মাতেও লাহোজকে কি ফিফা শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে বাদ দিয়েছে?

সম্প্রতি “আর্জেন্টিনা–নেদারল্যান্ডস ম্যাচের রেফারি লাহোজকে বাড়ি পাঠিয়ে দিয়েছে ফিফা” শীর্ষক একটি তথ্য ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়েছে।

যা দাবি করা হচ্ছে

আর্জেন্টিনা ও নেদারল্যান্ডসের ম্যাচে মোট ১৯টি হলুদ কার্ড দেখানো মাতেও লাহোজকে ফিফার শৃঙ্খলা কমিটি বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বিশ্বকাপের পরবর্তী ম্যাচগুলো থেকে অব্যাহতি দেয়া হচ্ছে।

কিছু পোস্টে দাবি করা হয়েছে, এমিলিওয়ানো মার্টিনেজ ও লিওনেল মেসির অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় মাতেও লাহোজকে স্পেনের নিজ বাড়িতে পাঠিয়ে দিয়েছে ফিফা।

ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে

পোস্টগুলোর আর্কাইভ ভার্সন দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে

উল্লিখিতো দাবিগুলোতে দেশের মূলধারার গণমাধ্যম ইন্ডিপেন্ডেন্ট টিভি, নিউজ২৪, বাংলাদেশ প্রতিদিন, বাংলা নিউজ২৪, নয়াদিগন্ত, চ্যানেল২৪, বনিকবার্তা, প্রথম আলো, টিবিএস, বার্তা২৪, যমুনা টিভি, ইত্তেফাক, ঢাকা ট্রিবিউন, আমাদের সময়, জাগোনিউজ২৪, এনটিভি, চ্যানেল আই, ক্যাম্পাস লাইভ, বাংলাদেশ জার্নাল, ঢাকা পোস্ট, কালেরকণ্ঠ, ডেইলি অবজারভার (বাংলা), মানবজমিন, বাংলাদেশ টাইমস, ভোরের কাগজ, ঢাকা টাইমস, আরটিভি, ডেইলি বাংলাদেশ, বাংলা ট্রিবিউন, বাংলা ভিশন, বৈশাখী টিভি, পূর্ব পশ্চিম, একুশে টিভি, সময়ের কণ্ঠস্বর, ডিবিসি নিউজ, এবিনিউজ২৪, সময় টিভি, একাত্তর টিভি, অলরাউন্ডার, সমকাল, দৈনিক বাংলা, কালবেলা, প্যাভিলিয়ন, অবজারভার বিডি (ইংরেজি), সংবাদ প্রকাশ, নয়া শতাব্দী, জনকণ্ঠ, ঢাকা মেইল, আমার সংবাদ, বিবিএস বাংলা, প্রতিদিনের সংবাদ, বাংলা.২৪লাইভনিউজপেপার, যুগান্তর, দৈনিক আমাদের সময়, নাগরিক টিভি, দৈনিক করতোয়া, ইনকিলাব, বিডি মর্নিং, বিডি২৪লাইভ, দৈনিক শিক্ষা, সময়ের আলো, এসএ টিভি,দ্য ডেইলি ক্যাম্পাস, বাংলা ইনসাইডার, বিডি২৪রিপোর্ট,অধিকার এবং নিরাপদ নিউজে সংবাদ প্রচার করা হয়েছে।

উক্ত বিষয়ে দেশের মূলধারার গণমাধ্যম ডিবিসি, নাগরিক টিভি, বিজয় টিভি, সময় টিভি, যমুনা টিভি, জাগোনিউজ২৪, চ্যানেল২৪ এবং নিউজ২৪ এর ইউটিউব চ্যানেলে ভিডিও প্রতিবেদন প্রচার করা হয়েছে।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, লিওনেল মেসি এবং এমিলিয়ানো মার্টিনেজের অভিযোগের প্রেক্ষিতে ফিফার শৃঙ্খলা কমিটি কোনো বৈঠক করেনি এবং ফিফা মাতেও লাহোজকে বাড়ি পাঠিয়ে দেয়নি বরং বিশ্বকাপে নিজ দায়িত্ব পালন শেষে তিনি নিজেই স্পেনে ফিরে গিয়েছেন।

মাতেও লাহোজ সম্পর্কে এই তথ্য যেভাবে এসেছে

অনুসন্ধানে দেখা যায়, গত ১২ ডিসেম্বর ভোর ৪টা ১৮ মিনিটে স্প্যানিশ রেডিও নেটওয়ার্ক কোপ (Cope) এর সাংবাদিক ‘El Partidazo’ নিজের ভেরিফাইড টুইটার প্রোফাইলে করা একটি টুইটে জানায়, নেদারল্যান্ডস-আর্জেন্টিনার ম্যাচের পর বিশ্বকাপে মাতেউ লাহোজের অংশগ্রহণ শেষ। লাহোজ স্পেনে ফিরে এসেছেন। টুইটটির কমেন্টে উক্ত বিষয়ে কোপের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত বিস্তারিত প্রতিবেদনের লিংক দিয়েছেন তিনি।

