অতি গরমে ঠান্ডা পানি পান করলে স্ট্রোক হওয়ার সম্ভাবনা নেই

সম্প্রতি “অতি গরমে ঠান্ডা পানি পান পরিহার করুন। খুব ঠান্ডা পানি পান করলে রক্তনালী সংকোচিত হয়ে স্ট্রোক হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি থাকে” শীর্ষক দাবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক প্রচার করা হচ্ছে।

স্ট্রোক

উক্ত দাবিতে ২০২৩ সালে গণমাধ্যমের কিছু সংবাদ দেখুন বাংলানিউজ২৪, বাংলানিউজ২৪ (ইংরেজি), নিউজ২৪। 

উক্ত দাবিতে ফেসবুকে প্রচারিত কিছু পোস্ট দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এখানে (আর্কাইভ) , এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)। 

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, তীব্র গরমে ঠান্ডা পানি পান করলে স্ট্রোক হওয়ার দাবিটি সঠিক নয়৷ তবে, অতিরিক্ত ঠান্ডা পানি পান করলে গলায় ব্যথা, পেট ব্যথা, মাথা ব্যথার মতো অস্বস্তি হতে পারে৷ তাছাড়া, হৃৎপিণ্ডের রোগে আক্রান্ত মানুষদের জন্য বিপজ্জনক হতে পারে। তবে, সুস্থ স্বাভাবিক মানুষ গরমকালে ঠান্ডা পানি পান করলে স্ট্রোক হওয়ার পক্ষে কোনো বৈজ্ঞানিক প্রমাণ নেই।

অনুসন্ধানের শুরুতে এ বিষয়ে সিঙ্গাপুরের কাইজেন মেডিক্যাল এর একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়। সেখানে উল্লেখ করা হয়, ‘গরম আবহাওয়ায় অতিরিক্ত ঠান্ডা পানি খেলে স্ট্রোক হওয়ার পক্ষে কোনো বৈজ্ঞানিক প্রমাণ নেই। তবে, অত্যন্ত ঠান্ডা পানি খেলে গলার শিরা, ধমনীতে সাময়িক সংকোচন ঘটাতে পারে যার ফলে অস্বস্তি বা ব্যথা অনুভব হতে পারে। এটি হৃদপিন্ডের রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের জন্য বিপজ্জনক হতে পারে। এজন্য গরম আবহাওয়ায় হাইড্রেটেড থাকতে এবং সম্ভাব্য অস্বস্তি এড়াতে সহনীয় তাপমাত্রায় পানি পান করতে উৎসাহিত করা হয়। এছাড়া গরমকালে ঠান্ডা পানি খেলে স্ট্রোক হওয়ার পক্ষে কোনো বৈজ্ঞানিক প্রমাণ নেই। প্রকৃতপক্ষে ঠান্ডা পানির বেশ কিছু উপকারিতা রয়েছে। যেমন: প্রদাহ কমানো, সংবহনের উন্নতি এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার উন্নতিসাধন।’

আলোচিত বিষয়ে ইন্ডিয়া টিভি’র ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদনে ফরিদাবাদের এশিয়ান হাসপাতালের প্রধান খাদ্যনির্বাচন বিশেষজ্ঞ ডক্টর কোমাল মালিকের বরাতে জানানো হয়, ‘গরমকালে ঠান্ডা পানি খেলে তা স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর, এমন দাবির পক্ষে কোনো বৈজ্ঞানিক অকাট্য প্রমাণ নেই। তবে, অনেক সময় অতিরিক্ত ঠান্ডা পানি পান করার ফলে গলায় যন্ত্রণা হয় এবং সংক্রমণের সম্ভাবনা বাড়ে। তবে, এখন পর্যন্ত কোনো গবেষণা শরীরের জন্য ঠান্ডা পানি পান করাকে ক্ষতিকর বলে প্রমাণ করে নি। গরমকালে ঠান্ডা পানি এবং স্বাভাবিক তাপমাত্রার পানি দুটোই শরীরকে হাইড্রেটেড রাখে।’

