রবিবার, জুলাই 21, 2024
spot_img

নেপাল সম্প্রতি ভারতীয় টিভি চ্যানেলের সম্প্রচার বন্ধ করেনি 

সম্প্রতি, নেপাল তাদের দেশে ভারতীয় সকল টিভি চ্যানেলের সম্প্রচার বন্ধ করে দিয়েছে শীর্ষক একটি দাবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম প্রচার করা হয়েছে।

ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ)।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, নেপাল সম্প্রতি তাদের দেশে ভারতীয় টিভি চ্যানেলের সম্প্রচার বন্ধ করেনি বরং, দেশটিতে সম্প্রতি এমন কোনো ঘটনা ঘটেনি বলে সংশ্লিষ্টরা রিউমর স্ক্যানারকে নিশ্চিত করেছেন। 

এই বিষয়ে অনুসন্ধানের শুরুতে নেপাল এবং আন্তর্জাতিক কোনো গণমাধ্যমে এ সংক্রান্ত কোনো সংবাদ বা তথ্য মেলেনি। নেপালে ভারতীয় চ্যানেলের সম্প্রচার বন্ধ হলে ভারতীয় গণমাধ্যমেও খবর প্রকাশিত হতো। কিন্তু দেশটির কোনো গণমাধ্যমেই এ সংক্রান্ত কোনো খবর প্রকাশিত হয়নি। 

রিউমর স্ক্যানার বিষয়টি নিশ্চিত হতে নেপালের ডিশ মিডিয়া নেটওয়ার্কের ম্যানেজিং ডিরেক্টর সুদীপ্ত আচার্যের সাথে কথা বলেছে। তিনি আমাদের জানান, নেপালে ভারতীয় চ্যানেল ব্যান হওয়ার দাবি সত্য নয়। 

আমরা অনুসন্ধানে দেখেছি, ২০১৫ সালে নেপালের নতুন সংবিধানকে ঘিরে ভারতের সমালোচনা এবং নিরাপত্তার কারণে দেখিয়ে নেপালের পণ্য আটকে রাখার প্রতিবাদে নেপালের ক্যাবল টেলিভিশন অপারেটররা ৪২টি ভারতীয় স্যাটেলাইট চ্যানেলের সম্প্রচার বন্ধ করে দিয়েছিল। একইভাবে ২০২০ সালে ভারতীয় মিডিয়াতে নেপালের সরকার ও প্রধানমন্ত্রী কে.পি. শর্মা অলি’র বিরুদ্ধে আপত্তিজনক মন্তব্য প্রচার করায় ভারতীয় বেসরকারি টিভি নিউজ চ্যানেলের সম্প্রচার বন্ধ করে দিয়েছিল নেপালের ক্যাবল টেলিভিশন অপারেটররা। পরবর্তীতে কেবল অপারেটরদের একটি সভায় ভারতীয় নিউজ চ্যানেলের ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, তবে কয়েকটি নিউজ চ্যানেল এখনও নেপালে নিষিদ্ধ থাকবে বলে টেলিভিশন অপারেটরদের সমিতির সহ-সভাপতি ধ্রুব শর্মা সাংবাদিকদের জানান।

আমরা বিষয়গুলো জনাব সুদীপ্ত আচার্যের নজরে এনেছিলাম। তার দাবি, “নেপালে কখনোই ভারতীয় চ্যানেল ব্যান হয়নি। তিনি বলছেন, “২০২০ সালেও ব্যানের ঘটনা ঘটেনি। সে সময় ক্লিন ফিড ব্যবস্থা চালুর কারণে ভারতীয় চ্যানেলগুলোর ক্ষেত্রে কিছু সময়ের জন্য মানিয়ে নিতে সমস্যা হয়েছিল।”

অতীতের এই ঘটনাগুলো নিয়ে মিশ্র বক্তব্য থাকলেও সুদীপ্ত আচার্য এটা নিশ্চিত করছেন যে, সম্প্রতি এমন কোনো ঘটনা ঘটেনি। 

এই বিষয়ে আরো জানতে রিউমর স্ক্যানার নেপালের ফ্যাক্টচেকিং প্রতিষ্ঠান ‘নেপাল ফ্যাক্টচেক’ এর সম্পাদক  উমেশ শ্রেষ্ঠর সাথেও কথা বলেছে। উমেশ আমাদের বলেছেন, “নেপালে সম্প্রতি এমন কোনো ঘটনা ঘটার দাবি মিথ্যা। আমরা আগের মতোই ভারতীয় চ্যানেল দেখতে পারছি।”

একই তথ্য দিয়েছেন দেশটির আরেক ফ্যাক্টচেকিং প্রতিষ্ঠান ‘নেপাল চেক’ এর সম্পাদক দীপক অধিকারী। তিনি রিউমর স্ক্যানারকে বলেছেন, “নেপাল সরকার ভারতীয় কোনো চ্যানেল বন্ধ করেনি।”

মূলত, সম্প্রতি নেপালে ভারতীয় চ্যানেলের সম্প্রচার বন্ধ করা হয়েছে শীর্ষক একটি দাবি ব্যাপকভাবে ইন্টারনেটে প্রচার করা হচ্ছে। এর প্রেক্ষিতে রিউমর স্ক্যানার অনুসন্ধান করে দেখেছে, এই দাবিটি সঠিক নয়। নেপালে সাম্প্রতিক সময়ে এমন কোনো ঘটনাই ঘটেনি যা দেশটির ডিশ মিডিয়া সংশ্লিষ্ট একজন উর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং একাধিক ফ্যাক্টচেকার রিউমর স্ক্যানারকে নিশ্চিত করেছেন। 

সুবতরাং, নেপাল সম্প্রতি তাদের দেশে ভারতীয় সকল টিভি চ্যানেল বন্ধ করে দিয়েছে শীর্ষক একটি দাবি ইন্টারনেটে প্রচার করা হচ্ছে; যা সম্পূর্ণ মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img