Screenshot of a Tweet by @partidazocope

কোপের বিস্তারিত প্রতিবেদনেও একই কথা উল্লেখ করা হয়েছে। সাথে আরো বলা হয়েছে, ২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপে অংশগ্রহণের পর এটি (২০২২ বিশ্বকাপ) মাতেও লাহোজের শেষ বিশ্বকাপ। এটি তার শেষ বিশ্বকাপ অ্যাপয়েন্টমেন্ট হওয়া সত্ত্বেও, তিনি জার্মানিতে পরবর্তী ২০২৪ ইউরো কাপে থাকতে পারে। প্রতিবেদনটিতে নেদারল্যান্ডস বনাম আর্জেন্টিনা ম্যাচে মাতেও লাহোজের বিতর্কিত রেফারিং, লিওনেল মেসি এবং এমিলিয়ানো মার্টিনেজের অভিযোগের কথা তুলে ধরা হলেও প্রতিবেদনের কোথাও বলা হয়নি এসব কারণে ফিফা মাতেও লাহোজকে স্পেনে অর্থাৎ নিজ বাড়িতে ফেরত পাঠিয়েছে। বরং প্রতিবেদনে স্পষ্টভাবেই বলা আছে লাহোজ স্পেনে ফিরে এসেছেন। তাছাড়া এই প্রতিবেদনের কোথাও ফিফার শৃঙ্খলা কমিটি বৈঠকে মাতেও লাহোজের বিরুদ্ধে সিদ্ধান্ত দিয়েছেন এমন কিছু উল্লেখ করা নেই, এমনকি ফিফার শৃঙ্খলা কমিটি বৈঠক হয়েছে কি-না সে সম্পর্কেও এই প্রতিবেদনেও কোনো তথ্য দেওয়া নেই।

Screenshot Source: Cope

কোপের উক্ত প্রতিবেদনের বরাতে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ডেইলি মেইল অনলাইনে প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়। তবে কোপের প্রতিবেদন উল্লেখ থাকা ‘লাহোজ স্প্যানে ফিরে এসেছেন’ কথাটিকে পরিবর্তন করে ডেইলি মেইল তাদের প্রতিবেদনে ‘লাহোজকে বাড়ি পাঠিয়ে দিয়েছে’ শীর্ষক অতিরঞ্জিত শব্দচয়ন ব্যবহার করে। পরবর্তীতে ডেইলি মেইলের বরাতে বাংলাদেশের মূলধারার অধিকাংশ গণমাধ্যম ‘লাহোজকে আর্জেন্টিনা-নেদারল্যান্ডস ম্যাচের বিতর্কিত রেফারিংয়ের কারণে ফিফা লাহোজকে বাড়ি পাঠিয়ে দিয়েছে’ শীর্ষক দাবিতে সংবাদ প্রচার করে।

Screenshot Source: Dailymail

ফিফার শৃঙ্খলা কমিটি বৈঠকে কী মাতেও লাহোজের বিরুদ্ধে কোনো সিদ্ধান্ত হয়েছে? 

স্প্যানিশ স্পোর্টস সংবাদমাধ্যম মার্কা এর ওয়েবসাইটে গত ১১ ডিসেম্বর প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কাতার বিশ্বকাপে আর কোনো ম্যাচে রেফারিং করবেন না লাহোজ। তিনি আর বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করবেন না। তাই নেদারল্যান্ডস বনাম আর্জেন্টিনা কোয়ার্টার ফাইনাল ম্যাচটিই বিশ্বকাপে তার রেফারিং করা শেষ খেলা। সে ম্যাচে বিভিন্ন সমালোচনার সৃষ্টির কারণে তাকে আরও ম্যাচ রেফারির দায়িত্ব দেওয়া কঠিন হয়ে পরেছে। তবে, ফিফা টেকনিক্যাল সিদ্ধান্তে যেমনঃ পেনাল্টি, ফাউল ইত্যাদির ক্ষেত্রে ফিফা তার কর্মক্ষমতা অনুমোদন দিয়েছে।

