতে, ভিডিওটি বাস্তব ঘটনা দাবি করে ইন্টারনেটে ভাইরাল হয় এবং একটি মূলধারার গণমাধ্যমের ফেসবুক পেজেও ভিডিওটিকে বাস্তব ঘটনার বলে প্রচার করা হয়।

সুতরাং, বিয়েতে যৌতুক চাওয়ায় বর ও বরের রশি দিয়ে বেঁধে রাখা সংক্রান্ত একটি স্ক্রিপ্টেড ভিডিও বাস্তব ঘটনা দাবিতে ইন্টারনেটে প্রচার করা হয়েছে; যা সম্পূর্ণ মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

  • Facebook Page: Sk Sagor 
  • Rumor Scanner’s Own Analysis. 
RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img