রবিবার, জুলাই 21, 2024
spot_img

ছবিটি মাউন্ট এভারেস্টের বরফের মধ্যে পড়ে থাকা মৃতদেহের নয়

সম্প্রতি, মাউন্ট এভারেস্টের “জোন অব ডেথ”- এ পড়ে থাকা মৃতদেহের ছবি দাবিতে একটি ছবি ইন্টারনেটে প্রচার করা হয়েছে।

মাউন্ট

ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে(আর্কাইভ), এখানে(আর্কাইভ), এখানে(আর্কাইভ), এখানে(আর্কাইভ), এখানে(আর্কাইভ)।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, ভাইরাল ছবিটি মাউন্ট এভারেস্টে তোলা নয় এমনকি ছবিটি বরফের মধ্যে পড়ে থাকা মৃতদেহেরও নয় বরং স্পেন-ফ্রান্স সীমান্তের নিকটবর্তী পিরিনিজ পর্বতমালার ভিগনেমাল পর্বতে আরোহণকালে বৈরী আবহাওয়ার বিশ্রাম নেয়ার জন্য বরফের মধ্যে ডুভে আবৃত অবস্থায় পর্বতারোহী অভিযাত্রীদের ছবিটি তোলা হয়।

রিভার্স ইমেজ সার্চের মাধ্যমে itshimalayas নামের একটি ইন্সটাগ্রাম অ্যাকাউন্টে ২০২২ সালের ৩০ নভেম্বরের একটি পোস্টে আলোচিত ছবিটি খুঁজে পাওয়া যায়। উক্ত পোস্টে লোকেশন হিসেবে “Le Vignemale 3298 M” উল্লেখ করা হয়।

Screenshot source: Instagram

পরবর্তীতে, লোকেশনের সূত্র ধরে কি ওয়ার্ড সার্চের মাধ্যমে জানা যায়, ৩২৯৮ মিটার উচ্চতার লা ভিগনেমাল ফ্রান্স-স্পেন সীমান্তের নিকটবর্তী পিরিনিজ পর্বতমালার একটি পর্বত।

এছাড়াও, উক্ত ইন্সটাগ্রাম পোস্টের ক্যাপশন থেকে জানা যায়, Johan Maze নামের একজন ফটোগ্রাফার ভিগনেমাল পর্বতে উক্ত ছবিটি ধারণ করেন। পোস্টের ক্যাপশনে ট্যাগকৃত Johan Maze নামের ইন্সটাগ্রাম অ্যাকাউন্টের বায়ো থেকে জানা যায়, Johan Maze একজন পর্বতারোহী, প্যারাগ্লাইডিং পাইলট এবং ফটোগ্রাফার। 

Screenshot Source: Instagram

পোস্টের ক্যাপশন থেকে আরও জানা যায়, ভিগনেমাল পর্বতারোহণের সময় বৈরি আবহাওয়ার কারণে তারা ডুভের (উষ্ণতার জন্য তৈরি বিশেষ আবরণ) ভেতরে অবস্থান করেন। 

অর্থাৎ, ভাইরাল ছবিটি মাউন্ট এভারেস্ট বরফের মধ্যে পড়ে থাকা থাকা  মৃতদেহের নয়।

মূলত, ২০২২ সালে ফ্রান্স-স্পেন সীমান্তের নিকটবর্তী পিরিনিজ পর্বতমালার লা ভিগনেমাল পর্বতে ফটোগ্রাফার জোহান মেইজ বৈরি আবহাওয়ার কারণে বরফের মধ্যে ডুভে আবৃত পর্বতারোহী অভিযাত্রীদের একটি ছবি তোলেন। সেই ছবিকেই সম্প্রতি এভারেস্টের ‘জোন অব ডেথ’- এ তোলা ছবি দাবিতে ইন্টারনেটে প্রচার করা হয়েছে। 

সুতরাং, পিরিনিজ পর্বতমালার ভিগনেমাল পর্বতে আরোহণকালে পর্বতারোহী অভিযাত্রীদের বরফের মাঝে ডুভে আবৃত হয়ে তোলা ছবিকে এভারেস্টে বরফের মাঝে পরে থাকা মৃতদেহের ছবি দাবিতে প্রচার করা হচ্ছে; যা সম্পূর্ণ মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img