Screenshot Source: Marca

তাছাড়া ফিফার ওয়েবসাইটে অনুসন্ধানের মাধ্যমে মাতেও লাহোজের বিরুদ্ধে ফিফার শৃঙ্খলা কমিটির করা কোনো বৈঠকের তথ্য পাওয়া যায়নি। বরং নেদারল্যান্ডস বনাম আর্জেন্টিনা ম্যাচের পর আর্জেন্টিনা আর্টিকেল ১২ (খেলোয়াড় ও দলের অফিসিয়ালদের অসদাচরণ) ও আর্টিকেল ১৬ (খেলার নিরাপত্তা এবং শৃঙ্খলা) লঙ্ঘন করেছে কি না, তা বিচার করতে তদন্তে নামার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ফিফা শৃঙ্খলামূলক কমিটি। একই ম্যাচে ফিফার ডিসিপ্লিনারি কোড ভাঙার অভিযোগে ডাচ ফুটবল এসোসিয়েশনের বিরুদ্ধেও আর্টিকেল ১২-এর অধীনে তদন্ত কমিটি গঠিত হয়েছে।

Screenshot Source: The Athletic

অর্থাৎ, “ফিফার শৃঙ্খলা কমিটি বৈঠকে মাতেও লাহোজের বিরুদ্ধে সিদ্ধান্ত হওয়ায় তাকে বিশ্বকাপের পরবর্তী ম্যাচগুলো থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে” শীর্ষক দাবিটির কোনো সত্যতা নেই। 

বিশ্বকাপে কী শুধু মাতেও লাহোজের রেফারিং শেষ হয়েছে?

ফিফা বিশ্বকাপ শুরুর আগে এবারের বিশ্বকাপের জন্য ফিফা ৩৬ জন মূল রেফারি, ৬৯ জন অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারি এবং ২৪ জন ভিডিও ম্যাচ অফিশিয়ালের তালিকা প্রকাশ করেছিলো। তবে গত ১২ ডিসেম্বর স্প্যানিশ স্পোর্টস সংবাদমাধ্যম মার্কার একটি প্রতিবেদনে, কাতার বিশ্বকাপে আর ১২ জন মূল রেফারি অবশিষ্ট থাকার কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

Screenshot Source: Marca

উক্ত সূত্র ধরে অনুসন্ধানের মাধ্যমে রেফারিং ওয়ার্ল্ড নামের একটি ব্লগ ওয়েবসাইটে গত ১১ ডিসেম্বর “FIFA World Cup 2022 Referees (Second Release)” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি নিবন্ধ খুঁজে পাওয়া যায়। নিবন্ধটিতে কোয়ার্টার ফাইনাল শেষে বাদ যাওয়া এবং অবশিষ্ট রেফারির একটি তালিকা প্রদান করা হয়েছে। এই ওয়েবসাইটের বিশ্বকাপে অবশিষ্ট রেফারির তালিকাতেও মার্কার প্রতিবেদনে উল্লেখ করা ১২ জন মূল রেফারির নাম দেখা যায়। তাছাড়া কোয়ার্টার ফাইনাল শেষে বাদ যাওয়া রেফারির তালিকায় মাতেও লাহোজের পাশাপাশি আরও ৭ জন রেফারির নাম দেখা যায়। যাদের মধ্যে মরক্কো বনাম পর্তুগাল ম্যাচের আর্জেন্টাইন রেফারি ফ্যাকুন্ডো টেলোও রয়েছে।

একই ব্লগ ওয়েবসাইটে গত ০৭ ডিসেম্বর “FIFA World Cup 2022 Referees (First Release)” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি নিবন্ধ পাওয়া। সেদিন অর্থাৎ ৭ ডিসেম্বর বিশ্বকাপের রাউন্ড অফ সিক্সটিন বা দ্বিতীয় পর্ব শেষ হয়েছিলো। যার ফলে প্রতীয়মান এটি বিশ্বকাপের দ্বিতীয় পর্ব শেষের পর বিশ্বকাপ থেকে বাদ যাওয়া এবং অবশিষ্ট রেফারির তালিকা। 

বিষয়টি অধিকতর নিশ্চিতের জন্য অনুসন্ধান করে রিউমর স্ক্যানার টিম। উক্ত ব্লগ ওয়েবসাইটে উল্লেখ করা বিশ্বকাপের দ্বিতীয় পর্ব শেষে বাদ যাওয়া রেফারির তালিকা থেকে ইরানী রেফারি ‘Alireza Faghani’ এর নাম অনুসন্ধান করে তার নিজ ইন্সটাগ্রাম প্রোফাইল থেকে গত ৭ ডিসেম্বর প্রকাশিত একটি পোস্ট খুঁজে পাওয়া যায়। পোস্টটিতে তিনি উল্লেখ করেছে সেদিন (৭ ডিসেম্বর) কাতার বিশ্বকাপে তার উপস্তিতির শেষ দিন। 

