আর্থিক প্রতারণার উদ্দেশ্যে ভারতীয় রোগাক্রান্ত শিশু চরন্যাকে বাংলাদেশি শিশু দাবিতে প্রচার

সম্প্রতি,”এই ছোট বাচ্চাটির নাম মরিয়ম। শিশুটি বিরল রোগ ইমিউনোডেফিসিয়েন্সি ডিসঅর্ডার এ আক্রান্ত” শীর্ষক শিরোনামে এক শিশুর কয়েকটি ছবি সংযুক্ত করে একটি মানবিক সাহায্যের আবেদন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে।

ফেসবুকে ভাইরাল এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে । আর্কাইভ ভার্সন দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, মরিয়ম নামে প্রচারিত ছবিগুলো কোনো বাংলাদেশি শিশুর নয় বরং এগুলো চরন্যা নামের ভারতীয় এক শিশুর ছবি।

রিভার্স ইমেজ সার্চ পদ্ধতির মাধ্যমে, “Charanya’s Days Are Numbered. Will You Help Her Stay Alive?” শীর্ষক শিরোনামে ভারতের গণ-অর্থায়ন প্লাটফর্ম ‘impactguru’ এর ওয়েবসাইটে প্রকাশিত মূল ছবিগুলো খুঁজে পাওয়া যায়।

Screenshot from ImpactGuru website

পাশাপাশি, ‘ImpactGuru’ এর অফিশিয়াল ফেসবুক পেজে গত ৩১ মার্চে ও টুইটার একাউন্টে গত ৪ এপ্রিলে শিশুটির জন্য ফান্ডরাইজিং নিয়ে প্রকাশিত পোস্টে একই ছবিগুলো খুঁজে পাওয়া যায়।

এছাড়াও, ‘impactguru’ এর অফিশিয়াল ইউটিউব চ্যানেল থেকে ২০২১ সালের ১৯ নভেম্বরে “I have only 1 month left to save my daughter”- Charanya’s mother” শীর্ষক শিরোনামে গণ-অর্থায়নের জন্য প্রকাশিত একটি ভিডিও খুঁজে পাওয়া যায়।

মূলত, ছবিগুলো চরন্যা নামের ভারতীয় এক শিশুর। ৮ মাস বয়সী চরন্যা লিউকোসাইট অ্যাডেসন ডেফিসিয়েন্সি (LAD – মেডিকেল ফ্যাক্ট- লিউকোসাইট অ্যাডেসন ডেফিসিয়েন্সি (এলএডি) হল একটি ব্যাধি যা ইমিউন সিস্টেমের ত্রুটি ঘটায়, ফলে একধরনের ইমিউনোডেফিসিয়েন্সি হয়। এটি গুরুতর ব্যাকটেরিয়া এবং ছত্রাক সংক্রমণের দিকে পরিচালিত করে) নামক জটিল রোগে আক্রান্ত। বর্তমানে শিশুটি ভারতের বেঙ্গলুরুতে “Aster CMI Hospital” হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে। তার সুস্থতার জন্য দ্রুত অস্থিমজ্জা প্রতিস্থাপন প্রয়োজন। ফান্ডরাইজিং ঐ ওয়েবসাইটের প্রতিবেদন থেকে জানা যায় শিশুটির চিকিৎসার জন্য প্রায় ২৫.৩০ লাখ রুপি প্রয়োজন।

সর্বশেষ, এই প্রতিবেদন প্রকাশের আগ পর্যন্ত শিশুটির জন্য আর্থিক সহায়তা সংগ্রহ চলমান রয়েছে।

এছাড়া, সাম্প্রতিক সময়ে মরিয়ম নামে আর্থিক সাহায্যের জন্য আবেদনকৃত ফেসবুক পোস্টগুলোয় উল্লিখিত ব্যক্তিগত বিকাশ, নগদ ও রকেট নাম্বার যথাক্রমে (01302969957 ও 01302969957) একাধিক বার যোগাযোগ করার চেষ্টা করে তা বন্ধ পাওয়া যায়।

উল্লেখ্য, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বিগত কয়েকমাস যাবত শুধুমাত্র নাম ও ছবি পরিবর্তন করে ভিন্ন ভিন্ন শিরোনামে আর্থিক সহায়তার নামে প্রতারণা মূলক তথ্য প্রচার করা হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, রিউমর স্ক্যানার টিম পূর্বেও বিভিন্ন নাম ব্যবহার করে প্রতারণার উদ্দেশ্যে আর্থিক সাহায্য চেয়ে করা পোস্টগুলোকে শনাক্ত করে একাধিক ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

সুতরাং, আর্থিক সহায়তার নামে প্রতারণার উদ্দেশ্যে এক ভারতীয় রোগাক্রান্ত শিশু চরন্যাকে বাংলাদেশের রোগাক্রান্ত শিশু মরিয়ম দাবি করে সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হচ্ছে; যা সম্পূর্ণ মিথ্যা।

[su_box title=”True or False” box_color=”#f30404″ radius=”0″]

  • Claim Review: এই ছোট বাচ্চাটির নাম মরিয়ম। শিশুটি বিরল রোগ ইমিউনোডেফিসিয়েন্সি ডিসঅর্ডার এ আক্রান্ত
  • Claimed By: Facebook Posts
  • Fact Check: False

[/su_box]

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img