সেনাপ্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদকে গুলি করে হত্যার গুজব

গত ০৩ মে “Dhaka News 24” নামক একটি ইউটিউব চ্যানেলে “জুম্মার পরেই সেনাপ্রধানকে গুলিকরে হত্যা, জীবন বাঁচাতে পরলো না আ-লীগের বড় নেতারাও” শীর্ষক থাম্বনেইলে একটি ভিডিও প্রচার করা হয়েছে। 

দাবি করা হচ্ছে, গতকাল (০৩ মে) জুম্মার নামাজের পর সেনাপ্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। 

ইউটিউবে প্রচারিত ভিডিও দেখুন এখানে (আর্কাইভ)।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, সেনাপ্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদকে গুলি করে হত্যার দাবিটি মিথ্যা বরং কোনো তথ্য প্রমাণ ছাড়া চটকদার থাম্বনেইলে আলোচিত ভিডিওটি তৈরি করা হয়েছে। 

অনুসন্ধানের শুরুতে আলোচিত ভিডিওটি পর্যবেক্ষণ করে দেখা যায়, উপস্থাপক কয়েকটি সংবাদ পাঠ করে শোনাচ্ছেন। তবে ভিডিওটিতে আলোচিত দাবি সংক্রান্ত কোনো তথ্য দেখানো হয়নি।

এছাড়া, প্রাসঙ্গিক কি-ওয়ার্ড সার্চ করেও গণমাধ্যম ও বিশ্বস্ত সূত্রে আলোচিত দাবির সত্যতা পাওয়া যায়নি। 

পরবর্তীতে আলোচিত ভিডিওতে প্রদর্শিত সংবাদ গুলো পড়ে দেখে রিউমর স্ক্যানার টিম। 

শুরুতে “কারামুক্ত মামুনুল হক” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি সংবাদ পাঠ করতে দেখা যায়। 

পরবর্তীতে কি-ওয়ার্ড সার্চ করে কালবেলা এর ওয়েবসাইটে উক্ত সংবাদটি খুঁজে পাওয়া যায়। 

তবে, উক্ত প্রতিবেদনের সাথে আলোচিত দাবির কোনো সম্পৃক্ততা নেই। 

এছাড়া, উপস্থাপককে ‘বিএনপির নেতায় নেতায় মিল নেই, কর্মীরা হতাশ’ শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি সংবাদ পাঠ করতে দেখা যায়। 

প্রাসঙ্গিক কি-ওয়ার্ড সার্চ করে যুগান্তর এর ওয়েবসাইটে উক্ত প্রতিবেদনটি পাওয়া যায়। 

উক্ত প্রতিবেদনের সাথেও আলোচিত দাবির সাথে কোনো যোগসূত্র নেই৷ 

এরপর “সরকারকে যারা চাপে রাখতে চেয়েছিল তারা নিজেরাই চাপে আছে” শীর্ষক শিরোনামে একটি প্রতিবেদন পাঠ করতে দেখা যায়। 

কি-ওয়ার্ড সার্চ করে দেশ টিভি এর ওয়েবসাইটে ০৩ মে একই শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন পাওয়া যায়। 

উক্ত প্রতিবেদনটি থেকে জানা যায়, ০৩ মে সকালে আওয়ামী লীগের সভাপতির ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বিরোধী দল বিএনপিকে সমালোচনা করা এসব কথা বলেন৷ 

অর্থাৎ, এই প্রতিবেদনের সাথেও আলোচিত দাবির কোনো সম্পৃক্ততা নেই। 

তারপর “বদির বিরুদ্ধে চেয়ারম্যান প্রার্থীর জমায়েতে ফাঁকা গুলি ছোড়ার অভিযোগ” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন পাঠ করতে দেখা যায়। 

কি-ওয়ার্ড সার্চ করে দেশ টিভি এর ওয়েবসাইটে ০৩ মে একই শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন পাওয়া যায়। 

এই প্রতিবেদনের বিষয়বস্তুর সাথেও আলোচিত দাবির কোনো সম্পৃক্ততা নেই। 

পরিশেষে উপস্থাপককে “সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল এ জে মোহাম্মদ আলীর ইন্তেকাল” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন পাঠ করতে দেখা যায়। 

কি-ওয়ার্ড সার্চ করে ০৩ মে দেশ টিভি এর ওয়েবসাইট উক্ত শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন পাওয়া যায়। 

উক্ত প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, গত ০২ মে সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সভাপতি, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি, জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলী ইন্তেকাল করেছেন। সেই প্রেক্ষিতে করা প্রতিবেদন এটি। যা আলোচিত দাবির সাথে কোনো মিল নেই। 

অর্থাৎ, আলোচিত ভিডিওটিতে উপস্থাপকের পাঠ করা পাঁচটি প্রতিবেদনের কোনোটির সাথেই আলোচিত দাবির কোনো সম্পৃক্ততা নেই। 

মূলত, সম্প্রতি Dhaka News 24 নামক একটি ইউটিউব চ্যানেলে “জুম্মার পরেই সেনাপ্রধানকে গুলিকরে হত্যা, জীবন বাঁচাতে পরলো না আ-লীগের বড় নেতারাও” শীর্ষক থাম্বনেইলে একটি ভিডিও প্রচার করা হয়। ভিডিওটিতে দাবি করা হয়েছে, গতকাল (০৩ মে) জুম্মার নামাজের পর সেনাপ্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। তবে রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, সেনাপ্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদকে গুলি করে হত্যার দাবিটি মিথ্যা। প্রকৃতপক্ষে, ভিন্ন কয়েকটি সংবাদের সাথে চটকদার থাম্বনেইলে আলোচিত দাবিটি প্রচার করা হয়েছে। 

সুতরাং, সেনাপ্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদকে গুলি করে হত্যার দাবিটি সম্পূর্ণ মিথ্যা। 

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img