ভারতের ফারাক্কা বাঁধের নয়, এটি পাঞ্চেত বাঁধের পুরোনো ভিডিও

সম্প্রতি, ভারী বর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের কারণে সিলেটের বেশ কয়েকটি স্থান বন্যায় তলিয়ে গেছে। ২০২২ সালের পর আবারও চলতি বছরে এমন ভয়াবহ বন্যার সম্মুখীন হলো সিলেট। এরই প্রেক্ষিতে, শর্ট ভিডিও শেয়ারিং প্লাটফর্ম টিকটকে ফারাক্কা বাঁধের কারণে সিলেটে বন্যা হচ্ছে দাবিতে একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে। 

উক্ত দাবিতে টিকটকে প্রচারিত ভিডিও দেখুন এখানে (আর্কাইভ)।

উক্ত প্রতিবেদন প্রকাশ অবধি ভাইরাল ভিডিওটি ১০ লক্ষেরও বেশিবার দেখা হয়েছে এবং ৬২ হাজার একাউন্ট থেকে প্রতিক্রিয়া জানানো হয়েছে। 

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, প্রচারিত ভিডিওটি ফারাক্কা বাঁধের নয় বরং এটি ভারতের ঝাড়খণ্ডের পাঞ্চেত বাঁধের ভিডিও। 

অনুসন্ধানের শুরুতে, ভিডিওটির কিছু স্থিরচিত্র রিভার্স সার্চের মাধ্যমে, ‘Satyam Sharma’ নামের একটি ইউটিউব চ্যানেলে ২০১৭ সালের ২৭ জুলাই “Panchet dam , jharkand || unexpected water discharge || Satyam and Snehit” শীর্ষক শিরোনামে প্রচারিত ০১ মিনিট ০৫ সেকেন্ডের একটি ভিডিও খুঁজে পাওয়া যায়। 

বিষয়টি অধিক নিশ্চিতের জন্য “Google Earth” এর সহায়তায় আলোচিত ভিডিওটির চিত্রের সাথে তুলনা করে নিশ্চিত হওয়া যায় যে এটি পাঞ্চেত বাঁধ। পাঞ্চেত বাঁধ ভারতের ঝাড়খণ্ড রাজ্যের ধানবাদ জেলার পাঞ্চেতে দামোদর নদীতে অবস্থিত। অপরদিকে, ফারাক্কা বাঁধ ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের মালদহ ও মুর্শিদাবাদ জেলায় গঙ্গা নদীর উপর অবস্থিত এবং সর্বশেষ ২০১৯ সালে ফারাক্কা বাঁধের সব গেট খুলে দেয়া হয়েছিল।

Comparison: Rumor Scanner

এছাড়াও, প্রচারিত ভিডিওতে দাবি করা হচ্ছে সিলেটে চলমান বন্যা ফারাক্কা বাঁধের কারণে হচ্ছে। তবে, চলমান বন্যার কারণ বিশ্লেষণ করতে গিয়ে পানি উন্নয়ন বোর্ড-এর সিলেট জেলার নির্বাহী প্রকৌশলী দীপক রঞ্জন দাশ বলেন, ভারতের মেঘালয়ের চেরাপুঞ্জিতে ভারী বর্ষণ, সিলেটে টানা বৃষ্টি ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের কারণেই বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। 

এছাড়াও, বিশেষজ্ঞরা সিলেটে বারবার বন্যার কারণ হিসেবে মেঘালয়ের ভারী বর্ষণ ছাড়াও নদীর পানি বহনের ক্ষমতা নষ্ট হয়ে যাওয়া, অপরিকল্পিত উন্নয়ন, বাঁধ না থাকা ও ইটনা-মিঠামইন সড়ককে দায়ী করছেন। ফারাক্কা বাঁধের সাথে সিলেটের কোনো সংযোগ নেই। ফারাক্কা বাঁধ খুলে দেয়া হলে ভৌগোলিকভাবে নিকটবর্তী হওয়ায় তাতে সবার আগে ক্ষতিগ্রস্ত হবে চাঁপাইনবাবগঞ্জ, রাজশাহী, পাবনা ও নাটোরের নিম্নাঞ্চল। 

অর্থাৎ,  সিলেটের চলমান বন্যা পরিস্থিতির সাথে ফারাক্কা বাঁধের সম্পৃক্ততা নেই। 

তাছাড়া, সিলেটের বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে দেশের শীর্ষস্থানীয় গণমাধ্যমের সংবাদে ফারাক্কা বাঁধের কারণে বন্যা হয়েছে এমন কোনো তথ্য খুঁজে পাওয়া যায়নি। 

মূলত, সিলেটে চলমান বন্যা পরিস্থিতিকে কেন্দ্র করে শর্ট ভিডিও শেয়ারিং প্লাটফর্ম টিকটকে ভারতের ফারাক্কা বাঁধের ভিডিও দাবিতে একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে। প্রচারিত ভিডিওতে চলমান বন্যার কারণ হিসেবে ফারাক্কা বাঁধকে দায়ী করা হয়। তবে, রিউমর স্ক্যানারের অনুসন্ধানে জানা যায় প্রচারিত ভিডিওর বাঁধটি ফারাক্কা বাঁধ নয় বরং ভারতেরই ঝাড়খণ্ডে অবস্থিত পাঞ্চেত বাঁধ। উল্লেখ্য পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) জানিয়েছে, সিলেটের চলমান বন্যার কারণ ভারতের মেঘালয়ের চেরাপুঞ্জিতে ভারী বর্ষণ, সিলেটে টানা বৃষ্টি ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল। 

সুতরাং, ভারতের পাঞ্চেত বাঁধের পানি প্রবাহের ভিডিওকে সাম্প্রতিক সময়ে সিলেটের বন্যার কারণ হিসেবে ভারতের ফারাক্কা বাঁধ খুলে দেওয়ার দৃশ্য দাবিতে প্রচার করা হচ্ছে; যা সম্পূর্ণ মিথ্যা। 

তথ্যসূত্র 

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img