রবিবার, জুলাই 21, 2024
spot_img

সরকারের পদত্যাগ চেয়ে করা এই মিছিলটি আওয়ামী লীগের ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠন ছাত্রলীগের নয়

সম্প্রতি, ‘সরকারের পদত্যাগ চাই ছাত্রলীগ’ শীর্ষক দাবিতে ‘বাংলাদেশ ছাত্রলীগ’ লেখা ব্যানার সম্বলিত মিছিলের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হয়েছে।

ছাত্রলীগের

পোস্টগুলোর শিরোনামের মাধ্যমে বোঝানো হচ্ছে, এটি বাংলাদেশের আওয়ামী লীগের ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের মিছিল। সে অনুযায়ী পোস্টগুলোর মন্তব্যঘরে নেটিজেনদের প্রতিক্রিয়া জানাতেও দেখা গেছে।

ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)। 

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ব্যানারে সরকারের পদত্যাগ দাবিতে প্রচারিত মিছিলের ভিডিওটি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের নয়। প্রকৃতপক্ষে, এটি আ. স. ম. আব্দুর রবের নেতৃত্বাধীন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জেএসডি) এর ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ (জেএসডি) এর মিছিল।

অনুসন্ধানের শুরুতে প্রাসঙ্গিক কি-ওয়ার্ড সার্চের মাধ্যমে Jonomukti নামের একটি ফেসবুক পেজে গত ১২ অক্টোবর  ‘এবার বাংলাদেশ ছাত্রলীগ সেখ হাসিনা সরকারের প’দ’ত্যা’গ দাবি জেএসডি সংগঠন।’ শীর্ষক শিরোনামে প্রচারিত একটি ভিডিও খুঁজে পাওয়া যায়। 

Video Comparison by Rumor Scanner

আলোচিত ভিডিওতে মিছিলে থাকা  ব্যানার এবং প্রথম সারির ব্যক্তিদের সাথে উক্ত ভিডিওতে থাকা ব্যানার এবং ব্যক্তিদের হুবহু মিল খুঁজে পাওয়া যায়। 

পরবর্তীতে উক্ত ভিডিওর শিরোনামে উল্লিখিত‘জেএসডি সংগঠন’ শীর্ষক শব্দদ্বয়ের সূত্র ধরে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জেএসডি) এর ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ(জেএসডি) এর ফেসবুক পেজ পর্যবেক্ষণ করে রিউমর স্ক্যানার টিম।

উক্ত ফেসবুকে পেজে গত ১৪ অক্টোবর ‘ফ্যাসিবাদবিরোধী ছাত্র ঐক্যের ছাত্র কনভেনশনে বাংলাদেশ বাংলাদেশ ছাত্রলীগ’র অংশগ্রহণ।’ শীর্ষক শিরোনামে উক্ত সংগঠনের সভাপতি তৌফিক উজ জামান পীরাচা-এর শেয়ার করা একটি পোস্ট খুঁজে পাওয়া যায়। 

Screenshot: Facebook

উক্ত পোস্টে ব্যবহৃত ছবিগুলোতে তৌফিক উজ জামানের নেতৃত্বে নেতাকর্মীদের মিছিল করতে দেখা যায়। যার সাথে আলোচিত ভিডিওতে মিছিলের ব্যানার এবং  সামনের সাড়িতে থাকা ব্যক্তিদের হুবহু মিল রয়েছে।

এছাড়াও পেজটিতে গত ১৪ অক্টোবর ‘সার্বজনীন শিক্ষাব্যবস্থা, নিরাপদ ক্যাম্পাস ও ভোটাধিকার পুনঃপ্রতিষ্ঠা সহ ৯ দফা দাবী আদায়ে ফ্যাসিবাদবিরোধী ছাত্রঐক্য কনভেনশনে বক্তব্য রাখছেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ’র কেন্দ্রীয় সংসদের সংগ্রামী  সভাপতি ,তৌফিক উজ জামান পীরাচা ভাই।’  শীর্ষক শিরোনামে সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হাসান মুক্তার-এর করা একটি ভিডিও পোস্টও খুঁজে পাওয়া যায়। যাতে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ(জেএসডি) এর সভাপতি তৌফিক উজ জামান পীরাচাকে উক্ত অনুষ্ঠানে বক্তব্য দিতে দেখা যায়। 

Screenshot: Facebook

পরবর্তীতে ফ্যাসিবাদবিরোধী ছাত্র ঐক্য কনভেনশনের বিষয়ে অনুসন্ধানে প্রাসঙ্গিক কি-ওয়ার্ড সার্চের মাধ্যমে দৈনিক সমকালের ওয়েবসাইটে গত ১২ অক্টোবর ‘বিএনপির ছাত্র কনভেনশন শুরু’ শীর্ষক শিরোনামে প্রচারিত একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়। 

Screenshot: Samakal

উক্ত প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, সার্বজনীন শিক্ষাব্যবস্থা, নিরাপদ ক্যাম্পাস ও ভোটাধিকার পুনঃপ্রতিষ্ঠার দাবিতে গত ১২ অক্টোবর বৃহস্পতিবার রমনার ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে ‘ফ্যাসিবাদ বিরোধী ছাত্র ঐক্য’র উদ্যোগে বিএনপির ‘ছাত্র কনভেনশন’ অনুষ্ঠিত হয়। 

