একাদশ সংসদ নির্বাচন নিয়ে সাবেক মার্কিন রাষ্ট্রদূত বার্নিকাটের বরাতে প্রচারিত বক্তব্যটি মিথ্যা

সম্প্রতি, ‘বাংলাদেশে ৩০ ডিসেম্বর-২০১৮ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কোনো নির্বাচন হয় নাই। হয়েছে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা ছিনতাইয়ের মহোৎসব। ক্ষমতাসীন দলের কাছে নির্বাচন কমিশন ছিল সুবিধাভোগী ক্রীতদাস। এবং পুলিশ ও সেনাবাহিনী ছিল পাহারাদার।’ শীর্ষক একটি তথ্য বাংলাদেশে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক রাষ্ট্রদূত স্টিফেন্স ব্লুম বার্নিকাট এর বক্তব্য দাবিতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে। স্টিফেন্স ব্লুম বার্নিকাট আদৌ এমন কোনো বক্তব্য দিয়েছেন কিনা তা যাচাইয়ের জন্য রিউমর স্ক্যানার টিমের কাছে একাধিক ফ্যাক্টচেক অনুরোধ এসেছে।

ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে, বাংলাদেশে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক রাষ্ট্রদূত বার্নিকাটের “একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কোনো নির্বাচন হয় নাই। হয়েছে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা ছিনতাইয়ের মহোৎসব।” শীর্ষক কোনো মন্তব্য সংক্রান্ত তথ্য বাংলাদেশ কিংবা আন্তর্জাতিক কোনো গণমাধ্যমে খুঁজে পাওয়া যায় নি।

গুজবের সূত্রপাত

বাংলাদেশে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক রাষ্ট্রদূত স্টিফেন্স ব্লুম বার্নিকাটের বক্তব্য দাবিতে ছড়িয়ে পড়া তথ্যটির সূত্রপাত খুঁজতে গিয়ে দেখা যায়, ২০১৯ সালের ৮ নভেম্বরে M S Afzal নামের একটি ফেসবুক আইডি হতে প্রকাশিত একটি পোস্টে উক্ত লেখাটি হুবহু প্রচার করা হয়েছিলো। (১) তথ্যসূত্র বিহীন ঐ ফেসবুক পোস্টটি প্রায় ১৪ হাজারবার শেয়ার করা হয়েছে।

উক্ত পোস্টে থাকা ছবিটি অনুসন্ধান করে দেখা যায় এটি ক্রাইম বার্তা ডট কম নামের একটি অনলাইন পোর্টালে ৪ জুলাই ২০১৮ সালে “যুক্তরাষ্ট্র অবাধ ও বিশ্বাসযোগ্য নির্বাচন চায় : বার্নিকাট” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদের ফিচার ইমেজ।

Screenshot from Crime Barta website

ফেসবুকের নিজস্ব মনিটরিং টুলসের সহায়তায় দেখা যায়, বার্নিকাটের মন্তব্য দাবিতে প্রচারিত তথ্যটি সাম্প্রতিক সময়ে গত ২৯ জানুয়ারি বিকেল ৪.৩২ মিনিটে একটি ফেসবুক গ্রুপে প্রথম পোস্ট করা হয় এবং পরবর্তীতে তা ফেসবুকে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ে।

পরবর্তীতে, M S Afzal এর ফেসবুক একাউন্ট অনুসন্ধান করে দেখা যায়, গত ২৮ জানুয়ারি রাত ১২.৫৩ মিনিটে তিনি তার ২০১৯ সালে প্রকাশিত পোস্টটি পুনরায় তার একাউন্টে শেয়ার করেছিলেন। অর্থাৎ, ধারণা করা যায় জনাব আফজালের তথ্যসূত্র বিহীন এই পুরোনো পোস্টটি পুনরায় শেয়ারের পরেই ২৯ জানুয়ারি থেকে উক্ত তথ্যটি এবছরে নতুন করে প্রচার হতে থাকে।

উল্লেখ্য, ২০২১ সালেও উক্ত তথ্যটি একই ছবি ব্যবহার করে সামাজিক মাধ্যমে প্রচার করা হয়েছে। দেখুন এখানে এবং এখানে

 

তথ্য যাচাই

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে স্টিফেন্স ব্লুম বার্নিকাটের মন্তব্য দাবিতে ছড়িয়ে পড়া তথ্যটির সত্যতা যাচাই করতে গিয়ে দেখা যায়, রাষ্ট্রদূত হিসেবে দায়িত্ব পালনের মেয়াদ শেষে ব্লুম বার্নিকাট ২০১৮ সালের ২ নভেম্বরে অর্থাৎ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পূর্বেই বাংলাদেশ ত্যাগ করেছিলেন।