এ বিষয়ের সত্যতা যাচাইয়ের জন্য ঢাকার শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজের নিউরোলজি বিভাগের প্রধান ইব্রাহিম খলিলের সাথে যোগাযোগ করা হলে রিউমর স্ক্যানারকে তিনি জানান, “এমন কোনো রিসার্চ বা ডকুমেন্ট নেই যে যা দেখে এমন দাবি করার সুযোগ আছে। সুতরাং, আমরা এটা বলতে পারি না যে এটা করলে স্ট্রোক হতে পারে।”

একই বিষয়ে ইউনিভার্সিটি অফ শেফিল্ডের পিএইচডি গবেষক ডা. মারুফুর রহমান অপুকে উক্ত দাবিতে প্রচারিত একটি ভিডিও দেখিয়ে সত্যতা জানতে চাওয়া হলে তিনিও একই কথা জানান। তিনি জানান, “ভিডিওটা দেখলাম। ভুল তথ্য। তীব্র গরমে ঠান্ডা পানি খেলে স্ট্রোক হবার ঝুঁকির সম্ভাবনার পক্ষে কোন প্রমান নেই এবং সেটা হবার পক্ষে কোন প্লজিবল এক্সপ্লানেশনও দাড়া করানো সম্ভব না।”

গরমকালে ঠান্ডা পানি পান করলে স্ট্রোক হতে পারে, মর্মে প্রচারিত দাবিটি বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়েছে। ফলশ্রুতিতে বেশ কিছু আন্তর্জাতিক ফ্যাক্ট চেকিং প্রতিষ্ঠানও এই বিষয়ে ফ্যাক্টচেকিং প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

ভারতীয় ফ্যাক্ট চেকিং প্রতিষ্ঠান The Quint এর প্রতিবেদনে ইন্দ্রপ্রস্থ অ্যাপোলো হাসপাতালের ইন্টার্নাল মেডিসিনের সিনিয়র কনসাল্টেন্ট ডক্টর সুরঞ্জিত চ্যাটার্জিকে উদ্ধৃত করে বলা হয়, গরম আবহাওয়ায় বাইরে থেকে আসার পর ঠান্ডা পানি পান করা বেশ প্রলুব্ধকর কিন্তু সমীচীন নয়। তবে, এটি বিপজ্জনকও নয়। তিনি বলেন, “আদর্শত ৪২, ৪৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের উচ্চ তাপমাত্রায় ঠান্ডা পানি পান করা আপনার উচিত নয় যেহেতু আপনার শরীর ঠান্ডার সাথে অভিযোজিত হবে না – কিন্তু এটি বিপজ্জনক নয়, কোনো রক্তনালী ফাটবে না।”

ফিলিপাইনের ফ্যাক্ট চেকিং প্রতিষ্ঠান Vera Files এর ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদনে ফিলিপাইন নিউরোলজিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি নিউরোলজিস্ট জোসে প্যাসিয়ানো রেয়াসের সাথে ইমেইল সাক্ষাৎকার প্রকাশ করে৷ সেখানে রেয়াস জানান, “ঠান্ডার সংস্পর্শে আসলে রক্তনালী বিস্ফোরিত হয় না।” রেয়াস বলেন, ঠান্ডা পানি পান করা বা ঠান্ডা পানিতে গোসল করা “স্বাস্থ্যবান মানুষদের জন্য সাধারণত কোনো সমস্যা নয়”। তিনি আরো বলেন, শরীরকে ঠান্ডা করা, অত্যধিক গরম রোধ করা এবং প্রদাহ কমানোসহ এটির কিছু উপকারিতা আছে।

তবে, রেয়াস সতর্ক করেছেন, ঠান্ডা পানি পান করা বা এতে গোসল করা হৃৎপিন্ডের রোগীদের জন্য ভালো নাও ঠেকতে পারে। 

