কুকুর-বিড়ালের মাংস দিয়ে সুলতান’স ডাইনে কাচ্চি তৈরি হয় শীর্ষক কোনো সংবাদ প্রকাশ করেনি যুগান্তর

সম্প্রতি, “সুলতানস ডাইনে কাচ্চি কুকুর,বিড়ালের মাংস দিয়ে তৈরি করে,মাটন মাংস বলে পরিবেশন করে” শীর্ষক শিরোনামে জাতীয় দৈনিক যুগান্তর পত্রিকাকে সূত্র হিসেবে দাবি করে একটি তথ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হচ্ছে। 

Screenshot from ‘Facebook’

ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে
পোস্টগুলোর আর্কাইভ ভার্সন দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে। 

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে যুগান্তর পত্রিকায় এমন কোনো সংবাদের অস্তিত্ব খুঁজে পাওয়া যায়নি বরং কোনো প্রকার নির্ভরযোগ্য তথ্য ছাড়াই অনেকটা অনুমাননির্ভর হয়ে উক্ত তথ্যটি যুগান্তর পত্রিকাকে সূত্র হিসেবে ব্যবহার করে ভিত্তিহীনভাবে ফেসবুকে প্রচার করা হচ্ছে। 

প্রাসঙ্গিক কি-ওয়ার্ড সার্চ পদ্ধতির মাধ্যমে, দেশীয় মূলধারার সংবাদমাধ্যম ‘NewsBangla24’ এর ওয়েবসাইটে গত ১৩ মার্চ তারিখে “সুলতান’স ডাইনের কাচ্চিতে কুকুর-বিড়ালের মাংস পায়নি ভোক্তা অধিকার” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়। 

Screenshot from ‘NewsBangla24’ website 

প্রতিবেদনটি থেকে জানা যায়, ‘রাজধানীর গুলশান-২ নম্বরে ‘সুলতান’স ডাইন’ নামের রেস্তোরাঁর কাচ্চি বিরিয়ানিতে খাসি ছাড়া অন্য কোনো প্রাণীর মাংস ব্যবহারের প্রমাণ পায়নি বলে জানিয়েছে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর।’

Screenshot from ‘NewsBangla24’ website 

পাশাপাশি, দেশীয় মূলধারার সংবাদমাধ্যম ‘Jugantor’ এর ওয়েবসাইটে ১৪ মার্চ তারিখে “সুলতান’স ডাইনের বিরুদ্ধে অভিযোগের প্রমাণ মেলেনি: মহাপরিচালক ভোক্তা অধিদপ্তর” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত আরেকটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়। 

Screenshot from ‘Jugantor’ website 

উক্ত প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে যে, ‘সুলতান’স ডাইনে খাসির বদলে অন্য প্রাণীর মাংস ব্যবহারের অভিযোগ প্রমাণ হয়নি। তাই প্রতিষ্ঠানকে অন্য প্রাণীর মাংস ব্যবহারের অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দেওয়া যেতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণের অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এএইচএম সফিউজ্জামান। অধিদপ্তরের সম্মেলন কক্ষে সোমবার সুলতান’স ডাইনের তদন্তসংক্রান্ত বিষয়ে সংবাদ সম্মেলে তিনি এ কথা জানান।’ 

এছাড়া, জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের বক্তব্য উল্লেখ করে একই তথ্য ব্যবহারে দেশীয় মূলধারার বেশ কয়েকটি সংবাদমাধ্যম সংবাদ প্রকাশ করেছে। এমন কয়েকটি সংবাদ দেখুন একাত্তর টিভি, ইত্তেফাক, এনটিভি, জাগো নিউজ (ভিডিও), কালেরকন্ঠ এবং আরটিভি। 

সংবাদমাধ্যম গুলোর প্রতিবেদন পর্যবেক্ষন করে সুলতান’স ডাইনে খাসির মাংসের পরিবর্তে কুকুর বিড়ালের মাংস ব্যবহার করা হয়েছে শীর্ষক তথ্যের উল্লেখ পাওয়া যায়নি। 

মূলত, গত ৮ মার্চ বুধবার থেকে সুলতান’স ডাইনের খাবার নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বেশ আলোচনা সমালোচনার সৃষ্টি হয়। বিষয়টি নিয়ে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর অভিযান পরিচালনা শেষে তদন্ত প্রতিবেদনে সুলতান’স ডাইনের কাচ্চি বিরিয়ানিতে খাসি ছাড়া অন্য কোনো প্রাণীর মাংস ব্যবহারের প্রমাণ পায়নি বলে জানিয়েছে। আলোচিত সুলতান’স ডাইনের বিষয়টি নিয়ে কোনো প্রকার নির্ভরযোগ্য তথ্য ছাড়াই অনুমান নির্ভর হয়ে দৈনিক যুগান্তর পত্রিকাকে সূত্র হিসেবে ব্যবহার করে ‘সুলতানস ডাইনে কাচ্চি কুকুর, বিড়ালের মাংস দিয়ে তৈরি করে,মাটন মাংস বলে পরিবেশন করে’ শীর্ষক একটি তথ্য ফেসবুকে প্রচার করা হলেও দৈনিক যুগান্তর উল্লিখিত তথ্য সম্বলিত কোনো প্রতিবেদন প্রকাশ করেনি।

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরে রাজধানীর নিরব হোটেলে গরুর মাংসের নামে কুকুরের মাংস বিক্রির অপপ্রচার চালানো হয়। ওই অভিযোগ অস্বীকার করে কর্তৃপক্ষ। এ নিয়ে নিরব হোটেলের পক্ষে চকবাজার থানায় সাধারণ ডায়েরিও (জিডি) করা হয় তখন। এছাড়া, গত বছরে অর্থাৎ ২০২২ সালের জুন মাসে রাজধানীর আশুলিয়ায় আল্লাহর দান বিরিয়ানী হাউজ নামের একটি দোকানে কুকুরের মাংস দিয়ে কাচ্চি বিরিয়ানি রান্নার গুজব ছড়ায়। তবে, পুলিশ মাংসের আলামত সংগ্রহ করে উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিসে পাঠালেও টেস্টের প্রতিবেদনে কুকুরের মাংসের কোনো অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি। 

সুতরাং, যুগান্তর পত্রিকায় ‘সুলতান’স ডাইনে কুকুর-বিড়ালের মাংস দিয়ে কাচ্চি তৈরি হয়’ শীর্ষক কোনো সংবাদ প্রকাশিত হয়নি। প্রকৃতপক্ষে, একটি ভিত্তিহীন তথ্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হচ্ছে; যা সম্পূর্ণ মিথ্যা। 

তথ্যসূত্র

RS Team
RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img