Screenshot from Jugantor website

তবে রাষ্ট্রদূত হিসেবে তার দায়িত্ব পালনের মেয়াদের শেষ সময়ে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে তার বেশ কিছু মন্তব্য একাধিক সংবাদমাধ্যম খুঁজে পাওয়া যায়। ২০১৮ সালের ১৭ সেপ্টেম্বরে ঢাকায় এক অনুষ্ঠানে বার্নিকাট বলেন, ‘সব রাজনৈতিক দল, সংগঠন ও ব্যক্তির জন্য নির্বাচনের প্রাক্কালে রাজনৈতিক প্রক্রিয়ায় পরিপূর্ণভাবে অংশগ্রহণের স্বাধীনতা থাকা উচিত। রাজনৈতিক দলগুলোর কর্মী-সমর্থকদের অবশ্যই নিজেদের রাজনৈতিক মতামত প্রকাশ, প্রচার চালানো এবং ভয়ভীতি, প্রতিশোধ বা জবরদস্তিমূলক বিধিনিষেধ ছাড়া শান্তিপূর্ণ সভা-সমাবেশ করার স্বাধীনতা থাকতে হবে।

২০১৮ সালের ১৮ অক্টোবর ঢাকায়, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের সাথে সাক্ষাৎকার শেষে বার্নিকাট সাংবাদিকদের জানান, ‘আমরা আসন্ন জাতীয় নির্বাচন নিয়ে কথা বলেছি। ওয়াশিংটনের পক্ষ থেকে তাকে জানিয়েছি যুক্তরাষ্ট্র প্রত্যাশা করে বাংলাদেশে একটি সুষ্ঠু, গ্রহণযোগ্য এবং অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

Screenshot from Ekushey TV website

এছাড়া, রাষ্ট্রদূত হিসেবে দায়িত্ব পালনকালে ২০১৮ সালের ১৬ মে খুলনা সিটি নির্বাচনে অনিয়মের অভিযোগের সংবাদকে “খুবই হতাশাব্যঞ্জক” বলে গণমাধ্যমে মন্তব্য করেন তিনি।

Screenshot from The Daily Star website

২০১৮ সালের ২৮ জুন কূটনৈতিক প্রতিবেদকদের সংগঠন ডিক্যাব আয়োজিত ‘ডিক্যাব টকে’ অংশ নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বার্নিকাট বলেন,
গাজীপুর সিটি নির্বাচনে অনিয়মের খবরে যুক্তরাষ্ট্র উদ্বিগ্ন।

Screenshot from Samakal website

তাছাড়া, ২০১৫ সালের ২৮ এপ্রিল ঢাকা উত্তর, দক্ষিণ ও চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচন পরবর্তী প্রতিক্রিয়া হিসেবে এক টুইট বার্তায় বার্নিকাট বলেন, ‘যেকোনোভাবে জেতা প্রকৃতপক্ষে কোনো জয় নয়।

এর আগে ২০১৪ সালের ১৮ জুলাই তৎকালীন রাষ্ট্রদূত বার্নিকাটের উদ্ধৃতি দিয়ে ঢাকার মার্কিন দূতাবাস এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানায় যে, বাংলাদেশে ২০১৪ সালের ৫ই জানুয়ারির সংসদীয় নির্বাচন নিঃসন্দেহে ত্রুটিপূর্ণ ছিল৷’ তিনি সিনেট পররাষ্ট্র সম্পর্ক কমিটির সামনে বাংলাদেশের বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের উদ্বেগের কথা তুলে ধরেছেন।

Screenshot from DW website

তবে, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন পরবর্তী সময়ে নির্বাচন নিয়ে বার্নিকাটের কোনো মন্তব্য খুঁজে পাওয়া যায় না। কিন্তু ২০১৯ সালের ১৩ই মার্চ যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরের বার্ষিক মানবাধিকার প্রতিবেদনে বাংলাদেশের নির্বাচন সম্পর্কে বলা হয়, ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত অভাবনীয় রকম একপেশে একটি নির্বাচনের মাধ্যমে টানা তৃতীয় দফায় ক্ষমতায় এসেছে আওয়ামী লীগ। নানা অনিয়মে ভরা ওই নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য হিসেবে বিবেচিত হয়নি।

Screenshot from Prothom Alo website

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালের নভেম্বর মাসে বাংলাদেশে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত বার্নিকাটের স্থলাভিষিক্ত হন আর্ল রবার্ট মিলার। ঐ বছরের ১১ অক্টোবর যুক্তরাষ্ট্রের সিনেট তাঁর নিয়োগ অনুমোদন করে। উল্লেখ্য, ২০২১ সালের ১৯ ডিসেম্বরে বাংলাদেশের নতুন রাষ্ট্রদূত হিসেবে পিটার ডি হাসকে চূড়ান্ত নিয়োগ দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলারের স্থলাভিষিক্ত হবেন পিটার ডি হাস। গত ২১ জানুয়ারিতে রবার্ট মিলার ঢাকা ত্যাগ করেছেন।

