চটকদার থাম্বনেইলে ইইউ প্রতিনিধির বরাতে প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ ও নির্বাচন নিয়ে গুজব

সম্প্রতি ‘প্রধানমন্ত্রী পদত্যাগ না করলে নির্বাচন হবে না পরিষ্কার জানালেন ইইউ প্রতিনিধি’ শীর্ষক থাম্বনেইল যুক্ত একটি ভিডিও ইউটিউবে প্রচার করা হচ্ছে। 

ইউটিউবে প্রচারিত উক্ত ভিডিওটি দেখুন এখানে(আর্কাইভ)।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, ইইউ প্রতিনিধির বরাতে প্রধানমন্ত্রী পদত্যাগ না করলে নির্বাচন হবে না শীর্ষক দাবিতে ইউটিউবে প্রচারিত ভিডিওটিতে এমন কোনো তথ্য নেই  বরং ভিন্ন ভিন্ন  ব্যক্তির ধারণকৃত দুইটি আলাদা ভিডিও যুক্ত করে  উক্ত দাবিতে ভিডিওটি  প্রচার করা হচ্ছে। এছাড়া ডোনাল্ড লুও  ইইউ বা ইউরোপীয় ইউনিয়নের কোনো প্রতিনিধি নন, প্রকৃতপক্ষে  তিনি যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়াবিষয়ক সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী। 

অপ্রাসঙ্গিক ছবিযুক্ত থাম্বনেইল

দাবিটির সত্যতা যাচাইয়ে গত ১৬ জুলাই Al Minar নামের একটি ইউটিউব চ্যানেলে ‘প্রধানমন্ত্রী পদত্যাগ না করলে নির্বাচন হবে না পরিষ্কার জানালের ইইউ প্রতিনিধি‘ শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত ভিডিওটি যাচাই করে দেখা যায়, ইইউ প্রতিনিধির বরাতে ভিডিওটি প্রচার করা হলেও ভিডিওটির থাম্বনেইলে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, বাংলাদেশে সদ্য সফর করে যাওয়া মার্কিন প্রতিনিধি দলের প্রধান উজরা জেয়া, বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত পিটার হাস,অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ ইউনূস, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি ব্যবহার করে ‘ব্রেকিং নিউজ | প্রধানমন্ত্রী পদত্যাগ না করলে নির্বাচন হবেনা | জানালেন ইইউ প্রতিনিধি ডোনাল্ড লু’ শীর্ষক শিরোনামে থাম্বনেইল তৈরি করে  উক্ত ভিডিওটি প্রচার করা হয়।

Screenshot: Al Minar Youtube Channel

অর্থাৎ থাম্বনেইলটিতে ইইউর কোনো প্রতিনিধির অস্তিত্ব নেই।

কি আছে ভিডিওতে?

এ নিয়ে অনুসন্ধানে  ভিডিওটি পর্যবেক্ষণ করে  দেখা যায়, ভিডিওটি ভিন্ন দুইটি  ভিডিও ক্লিপের সমন্বয়ে তৈরি করা হয়েছে। যেখানে রয়েছে বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সহ আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা ও অনলাইন অ্যাক্টিভিস্ট ড.ফয়জুল হকের ভিন্ন দুইটি ভিডিও ক্লিপ।

ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানার ভিডিওতে কি আছে? 

অনুসন্ধানে গত ১৬ জুলাই ‘Rumeen’s Voice নামের একটি ফেসবুক পেজে ‘তত্ত্বাবধায়ক সরকার না এলে সহসা আর নির্বাচন হচ্ছে না।‘ শীর্ষক একটি ভিডিও খুঁজে পাওয়া যায়। এই ভিডিওটির সঙ্গে ইউটিউবে প্রচারিত ভিডিওটির মিল খুঁজে পাওয়া যায়।

Screenshot: Rumeen’s Voice

ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতিনিধি দলের সাথে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের বৈঠকের বিষয়ে কথা বলেন পাশাপাশি  এই বৈঠককে কেন্দ্র করে বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদ নিয়েও আলোচনা করেন।

এর মধ্যে আছে জাতীয় দৈনিক মানবজমিনে গত ১৫ জুলাই ‘আগামী নির্বাচন জনগণের ভোটে আদৌ সম্ভব হবে কিনা জানতে চেয়েছে ইইউ: খসরু’ ও একইদিনে অনলাইন পোর্টাল বিডিনিউজ২৪ এ ‘শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব: ইইউকে আওয়ামী লীগ’ শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত দুইটি প্রতিবেদনও। 

তবে রুমিন ফারহানার বক্তব্যে ও প্রতিবেদন দুইটি থেকে এমন কোনো তথ্য খুঁজে পাওয়া যায়নি, যা ইউটিউবে প্রচারিত ভিডিওটির থাম্বনেইলে উপস্থাপিত তথ্যের সঙ্গে প্রাসঙ্গিক। 

