বুধবার, আগস্ট 17, 2022
spot_img

ফেরাউনের পাসপোর্টের ছবিটি আসল নয়, এটি একটি আর্টওয়ার্ক

“১৯৭৪ সালে মিশরের রাজা দ্বিতীয় ফেরাউনের নামে এই পাসপোর্টটি ইস্যু করা হয়েছিলো” শীর্ষক শিরোনামে একটি পাসপোর্টের ছবি ইন্টারনেটে প্রচার করা হচ্ছে।

ফেরাউনের পাসপোর্ট

ফেরাউনের পাসপোর্ট

ভাইরাল কিছু ফেসবুক পোস্ট দেখুন এখানেএখানেএখানেএখানে এবং এখানে।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, ফেরাউন বা দ্বিতীয় রামসেস এর পাসপোর্ট দাবিতে প্রচারিত পাসপোর্টটি আসল নয় বরং ছবিটি একজন শিল্পীর তৈরি ডিজিটাল আর্টওয়ার্ক।

আলোচিত পাসপোর্টের ছবিটির বাম পাশে থাকা বারকোডের নিচে HERITAGEDAILY.COM নামের একটি ওয়েবসাইটের নাম লক্ষ্য করা যায় এবং কি-ওয়ার্ড সার্চ পদ্ধতিতে Heritage Daily নামে একটি ওয়েবসাইট খুঁজে পাওয়া যায়। Heritage Daily মূলত একটি প্রত্নতত্ত্ব বা পুরাতত্ত্ব বিষয়ক ওয়েবসাইট।

পরবর্তীতে Heritage Daily ওয়েবসাইটে ২০২০ সালের ২৫ মার্চে “The passport of Ramesses II” শিরোনামে একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায় যেখানে ফেরাউনের দাবিতে প্রচারিত পাসপোর্টটির মত হুবুহু আরেকটা পাসপোর্টের অস্তিত্ব রয়েছে

ফেরাউনের পাসপোর্ট

পাসপোর্টের ছবির নিচে লেখা রয়েছে ‘Image Credit – HeritageDaily – An artist’s creation of the passport – Image is for representative purposes – The actual passport is not publicly available. অর্থাৎ ‘পাসপোর্টটি শুধুমাত্র নমুনাস্বরূপ উদ্দেশ্যে বানানো হয়েছে, প্রকৃত পাসপোর্ট জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত নয়’।

ন্যাশনাল জিওগ্রাফির একটি প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, “ফেরাউনের মমিকে যখন প্যারিসে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল তখন মমির মুখমন্ডল সহ একটি বৈধ মিশরীয় পাসপোর্ট তৈরি করা হয় এবং পাসপোর্টে ফেরাউনের পেশা হিসেবে “রাজা (মৃত)” উল্লেখ করা ছিলো”। 

ফেরাউনের পাসপোর্ট

কিন্তু সেই সময়ে কোন পাসপোর্ট তৈরি করা হয়েছিলো কিনা এই বিষয়টি নিয়ে দ্বিমত রয়েছে। তাই রিউমর স্ক্যানার টিম বিষয়টি আলাদাভাবে যাচাই করে দেখেনি।

তবে সেই সময়ে যদি কোন পাসপোর্ট তৈরি হয়েও থাকে তবুও এ বিষয়টি নিশ্চিত যে সেই পাসপোর্ট এবং বর্তমানে প্রচারিত পাসপোর্টটি এক নয়। কারণ বর্তমানে প্রচারিত পাসপোর্টটি ২০২০ সালে আর্টওয়ার্ক হিসেবে প্রথম প্রকাশিত হয়েছে।

১৯৭৬ সালে দ্যা নিউইয়র্ক টাইমসে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন অনুসারে, ছত্রাক সংক্রমণের সাথে যুক্ত রোগের চিকিৎসার জন্য রামসেসের মমিকে প্যারিসে স্থানান্তর করা হয়েছিলো এবং ফরাসি সামরিক বিমান কায়রো জাদুঘর থেকে রামসেস এর মমি নিয়ে এসে তাকে Garde républicaine বা Republican Guard সম্মান দিয়েছিলো।

ফেরাউনের পাসপোর্ট

উল্লেখ্য, প্রাচীন ইতিহাস এনসাইক্লোপিডিয়া World History অনুসারে ১৯তম রাজবংশের তৃতীয় ফারাও বা দ্বিতীয় রামসেস ৯৬ বছর বেচে ছিলেন।

ফেরাউনের পাসপোর্ট

অর্থাৎ, ডিজিটাল পদ্ধতিতে নির্মিত একটি নমুনাস্বরূপ পাসপোর্টের ছবিকে ফেরাউনের প্রকৃত/আসল পাসপোর্ট দাবিতে ইন্টারনেটে প্রচার করা হচ্ছে যা সম্পূর্ণ মিথ্যা এবং বিভ্রান্তিকর।

[su_box title=”True or False” box_color=”#f30404″ radius=”0″]

  • Claim Review: ১৯৭৪ সালে মিশরের রাজা দ্বিতীয় ফেরাউনের নামে এই পাসপোর্টটি ইস্যু করা হয়েছিলো
  • Claimed By: Facebook Posts
  • Fact Check: False

[/su_box]

তথ্যসূত্রঃ-

  1. Heritage Daily: The Passport of Ramesses II / Archive
  2. National Geographic: Mummy mugshots and other strange passport facts / Archive 
  3. Ancient History Encyclopedia: Ramesses II / Archive
  4. The New York Times: Paris Mounts Honor Guard For a Mummy / Archive 
RS Team
RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img