ট্রেনের ভাঙা চাকার এই ছবিগুলো বাংলাদেশের নয় 

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে “ভারত থেকে কেনা ট্রেনের কোচের চাকা (শরীফ মেলামাইন)” শিরোনামে দুটি ছবি দিয়ে বানানো একটি কোলাজ ছড়িয়ে পড়েছে। এতে দাবি করা হচ্ছে, ট্রেনের ভাঙা চাকার এই ছবিগুলো বাংলাদেশের। 

ট্রেনের ভাঙা চাকার

ফেসবুকে প্রচার এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)। 

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, ট্রেনের ভাঙা চাকার আলোচ্য ছবিগুলো বাংলাদেশের নয় বরং ভারতের এই ছবিগুলোকে উক্ত দাবিতে প্রচার করা হয়েছে।

গুজবের সূত্রপাত্র

এই দাবির সত্যতা যাচাই করার জন্য রিউমর স্ক্যানার টিম বিভিন্ন বিশ্বস্ত সূত্রে ছবিগুলোর বিষয়ে অনুসন্ধান করে। তবে, কাঙ্ক্ষিত ফলাফল না পাওয়ার প্রেক্ষিতে গুজবের মূল সূত্র খুঁজে বের করার চেষ্টা করা হয়।

অনুসন্ধানে গত ৩১ মে দুপুর ২টা ১৮ মিনিটে ‘Boycott Indian Products’ নামের একটি ফেসবুক গ্রুপে উক্ত দাবিতে প্রচারিত সম্ভাব্য প্রথম পোস্ট (আর্কাইভ) খুঁজে পাওয়া যায়।

Screenshot: Facebook.

প্রথমে এই পোস্টের ক্যাপশনে বলা হয়েছিল, “ভারত থেকে কেনা ট্রেনের কোচের চাকা”। পোস্টের প্রায় ৬ ঘণ্টা পর, ক্যাপশন পরিবর্তন করে বলা হয়, “ভারতীয় ট্রেনের কোচের চাকা”। আবার আধাঘণ্টা পর, ক্যাপশন পরিবর্তন করে লেখা হয়, “ভারতীয় ট্রেনের কোচের চাকা, যা বাংলাদেশে ভরপুর”।

Screenshot: Facebook. 

প্রথম দাবির প্রেক্ষিতেই অধিকাংশ নেটিজেন এই ঘটনাটি বাংলাদেশের ভেবে নেতিবাচক মন্তব্য করেছেন এবং ৬ ঘণ্টা পর ক্যাপশন এডিট করার আগেই এই বিষয়টি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে।

রিউমর স্ক্যানার টিম রিভার্স ইমেজ সার্চ পদ্ধতি ব্যবহার করে এই ছবিগুলোর সূত্র খুঁজে বের করেছে। এতে দেখা যায়, ৩০ মে রাত ১০টা ৭ মিনিটে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম মিড-ডে এর সাংবাদিক রাজেন্দ্র বি. আকলেকারের এক্স (সাবেক টুইটার) অ্যাকাউন্টে একই ছবি (আর্কাইভ) পোস্ট করা হয়েছিল।

Screenshot: X/rajtoday. 

উক্ত পোস্টের ক্যাপশন থেকে জানা যায়, ভারতের দুর্গাপুর স্টিল প্ল্যান্ট থেকে বাক্তারনগরগামী একটি পণ্যবাহী ট্রেনের ইঞ্জিনের চাকা ভেঙে গেছে। এই ঘটনা ভারতের আসানসোলে ঘটেছে এবং ট্রেনটির প্রথম ইঞ্জিন (৪১০৫১) এর চতুর্থ চাকা দুটি অংশে ভেঙে গেছে। তবে এতে ট্রেন চলাচলে কোনো বিঘ্ন ঘটেনি এবং কেউ আহত হয়নি।

পরে প্রাসঙ্গিক কি-ওয়ার্ড সার্চ করে নিউজ স্টেশন নামের একটি ভারতীয় অনলাইন পোর্টালের ইউটিউব চ্যানেলেও একই তথ্য পাওয়া যায়।

এছাড়া, সম্প্রতি বাংলাদেশ রেলওয়ের কোনো ট্রেনের এমন চাকা ভাঙার ঘটনা বিশ্বস্ত কোনো সূত্রে পাওয়া যায়নি।

মূলত, সম্প্রতি বাংলাদেশের ট্রেনের চাকা ভেঙেছে দাবিতে দুইটি ছবি সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। তবে রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, উক্ত ছবিগুলো আসলে ভারতের। গত ৩০ মে এক ভারতীয় সাংবাদিক তার এক্স অ্যাকাউন্টে এই ছবিগুলো প্রচার করেছিলেন। এর পরবর্তীতে, একই ছবিগুলো বাংলাদেশের ট্রেনের দাবিতে প্রচার করা হচ্ছে।

সুতরাং, ভারতের একটি ট্রেনের ভাঙা চাকার ছবি বাংলাদেশের দাবিতে প্রচার করা হচ্ছে, যা মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img