মার্কিন ফ্যাক্টচেকিং প্রতিষ্ঠান Snopes এর ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদনে উঠে এসেছে, তীব্র গরমে ঠান্ডা পানি পান করলে শরীরে শক দেখা দিতে পারে তবে এটি অত্যন্ত বিরল। মেডিক্যাল বিশেষজ্ঞদের মতে, এমনটা হওয়ার সবচেয়ে বেশি সম্ভাবনাময় কারণ হতে পারে ডিহাইড্রেশন, তাপ অবসাদ, নিম্ন ব্লাড সুগারের মতো অবস্থা বা অজানা অন্য কোনো অন্তর্নিহিত মেডিক্যাল অবস্থা। 

ভারতীয় প্রতিষ্ঠান থিপ মিডিয়ার ফ্যাক্টচেকিং বিভাগকে দেয়া বিবৃতিতে, মণিপাল হাসপাতাল মাইসোরের দুর্ঘটনা ও জরুরি বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত ও পরামর্শদাতা ডাঃ প্রদীপ রাজান্না এ বিষয়ে বলেন, “এটি সম্ভব নয়। গরম পরিবেশ থেকে এসে ঠান্ডা পানি পানের সাথে স্ট্রোকের কোনো সম্পর্ক নেই।”

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম Onmanorama কর্তৃক প্রকাশিত ফ্যাক্টচেকিং প্রতিবেদনে কোট্টিয়ামের হলি ক্রস স্পেশালটি হসপিটালের একজন মেডিসিন এক্সপার্ট ডক্টর অথুরা দাস তার বিবৃতিতে পরিষ্কার করে বলেন, সূর্যের সংস্পর্শ থেকে এসে ঠান্ডা পানি পান করার ফলে হার্ট অ্যাটাক বা হার্ট স্ট্রোক ঘটবে না। আলাদা আবহাওয়া অবস্থা ও তাপমাত্রায় খাপ খাইয়ে নিতে শরীরের সহজাত সক্ষমতা আছে। তবে, অতিরিক্ত ঠান্ডা জাতীয় কিছু পান করার পূর্বে কিছুক্ষণ বিশ্রাম নেওয়া উত্তম। যখন গরম আবহাওয়ায় আপনি ঠান্ডা পানি পান করবেন, পাকস্থলীর রক্তনালী তৎক্ষনাৎ সংকোচিত হতে পারে, ফলশ্রুতিতে পেট ব্যথা বা মাথা ব্যথা হতে পারে, কিন্তু এটি স্ট্রোকের সাথে সম্পর্কিত নয়।

মূলত, তীব্র গরমে ঠান্ডা পানি পান করলে গলায় ব্যথা, পেট ব্যথা, মাথা ব্যথার মতো অস্বস্তি হতে পারে। কেউ হয়তো শকে যেতে পারে, যদিও এটি অত্যান্ত বিরল। তবে সুস্থ কোনো ব্যক্তির ক্ষেত্রে তীব্র গরমে ঠান্ডা পানি পান করা স্ট্রোক হওয়ার মতো বিপজ্জনক নয় মোটেও। আর, যদি কারোর অন্য কোনো রোগ থাকে যেমন হৃৎপিণ্ডের রোগ সেক্ষেত্রে উক্ত ব্যক্তির ক্ষেত্রে বিপজ্জনক হতে পারে। কোনো সুস্থ ব্যক্তির ক্ষেত্রে রক্তনালী ফেটে স্ট্রোক হওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই। 

সুতরাং, প্রচন্ড গরমে ঠান্ডা পানি পান করলে স্ট্রোক হতে পারে শীর্ষক দাবিটি মিথ্যা। 

নোট: এই প্রতিবেদনটি লিখতে রিউমর স্ক্যানার টিমকে গবেষণায় সহায়তা করেছেন শাহ রিয়াজুর রহমান রাজ।

তথ্যসূত্র

RS Team
RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img