Screenshot: Samakal

এছাড়াও জানা যায়, ছাত্রদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রাশেদ ইকবাল খানের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েলের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত এই কনভেনশনে সারাদেশে ছাত্রদলের জেলা ও জেলা পদমর্যাদার ১১৭টি সাংগঠনিক ইউনিটের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকেরা ছাত্র কনভেনশনে অংশ নেয়। এছাড়াও ছাত্র কনভেনশন সামনে রেখে গত ২৯ সেপ্টেম্বর ৯ দফার ভিত্তিতে যুগপৎ আন্দোলনের শরিক ১৫টি ছাত্র সংগঠন জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল, ছাত্র ফেডারেশন, ছাত্র অধিকার পরিষদ, ছাত্রলীগ (জেএসডি), গণতান্ত্রিক ছাত্রদল (এলডিপি), নাগরিক ছাত্র ঐক্য, জাগপা ছাত্রলীগ, ছাত্র ফোরাম (গণফোরাম-মন্টু), ভাসানী ছাত্র পরিষদ, জাতীয় ছাত্র সমাজ (কাজী জাফর), জাতীয় ছাত্র সমাজ (বিজেপি-পার্থ), জাগপা ছাত্রলীগ (খন্দকার লুৎফর), ছাত্র জমিয়ত বাংলাদেশ, বিপ্লবী ছাত্র সংহতি এবং রাষ্ট্র সংস্কার ছাত্র আন্দোলনের সমন্বয়ে গঠিত ‘ফ্যাসিবাদবিরোধী ছাত্র ঐক্য’-র সকলেই উক্ত কনভেনশনে অংশগ্রহণ করে। 

অর্থাৎ, আলোচিত দাবিতে প্রচারিত ভিডিওটি মূলত জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জেএসডি) এর ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ (জেএসডি) এর   ‘ফ্যাসিবাদবিরোধী ছাত্র ঐক্য’-র ছাত্র কনভেনশনে অংশগ্রহণকালেমিছিল নিয়ে যাওয়ার সময় ধারণ করা। এর সাথে আওয়ামী লীগের ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কোনো সম্পর্ক নেই।

উল্লেখ্য, ১৯৪৮ সালের ৪ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফজলুল হক হলের অ্যাসেম্বলি হলে পূর্ব পাকিস্তান মুসলিম ছাত্রলীগ নামে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠা করেন। ১৯৫৫ সালে আওয়ামী মুসলিম লীগ মুসলিম শব্দটি বাদ দিয়ে অসাম্প্রদায়িক রাজনৈতিক সংগঠনে পরিণত হলে ছাত্রলীগও মুসলিম শব্দটি বাদ দিয়ে পূর্ব পাকিস্তান ছাত্রলীগ নামে পরিচিত হয়। একাত্তরের স্বাধীনতা যুদ্ধে জয় লাভের পর সংগঠনটি নাম থেকে পূর্ব পাকিস্তান শব্দ বাদ গিয়ে বাংলাদেশ শব্দ যোগ হয়। ১৯৬৯ সালে বাংলাদেশ ছাত্রলীগে প্রথম ভাঙনের সৃষ্টি হয়। তৎকালীন ছাত্রলীগ নেতা ফেরদৌস আহমদ কোরেশী ও আল মোজাহেদী বাংলা ছাত্রলীগ নামে নতুন সংগঠন গঠন করেন। যদিও সেই উদ্যোগ ফলপ্রসূ হয়নি। কিছুদিনের মাঝেই বিলুপ্ত হয়ে যায় সেই সংগঠন। তবে স্বাধীনতা পরবর্তী এক যুগে মত-পথ ও আদর্শের দ্বন্দ্বে জড়িয়ে প্রায় একই নামে বেশ কয়েকটি সংগঠন জন্মলাভ করে। 

সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ বাদে বাকি সংগঠনগুলো সাংগঠনিকভাবে খুব বেশি সক্রিয় নয়। এই সংগঠনটির বাহিরে বর্তমানে আ. স. ম. আব্দুর রবের নেতৃত্বাধীন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জেএসডি) এর ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ (জেএসডি), হাসানুল হক ইনুর নেতৃত্বাধীন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) এর ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ(জাসদ-ইনু), শরীফ নুরুল আম্বিয়ার নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ জাসদের ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ(জাসদ-আম্বিয়া) এবং শফিউল আলম প্রধানের নেতৃত্বাধীন জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টির ছাত্র সংগঠন জাগপা ছাত্রলীগ নামে চারটি সংগঠনের সাংগঠনিক অস্তিত্ব রয়েছে।

মূলত, সরকারের পদত্যাগের একদফা দাবিতে বিএনপির নেতৃত্বে চলমান যুগপৎ আন্দোলনে সহযোগী শক্তি হিসেবে সেপ্টেম্বরে আত্মপ্রকাশ করা ‘ফ্যাসিবাদ বিরোধী ছাত্র ঐক্য’ নামক ছাত্রজোটের উদ্যোগে গত ১২ অক্টোবর রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে এক  ‘ছাত্র কনভেনশন’ অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত কনভেনশনে ফ্যাসিবাদ বিরোধী ছাত্র ঐক্যের জোটে থাকা অন্যান্য ছাত্র সংগঠনের মতো আ. স. ম. আব্দুর রবের নেতৃত্বাধীন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জেএসডি) এর ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ(জেএসডি)ও অংশ নেয়। তবে,  সরকার বিরোধী মিছিলযোগে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ(জেএসডি) এর নেতা-কর্মীদের উক্ত কনভোকেশনে যোগ দেওয়ার সময় ধারণকৃত একটি ভিডিওকে আওয়ামী লীগের ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সরকার বিরোধী মিছিল দাবিতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হয়েছে।

সুতরাং, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ(জেএসডি) এর সরকার বিরোধী মিছিলের ভিডিওকে আওয়ামী লীগের অঙ্গসংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সরকার বিরোধী  মিছিল দাবিতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হয়েছে; যা বিভ্রান্তিকর।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img