আদালত থেকে পলাতক মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত দুই জঙ্গিকে ক্রসফায়ার দাবিতে পুরোনো ভিডিও প্রচার

সম্প্রতি, “জেল পলাতক দুই জঙ্গি আসামি ক্রসফায়ার!” শীর্ষক শিরোনামে একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ও ইউটিউবে ছড়িয়ে পড়েছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়া এমন কিছু ভিডিও পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এখানে।পোস্ট গুলোর আর্কাইভ ভার্সন দেখুন এখানে, এখানে, এখনে, এখানে এখানে

 ইউটিউবে ছড়িয়ে পড়া এমন কিছু ভিডিও পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে এখানে।
পোস্ট গুলোর আর্কাইভ ভার্সন দেখুন এখনে, এখানে এখানে।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানারের অনুসন্ধানে দেখা যায়, আদালত থেকে পলাতক মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত দুই জঙ্গি আসামি ক্রসফায়ার দাবিতে প্রচারিত ভিডিওটি বর্তমান সময়ের নয় বরং এটি ৪ বছর পূর্বে রাজধানীর ভাষানটেক এলাকায় র‍্যাবের সঙ্গে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ তিন মাদক বিক্রেতা নিহত  হওয়ার ঘটনায় ধারণকৃত ভিডিও।

ভিডিওটির কিছু স্থিরচিত্র রিভার্স সার্চের মাধ্যমে দেশীয় মূল্ধারার গণমাধ্যম “চ্যানেল আই” এর ইউটিউব চ্যানেলে ২০১৮ সালের ৩০ মে তারিখে “রাজধানীর ভাষানটেকে সশস্ত্র মাদক ব্যবসায়ীদের সঙ্গে র‌্যাবের বন্দুকযুদ্ধ” শিরোনামে প্রকাশিত ভিডিওর সাথে আলোচিত ভিডিওর কিছু অংশের হুবুহু মিল খুঁজে পাওয়া যায়।

চ্যানেল আই-এর প্রতিবেদন থেকে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে প্রাসঙ্গিক কি-ওয়ার্ড সার্চের মাধ্যমে Sadman Sami (আর্কাইভ) নামের একটি ফেসবুক আইডি থেকে ২ জুন ২০১৮ তারিখে “র‍্যাবের ক্রসফায়ারের আসল চিত্র। র‍্যাব পরিবেষ্টিত ভাষানটেক এলাকা,  ৪টি গুলির শব্দ একই অস্র থেকে,  আর আমার ভুল না হলে সেটা এক কে ৪৭। গুলির শব্দ শেষে কয়েকজন হেটে আসে হাতে পানির বোতল,  তাদের চেহেরায় বলে দিচ্ছে তারা কি করে এসেছে। এভাবেই জনি বাপ্পি জিসানদের হত্যা করেছে ওরা।” শীর্ষক ক্যাপশনে প্রকাশিত একটি ভিডিও পোস্ট খুঁজে পাওয়া যায়। উক্ত ভিডিওটির সাথে সাম্প্রতিক আলোচিত ভিডিওটির হুবুহু মিল পাওয়া যায়। 

এছাড়া, কি-ওয়ার্ড সার্চের মাধ্যমে ২০১৮ সালে নভেম্বর মাসে রাজধানীর ভাষানটেকে র‍্যাবের সাথে কথিত বন্দুকযুদ্ধে ৩ মাদক কারবারির নিহতের বিষয় নিয়ে দেশীয় মূলধারার গণমাধ্যম আরটিভি, যমুনা টিভি ও বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত সংবাদ খুঁজে পাওয়া যায়। 

সংবাদবিবরণী থেকে জানা যায়, “রাজধানীর ভাষানটেক দেওয়ানপাড়া লোহার ব্রিজ এলাকায় র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’তিন মাদক বিক্রেতা নিহত হয়েছেন। র‌্যাব-৪ এর অধিনায়ক চৌধুরী মঞ্জুর কবির জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রাতে লোহার ব্রিজ এলাকার একটি বাড়িতে অভিযান চালানো হয়। টের পেয়ে মাদক বিক্রেতারা র‌্যাবকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। আত্মরক্ষার্থে র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। একপর্যায়ে গুলিবিদ্ধ হয়ে তিন মাদক বিক্রেতা নিহত হন।”

মূলত, ২০১৮ সালের মে মাসে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী ঘোষণা দিয়ে দেশব্যাপী মাদকবিরোধী অভিযানে নামে । সেই অভিযানের অংশ হিসেবে ঐ বছরের ৩০ মে রাতে ভাষানটেকের দেওয়ানপাড়া লোহার ব্রিজ এলাকায় মাদকবিরোধী অভিযান পরিচালনা করে র‍্যাব। উক্ত অভিযান চলাকালে র‍্যাবের সঙ্গে কথিত বন্ধুক যুদ্ধে তিন মাদক কারবারি নিহত হয়। ঐ অভিযান চলাকালে ধারণকৃত একটি ভিডিওকেই সাম্প্রতিক সময়ে আদালত থেকে পলাতক মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত দুই জঙ্গিকে ক্রসফায়ারের ঘটনার ভিডিও দাবিতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে প্রচার করা হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, গত ২০ নভেম্বর ঢাকা চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের হাজতখানায় নিয়ে যাওয়ার সময় আদালতের ফটকের সামনে থেকে দুই পুলিশ সদস্যের চোখে স্প্রে করে পালিয়ে যায় জাগৃতি প্রকাশনীর প্রকাশক ফয়সল আরেফিন দীপন এবং লেখক ও ব্লগার অভিজিৎ রায় হত্যায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত দুই জঙ্গি। পরবর্তীতে, পলাতক দুই আসামিকে গ্রেপ্তারে রেড অ্যালার্ট জারির পাশাপাশি তাদের ধরিয়ে দিতে ১০ লাখ টাকা পুরুষ্কার ঘোষণা করে বাংলাদেশ পুলিশ। আসামি পলাতকের ঘটনায় দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগে ৫ পুলিশ সদস্যকে সাময়িক বহিষ্কারের কথা জানায় ঢাকা মহানগর পুলিশের অপরাধ তথ্য ও প্রসিকিউশন বিভাগ। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি হতে জানা যায়, আসামি পলায়নের ঘটনা তদন্তে ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে পুলিশ। এবং উক্ত কমিটিকে আগামী ৩ কার্যদিবসের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া, আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী ও গণমাধ্যম থেকে প্রাপ্ত সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, পলাতক দুই জঙ্গি আসামি এখনো লাপাত্তা। তাছাড়া তারা র‍্যাবের সাথে কথিত বন্দুক যুদ্ধে নিহত হয়েছেন এমন কোনো সংবাদ গণমাধ্যমে খুঁজে পাওয়া যায় নি। এবং আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকেও এমন কোনো তথ্য জানানো হয়নি।

উল্লেখ্য, পুরোনো ভিডিওকে নতুন ঘটনার সাথে জুড়ে দিয়ে প্রচার করা গুজবকে শনাক্ত করে পূর্বেও রিউমর স্ক্যানার টিম ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

সুতরাং, ৪ বছর পূর্বে রাজধানীর ভাষানটেকে র‍্যাবের সাথে কথিত বন্দুকযুদ্ধে তিন মাদক কারবারির নিহতের ঘটনায় ধারণকৃত একটি ভিডিওকে সাম্প্রতিক সময়ে আদালত থেকে পলাতক মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত দুই জঙ্গিকে ক্রসফায়ারের ভিডিও দাবিতে ফেসবুক ও ইউটিউবে প্রচার করা হচ্ছে, যা সম্পূর্ণ মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img