Screenshot of Instagram post by @alirezafaghani__

অন্যদিকে, তালিকায় থাকা অবশিষ্ট রেফারিদের মধ্যে কোয়ার্টার ফাইনালে মাতেও লাহোজ আর্জেন্টিনা বনাম নেদারল্যান্ড ম্যাচ এবং ফ্যাকুন্ডো টেলো পর্তুগাল বনাম মরক্কো ম্যাচ পরিচালনা করেছিলেন।

উক্ত বিষয়গুলোর ভিত্তিতে রেফারিং ওয়ার্ল্ড নামের উক্ত ব্লগ ওয়েবসাইটে প্রদানকৃত তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত হয়।

উল্লেখ্য, উক্ত রেফারিং ওয়ার্ল্ড ব্লগসাইটে ২০১৮ বিশ্বকাপের সময়েও নির্দিষ্ট পর্বের পর বাদ যাওয়া রেফারির তালিকা রয়েছে। 

সুতরাং, শুধু মাতেও লাহোজ নয়, আরো অনেক রেফারিকেই বিশ্বকাপের নির্দিষ্ট পর্ব শেষে বাদ দেওয়া হয়েছে। বিশ্বকাপ শুরুর আগে ফিফা সর্বমোট ৩৬ জন রেফারি, ৬৯ জন অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারি এবং ২৪ জন ভিডিও ম্যাচ অফিশিয়ালের তালিকা প্রকাশ করেছে। বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্ব, রাউন্ড অফ সিক্সটিন এবং কোয়ার্টার ফাইনাল শেষ। বাকি রয়েছে দুইটি সেমি ফাইনালের ম্যাচ, তৃতীয় স্থান নির্ধারনী ম্যাচ এবং ফাইনাল। অর্থাৎ, সব মিলিয়ে ৪টি ম্যাচ বাকি রয়েছে। এই কয়েকটি ম্যাচ পরিচালনা করার জন্য এত সংখ্যক রেফারির প্রয়োজন নেই তাই স্বাভাবিক ভাবেই কিছু রেফারি পর্যায়ক্রমে বাদ দেওয়া হয়েছে।

মূলত, ফিফা বিশ্বকাপ-২০২২ এর শুরুতে ৩৬ জন মূল রেফারির তালিকা প্রকাশ করেছিলো ফিফা। বিশ্বকাপের নির্দিষ্ট পর্বের পর কিছু রেফারিকে পর্যায়ক্রমে বাদ দেওয়া হয়েছে। এই প্রেক্ষাপটে বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনাল পর্বের পর কিছু রেফারিকে বাদ দিয়ে সেমিফাইনাল ও ফাইনাল পরিচালনার জন্য ১২জন মূল রেফারি রাখা হয়। বাদ দেওয়া রেফারিদের মধ্যে মধ্যে আর্জেন্টিনা বনাম নেদারল্যান্ডস ম্যাচের স্পেনিশ রেফারি মাতেও লাহোজও রয়েছে। উক্ত বিষয় নিয়ে স্প্যানিশ রেডিও Cope ‘বিশ্বকাপে মাতেও লাহোজের দায়িত্ব শেষ এবং তিনি স্পেনে ফিরেছেন’ শীর্ষক একটি সংবাদ প্রচার করে। তবে উক্ত সংবাদকে বিকৃত করে ‘এমি-মেসির অভিযোগের প্রেক্ষিতে হওয়া ফিফার শৃঙ্খলা কমিটি বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বিশ্বকাপের পরবর্তী ম্যাচগুলো থেকে মাতেও লাহোজকে অব্যাহতি দিয়ে বাড়ি পাঠিয়ে দিয়েছে’ শীর্ষক দাবি বাংলাদেশী গণমাধ্যম ও ফেসবুকে প্রচার করা হয়। তবে Cope এর উক্ত প্রতিবেদনে এমন কিছু উল্লেখ নেই এবং রিউমর স্ক্যানারের অনুসন্ধানেও ফিফা শৃঙ্খলা কমিটির এমন কোনো সিদ্ধান্তের তথ্য পাওয়া যায়নি।

প্রসঙ্গত, চলমান কাতার ফুটবল বিশ্বকাপকে কেন্দ্র করে একাধিক গুজব ছড়িয়ে পড়ার প্রেক্ষিতে একাধিক ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে রিউমর স্ক্যানার।

সুতরাং, মাতেও লাহোজকে বিতর্কিত রেফারিংয়ের কারণে শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে কাতার বিশ্বকাপ হতে অব্যাহতি দিয়েছে ফিফা শীর্ষক দাবিতে প্রচারিত তথ্যটি বিভ্রান্তিকর।

তথ্যসূত্র

RS Team
RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img