সংসদ
Screenshot from Jamuna TV website

উল্লেখ্য, বাংলাদেশে রাষ্ট্রদূত হিসেবে দায়িত্ব পালন শেষে স্টিফেন্স ব্লুম বার্নিকাট ২০১৯ সাল হতে ২০২১ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত দেশটির অর্থনৈতিক উন্নয়ন, শক্তি এবং পরিবেশ বিভাগের সিনিয়র কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন এবং ২০২১ সালের ২০ জানুয়ারি থেকে ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত দেশটির ব্যুরো অব ওশনস, ইন্টারন্যাশনাল এনভায়রনমেন্ট অ্যান্ড সায়েন্টিফিক অ্যাফেয়ার্স অব দ্য ডিপার্টমেন্ট অব স্টেটের ভারপ্রাপ্ত সহকারী সচিবের দায়িত্ব পালন করেছেন। সর্বশেষ ২০২১ সালের ১৫ সেপ্টেম্বর তাকে দেশটির ফরেন সার্ভিসের মহাপরিচালক এবং বোর্ড অব দ্য ফরেন সার্ভিসের চেয়ারপার্সন হিসেবে মনোনীত করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

আরো পড়ুনঃ কেনিয়ার রাষ্ট্রপ্রধানকে বারাক ওবামার ‘ফলো বাংলাদেশ, ফলো শেখ হাসিনা’ বলার দাবিটি মিথ্যা

সুতরাং, কোনো তথ্যসূত্র ছাড়া “বাংলাদেশে ৩০ ডিসেম্বর-২০১৮ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কোনো নির্বাচন হয় নাই। হয়েছে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা ছিনতাইয়ের মহোৎসব।’ শীর্ষক একটি তথ্য বাংলাদেশে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক রাষ্ট্রদূত স্টিফেন্স ব্লুম বার্নিকাটের বক্তব্য দাবিতে বেশ কয়েক বছর যাবত সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার হয়ে আসছে; যা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন এবং মিথ্যা।

[su_box title=”True or False” box_color=”#f30404″ radius=”0″]

  • Claim Review: বাংলাদেশে ৩০ ডিসেম্বর-২০১৮ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কোনো নির্বাচন হয় নাই – মার্শিয়া স্টিফেন্স ব্লুম বার্নিকাট, যুক্তরাষ্ট্র
  • Claimed By: Facebook Posts
  • Fact Check: False

[/su_box]

তথ্যসূত্র

  1. মার্শা বার্নিকাট বিদায় নিচ্ছেন আজ
  2. যুক্তরাষ্ট্র অবাধ ও বিশ্বাসযোগ্য নির্বাচন চায় : বার্নিকাট
  3. ভোটে সহিংসতাকারীরা বাংলাদেশের ভালো চায় না: বার্নিকাট | প্রথম আলো
  4. বাংলাদেশে গ্রহণযোগ্য নির্বাচন চায় যুক্তরাষ্ট্র: বার্নিকাট
  5. খুলনা সিটি নির্বাচনে অনিয়মের অভিযোগের সংবাদে যুক্তরাষ্ট্রের হতাশা প্রকাশ | The Daily Star Bangla
  6. গাজীপুরের নির্বাচনে অনিয়মের খবরে যুক্তরাষ্ট্র উদ্বিগ্ন: বার্নিকাট
  7. যেকোনোভাবে জিতলেই তা কোনো জয় নয়: বার্নিকাট | প্রথম আলো
  8. ‘৫ই জানুয়ারির নির্বাচন ত্রুটিপূর্ণ’ | বিশ্ব | DW | 19.07.2014
  9. জাতীয় নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু বিবেচিত হয়নি: যুক্তরাষ্ট্র | প্রথম আলো
  10. যুক্তরাষ্ট্রের নতুন রাষ্ট্রদূত মিলার ঢাকায় | প্রথম আলো
  11. মিলারের বিদায়, ঢাকায় যুক্তরাষ্ট্রের নতুন রাষ্ট্রদূত পিটার ডি হাস
  12. ঢাকাকে বিদায় জানালেন মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল মিলার
  13. Statement of Marcia Stephens Bloom Bernicat Nominee to be Director-General of the Foreign Service and Director of Global Talent
  14. President Biden Announces His Intent to Nominate Key Administration Leaders in the State Department | The White House
RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img