৮ ফেব্রুয়ারিকে ‘আন্তর্জাতিক তাকবির দিবস’ ঘোষণা করার দাবিটি মিথ্যা

সম্প্রতি, “আলহামদুলিল্লাহ। ৮ফেব্রুয়ারি”আন্তর্জাতিক আল্লাহু আকবার তাকবীর দিবস” ঘোষণা করা হয়েছে।” শীর্ষক একটি তথ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে।

ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, ৮ ফেব্রুয়ারিকে “আন্তর্জাতিক তাকবীর দিবস” ঘোষণা করা হয়নি বরং এই দাবিটি সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন।

মূলত, ভারতের কর্ণাটক রাজ্যে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে হিজাব পরিধান নিয়ে বিতর্ক চলমান রয়েছে। হিজাব পরিধান করে ক্লাস করতে না দেয়া এবং ক্লাসে হিজাব পরা নিষিদ্ধ ঘোষণা করার পর মূলত এই বিতর্কের সৃষ্টি হয়। এই অবস্থার মধ্যে কর্ণাটকের মাণ্ড্য কলেজের বাণিজ্য শাখার দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মুসকান খান হিজাব পরিহিত অবস্থায় স্কুলে অ্যাসাইনমেন্ট জমা দিতে গেলে তাকে কতিপয় যুবক বাধা দেয় এবং তাকে ঘিরে জয় শ্রী রাম স্লোগান দেয়া হয় কিন্তু এতে ভীত না হয়ে মুসকান ভিতরে প্রবেশ করেন এবং প্রতিবাদে ‘আল্লাহু আকবর’ স্লোগান দেন। পরবর্তীতে তার এই সাহসিকতার ভিডিও দ্রুতই সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে।

গত ৮ ফেব্রুয়ারিতে মুসকানের এই সাহসিকতার ঘটনা এবং আল্লাহু আকবার স্লোগান দেয়ার বিষয়টি সামাজিক মাধ্যমে ব্যাপক আলোচিত এবং প্রশংসিত হয়। মূলত গত ৮ ফেব্রুয়ারিতে মুসকান খানের আল্লাহু আকবার স্লোগান দেয়ার ঘটনার প্রেক্ষিতেই সামাজিক মাধ্যম ব্যবহারকারীরা ৮ ফেব্রুয়ারিকে “আন্তর্জাতিক তাকবীর দিবস” ঘোষণা করা হয়েছে বলে তথ্য প্রমাণ ছাড়াই দাবিটি প্রচার করতে থাকেন।

আরো পড়ুনঃ ভিডিওটি হিজাব বিতর্কে প্রতিবাদী মুসকানকে পুলিশের সম্মাননা প্রদানের নয়

আন্তর্জাতিক দিবস এর স্বীকৃতি কারা দেয়?

মূলত আন্তর্জাতিক দিবস স্বীকৃত হয় জাতিসংঘের মাধ্যমে। জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদ মানবজীবন ও ইতিহাসের গুরুত্বপূর্ণ দিকগুলোকে চিহ্নিত করার জন্য বিশেষ তারিখ বা দিনকে “আন্তর্জাতিক দিবস” মনোনীত করে। ইউনেস্কো সহ জাতিসংঘের বিশেষায়িত সংস্থাগুলোও বিশ্ব দিবস ঘোষণা করতে পারে। এই ক্ষেত্রে, আন্তর্জাতিক দিবসগুলির ঘোষণা শুধুমাত্র তাদের পরিচালনা সংস্থা এবং অভ্যন্তরীণ প্রবিধানের উপর নির্ভর করে।

screenshot from unesco website

জাতিসংঘের অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে সকল আন্তর্জাতিক দিবস ও সপ্তাহ সমূহের তালিকা রয়েছে। উক্ত তালিকায় ‘আন্তর্জাতিক তাকবির দিবস’ এর কোনো অস্তিত্ব খুঁজে পাওয়া যায় নি।

screenshot from UN website

গুজবের উৎপত্তি

অনুসন্ধানে দেখা যায়, ৮ ফেব্রুয়ারি মুসকান খানের ‘আল্লাহু আকবার’ বলে তাকবীর দিয়ে প্রতিবাদের প্রেক্ষিতে ‘আল্লাহু আকবার’ স্লোগানটি সামাজিক মাধ্যমে ট্রেন্ড হওয়ার পর কতিপয় ফেসবুক ব্যাবহারকারীরা ৮ই ফেব্রুয়ারীকে ‘আন্তর্জাতিক তাকবীর দিবস ঘোষনা করা হোক’ দাবিতে ফেসবুকে পোস্ট করেন।

পরবর্তীতে, এই “৮ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক তাকবির দিবস করা হোক” দাবিটি তথ্যসূত্রহীন ভাবে “৮ ফেব্রুয়ারিকে আন্তর্জাতিক তাকবীর দিবস ঘোষণা করা হয়েছে” দাবিতে প্রচারিত হতে থাকে যা খুব দ্রুতই সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে

প্রসঙ্গত, গত কয়েকদিন যাবত ভারতের কর্ণাটকে হিজাব বিতর্ক চড়াও হওয়ার পর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সেখানে স্কুল কলেজ বন্ধ ঘোষণা করা হয়। পাশাপাশি বিষয়টি নিয়ে কর্ণাটক হাইকোর্টে শুনানি চলছে। সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, কর্ণাটকে কলেজে কোনো রকমের ধর্মীয় পোশাক পরা থেকে আপাতত বিরত থাকতে বলেছে কর্ণাটক হাইকোর্ট। অর্থাৎ, যতদিন পুরো বিষয়টি আইন প্রক্রিয়ার মধ্যে রয়েছে, ততদিনের জন্য ধর্মীয় পোশাক পরা থেকে শিক্ষার্থীদের বিরত থাকতে বলা হয়েছে এবং এই ঘটনায় ফের আগামী সোমবার দুপুর ২:৩০ মিনিটে মামলার শুনানি হবে বলে জানিয়েছেন আদালত।

Screenshot from BBC News Bangla Website

সুতরাং, ৮ ফেব্রুয়ারিকে “আন্তর্জাতিক তাকবীর দিবস” ঘোষণা করা হয়েছে দাবিতে প্রচারিত তথ্যটি সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন এবং মিথ্যা।

[su_box title=”True or False” box_color=”#f30404″ radius=”0″]

  • Claim Review: ৮ই ফেব্রুয়ারী “আন্তর্জাতিক আল্লাহু আকবার তাকবীর দিবস” ঘোষণা করা হয়েছে
  • Claimed By: Facebook Posts
  • Fact Check: False

[/su_box]

তথ্যসূত্র

  1. UN: https://www.un.org/en/observances/list-days-weeks
  2. UNESCO: https://en.unesco.org/commemorations/international-days
  3. Jagonews24: https://youtu.be/n0zyaAhOB0c
  4. NDTV: https://www.ndtv.com/india-news/hijab-row-live-updates-3-judge-bench-at-karnataka-high-court-starts-hearing-on-hijab-issue-2759911
  5. BBC News: https://www.bbc.com/bengali/news-60303285
RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img