যমুনা টিভির ফটোকার্ড নকল করে পরীমনির সন্তানকে জড়িয়ে ভুয়া তথ্য প্রচার

সম্প্রতি, চিত্র নায়িকা “পরীমনির সন্তান বড় হয়ে সাংবাদিক হতে চায়।’’ শীর্ষক শিরোনামে বেসরকারি ইলেকট্রনিক সংবাদমাধ্যম যমুনা টেলিভিশন এর ডিজাইন সম্বলিত একটি ফটোকার্ড ইন্টারনেটে প্রচার করা হয়েছে।”

উক্ত দাবিতে ফেসবুকে প্রচারিত পোস্ট দেখুন এখানে (আর্কাইভ)

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, চিত্র নায়িকা পরীমনির সন্তানকে জড়িয়ে মূলধারার ইলেকট্রনিক সংবাদমাধ্যম যমুনা টিভি বা অন্য কোনো গণমাধ্যম কোনো প্রতিবেদন বা ফটোকার্ড  প্রকাশ করেনি। প্রকৃতপক্ষে, যনুনা টিভির ফেসবুক পেজে প্রচারিত ফটোকার্ড ডিজিটাল প্রযুক্তির সহায়তায় সম্পাদনার মাধ্যমে আলোচিত ফটোকার্ডটি তৈরি করা হয়েছে। 

অনুসন্ধানের শুরুতে আলোচিত ফটোকার্ডটি পর্যবেক্ষণ করে রিউমর স্ক্যানার টিম। পর্যবেক্ষনে দেখা যায়, ফটোকার্ডটিতে যমুনা টিভির লোগো এবং এটি  প্রকাশের তারিখ হিসেবে ১৪ জুন, ২০২৪ তারিখের কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

উক্ত তথ্যের সূত্র ধরে যমুনা টিভি‘র ভেরিফাইড ফেসবুক পেজে প্রচারিত ফটোকার্ডগুলো পর্যালোচনা করে উক্ত শিরোনাম সম্বলিত কোনো ফটোকার্ড খুঁজে পাওয়া যায়নি। এছাড়াও যমুনা টিভি’র ওয়েবসাইট, ইউটিউব চ্যানেল বা অন্য কোনো গণমাধ্যমেও উক্ত দাবির বিষয়ে কোনো সংবাদ খুঁজে পাওয়া যায়নি। আলোচিত ফটোকার্ডের সাথে যমুনা টিভির পেজে প্রচারিত ফটোকার্ডের গ্রাফিক্যাল ডিজাইনের মিল থাকলেও আলোচিত ফটোকার্ডের শিরোনামে ব্যবহৃত ফন্টের সাথে যমুনা টিভির সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম অ্যাকাউন্টগুলোতে প্রচারিত ফটোকার্ডের পার্থক্য পরিলক্ষিত হয়।

Comparison: Rumor Scanner 

অর্থাৎ, ‘পরীমনির সন্তান বড় হয়ে সাংবাদিক হতে চায়’ শীর্ষক শিরোনামে যমুনা টিভি কোনো ফটোকার্ড প্রকাশ করেনি। গত ১৪ জুন যমুনা টিভির ফেসবুক পেজে প্রকাশিত একটি ফটোকার্ড নকল করে আলোচিত ফটোকার্ডটি তৈরি করা হয়েছে।

এছাড়াও, দাবি সংক্রান্ত কি-ওয়ার্ড অনুসন্ধান করে দেশের শীর্ষ স্থানীয় গণমাধ্যমে ‘পরীমনি সাংবাদিক হতে চান’ শিরোনামে কিছু সংবাদ (, ) খুঁজে পাওয়া যায়। মূলত, এটিএন বাংলার রঙিন গল্প নামের একটি অনুষ্ঠানে সঞ্চালক সাজু খাদেমের প্রশ্নের উত্তরে অনুষ্ঠানের ৯ মিনিট ৪৪ সেকেন্ডে পরীমনি সাংবাদিক হওয়ার ইচ্ছা পোষণ করেন।

আলোচিত ফটাকার্ড প্রচার করা পেজ সম্পর্কে যা জানা গেল

Joni Sing নামের পেজটি বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, ২০২৩ সালের ১৭ নভেম্বর পেজটি চালুর পর এখন পর্যন্ত একাধিকবার নাম পরিবর্তন করা হয়েছে। শুরুতে ‘৭১’ চেতনা – