রবিবার, জুন 23, 2024
spot_img

নরেন্দ্র মোদি কি শুধু তিনবার প্রটোকল ভেঙ্গে কোনো সরকার প্রধানকে বিমানবন্দরে অভ্যর্থনা জানিয়েছেন?

সম্প্রতি “ভারতের প্রধানমন্ত্রী বরং প্রটোকল ভেঙ্গে তিন বার বিমানবন্দরে গিয়ে কোনো সরকার প্রধানকে বিমানবন্দরে অভ্যর্থনা জানিয়েছিলেন। এরমধ্যে আছেন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামা, ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু এবং বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা” শীর্ষক দাবিতে একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে। 

ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানেএখানে। পোস্টগুলোর আর্কাইভ দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানেএখানে

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামা, ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু এবং বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছাড়াও বিভিন্ন সময়ে আরও কয়েকবার প্রটোকল ভেঙে এয়ারপোর্টে গিয়ে বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রপ্রধানকে বরণ করেছেন।

কি-ওয়ার্ড অনুসন্ধানের মাধ্যমে ভারতীয় গণমাধ্যম The Free Press Journal এ ২০১৯ সালের ২৯ মে “10 times PM Narendra Modi broke security protocols” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়।

Screenshot from freepressjournal website

এই প্রতিবেদনটি থেকে জানা যায়, ২০১৫ সালে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামা, ২০১৮ সালে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু ছাড়াও এই বছরের ১০ মার্চে ফ্রান্সের রাষ্ট্রপতি ইমানুয়েল মাখোঁ এবং তার স্ত্রী ব্রিগিটে মাখোঁর ভারত সফরের সময় দিল্লি বিমানবন্দরে প্রটোকল ভেঙে তাদের অভ্যর্থনা জানান।

Screenshot from freepressjournal website

একই বছরের ১০ ফেব্রুয়ারি সংযুক্ত আরব আমিরাতের যুবরাজ ও সশস্ত্রবাহিনীর প্রধান শেখ মুহাম্মদ বিন জায়েদ আল নাহয়ানকেও প্রটোকল ভেঙে বিমানবন্দরে গিয়ে অভ্যর্থনা জানান।

Screenshot from freepressjournal website

একই প্রতিবেদন থেকে আরও জানা যায়, মোদি পাকিস্তানের সাথে অস্থির সম্পর্ক পুনরুদ্ধার করার উদ্দেশ্যে প্রোটোকল ভেঙে ২০১৫ সালে পাকিস্তানের বিরোধী দলীয় নেতা নওয়াজ শরীফের পৈতৃক বাসভবনে ভ্রমণ করেছিলেন।

Screenshot from freepressjournal website

ভারতীয় গণমাধ্যম New Indain Express এ ২০১৮ সালের ৯ মার্চ “PM Modi breaks protocol, receives French President Macron at airport” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন থেকেও ফ্রান্সের রাষ্ট্রপতি ইমানুয়েল মাখোঁ এবং তার স্ত্রী ব্রিগিটে মাখোঁর ভারত সফরের সময় দিল্লি বিমানবন্দরে প্রটোকল ভেঙে তাদেরকে অভ্যর্থনা জানান ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

Screenshot from newindianexpress website

পরবর্তীতে ভারতীয় গণমাধ্যম NDTV এর ওয়েবসাইটে ২০১৮ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি “Prime Minister Narendra Modi Breaks Protocol, Receives Jordan King At Airport” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়। 

Screenshot from ndtv website

প্রতিবেদনটি থেকে জানা যায়, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি প্রটোকল ভেঙে জর্ডানের সুলতান আব্দুল্লাহ (২) বিন আল হুসাইনকে বিমানবন্দরে অভ্যর্থনা জানান। 

আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থা রয়টার্সে ২০১৯ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি “India’s Modi breaks protocol to welcome Saudi’s crown prince” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যা

Screenshot from reuters website

এই প্রতিবেদনটি থেকে জানা যায়, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সরকারি প্রটোকল ভেঙে ব্যক্তিগতভাবে সৌদি যুবরাজ মুহাম্মদ বিন সালমানকে নয়াদিল্লিতে অভ্যর্থনা জানিয়েছেন।

Screenshot from reuters website

প্রতিবেদনটি থেকে আরও জানা যায়, সাধারণত ভারতের প্রধানমন্ত্রী বিমানবন্দরে এসে বিদেশী অতিথিদের অভ্যর্থনা জানান না। তার পরিবর্তে বিমানবন্দরে কোনো কর্মকর্তা বা কনিষ্ঠ সরকারি মন্ত্রী পাঠানো হয়।

এছাড়া ভারতীয় গণমাধ্যম EconomicsTimes সূত্রে জানা যায়, ২০২০ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি ভারতে তৎকালীন মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্পের সফরের সময়ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি প্রটোকল ভেঙে বিমানবন্দরে গিয়ে তাকে অভ্যর্থনা জানান।

Screenshot from economictimes website

অর্থাৎ, ভারতের প্রধানমন্ত্রী প্রটোকল ভেঙ্গে কেবল যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামা, ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু এবং বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকেই অভ্যর্থনা জানাননি। এর বাইরেও বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রপ্রধানকে বরণ করেছেন।

মূলত, সোমবার (৫ সেপ্টেম্বর) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে দিল্লি বিমানবন্দরে ভারতীয় রেল ও বস্ত্র প্রতিমন্ত্রী অভ্যর্থনা জানান। তবে এটিকে কেন্দ্র করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী প্রটোকল ভেঙ্গে তিনবার বিমানবন্দরে গিয়ে কোনো সরকার প্রধানকে বিমানবন্দরে অভ্যর্থনা জানিয়েছিলেন। এর মধ্যে রয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামা, ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু এবং বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তবে অনুসন্ধানে দেখা যায়, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি প্রটোকল ভেঙে ফ্রান্সের রাষ্ট্রপতি ইমানুয়েল মাখোঁ এবং তার স্ত্রী ব্রিগিটে মাখোঁ, যুক্তরাষ্ট্রের আরেক রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প, সংযুক্ত আরব আমিরাতের যুবরাজ ও সশস্ত্রবাহিনীর প্রধান শেখ মুহাম্মদ বিন জায়েদ আল নাহয়ান, পাকিস্তানের বিরোধী দলীয় নেতা নওয়াজ শরীফকে তার পৈতৃক বাসভবনে, জর্ডানের সুলতান আব্দুল্লাহ (২) বিন আল হুসাইন ও সৌদি যুবরাজ মুহাম্মদ বিন সালমানকে অভ্যর্থনা জানান।

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালে রাষ্ট্রীয় সফরে ভারতের দিল্লিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৌঁছালে দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি রাষ্ট্রীয় প্রটোকল ভেঙে তাকে স্বাগত জানিয়েছিলেন। এছাড়া ২০১৫ সালে ও ২০১৮ সালে প্রটোকল ভেঙে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামা ও তার স্ত্রী মিশেল ওবামা, ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুকে অভ্যর্থনা জানিয়েছিলেন।

সুতরাং, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি  তিনবার বিমানবন্দরে গিয়ে কোনো সরকার প্রধানকে অভ্যর্থনা জানানো শীর্ষক দাবিতে প্রচারিত তথ্যটি আংশিক মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img