অর্থাৎ কোনো যোগসূত্র ছাড়াই রুমিন ফারহানার ভিডিওটিকে ইউটিউবের ‘প্রধানমন্ত্রী পদত্যাগ না করলে নির্বাচন হবে না পরিষ্কার জানালেন ইইউ প্রতিনিধি’ শীর্ষক থাম্বনেইলযুক্ত ভিডিওটিতে যুক্ত করা হয়েছে। 

অনুরূপভাবে গত ১৬ জুলাই Dr. Fayzul Huq Thw Youth Leader Of Bangladesh এর ফেসবুক পেজে ইউটিউবে প্রচারিত দ্বিতীয় ভিডিওটির মূল ভিডিওটি খুঁজে পাওয়া যায়।

Screenshot:  Dr. Fayzul Huq Thw Youth Leader Of Bangladesh

৮ মিনিট ২ সেকেন্ডের এই ভিডিওটিতে ড. ফয়জুল হক জামায়াতে ইসলামের সঙ্গে ইউরোপীয় ইউনিয়নের বৈঠক নিয়ে আলোচনা করেন। আলোচনা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, জামায়াতে ইসলাম বর্তমান সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন হতে পারে না বলে ইইউকে জানিয়েছে ও এই সরকারের অধীনে  নির্বাচন হলে তাতে কোনো পর্যবেক্ষক না পাঠাতে অনুরোধ করেছে। 

পাশাপাশি তিনি জাতীয় দৈনিক প্রথম আলোতে গত ১৫ জুলাই ‘এই সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন হতে পারে না: ইইউ প্রতিনিধিদলকে জামায়াত’ শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন পড়ে শোনান। তবে অনুসন্ধানে উক্ত প্রতিবেদনেও ইউটিউবে প্রচারিত ভিডিওটির দাবির অনুরূপ কোনো তথ্য খুঁজে পাওয়া যায়নি।

অর্থাৎ রুমিন ফারহানার ভিডিওটির মতোই এই ভিডিওটিও কোনো প্রাসঙ্গিকতা ছাড়াই ইউটিউবে প্রচারিত ভিডিওটির সঙ্গে জুড়ে দেওয়া হয়েছে। 

ডোনাল্ড লু কি ইইউর প্রতিনিধি? 

ইউটিউবে প্রচারিত ভিডিওটিতে ডোনাল্ড লুকে ইইউর প্রতিনিধি হিসেবে দাবি করা হলেও রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, ডোনাল্ড লু মূলত যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়াবিষয়ক সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী। 

Screenshot: US Dept. Of State

প্রসঙ্গত, গত ৯ জুলাই থেকে ১০ দিনের সফরে আসন্ন জাতীয় নির্বাচন পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করতে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) ছয় সদস্যের প্রাক নির্বাচন পর্যবেক্ষক প্রতিনিধিদল বাংলাদেশে আসে। তবে প্রতিনিধি দলটির এই সফরকালে বাংলাদেশের নির্ভরযোগ্য গণমাধ্যম সূত্রে ‘প্রধানমন্ত্রী পদত্যাগ না করলে নির্বাচন হবে না’ শীর্ষক তাদের এমন কোনো বক্তব্য খুঁজে পাওয়া যায়নি।

মূলত, বাংলাদেশের আসন্ন জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে সম্প্রতি ১০ দিনের সফরে বাংলাদেশে আসে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) ছয় সদস্যের প্রাক নির্বাচন পর্যবেক্ষক প্রতিনিধিদল। এ সময় তারা বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের সঙ্গে বৈঠক করে। এরই প্রেক্ষিতে ইউটিউবে ইইউ প্রতিনিধি ডোনাল্ড লু’র বরাতে ‘প্রধানমন্ত্রী পদত্যাগ না করলে নির্বাচন হবে না’ শীর্ষক একটি দাবি প্রচার করা হয়। তবে অনুসন্ধানে দেখা যায়, ইইউ প্রতিনিধিদল এমন কোনো মন্তব্য করেনি বরং দুইজন ভিন্ন ভিন্ন ব্যক্তির ধারণকৃত আলাদা দুইটি ভিডিও যুক্ত করে চটকদার থাম্বনেইল তৈরি করে  উক্ত দাবিটি প্রচার করা হচ্ছে। এছাড়া যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়াবিষয়ক সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডোনাল্ড লু’র পরিচয়ও ভিডিওটিতে ভুলভাবে উপস্থাপন করে তাকে ইইউর প্রতিনিধি দাবি করা হয়েছে। 

সুতরাং, ইউটিউবে ইইউ প্রতিনিধি দলের বরাতে প্রধানমন্ত্রী পদত্যাগ না করলে নির্বাচন হবে না শীর্ষক দাবিতে একটি তথ্য দেশি-বিদেশি বিভিন্ন রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গের ছবির মাধ্যমে থাম্বনেইল তৈরি করে প্রচার করা হচ্ছে; যা সম্পূর্ণ মিথ্যা। 

 তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img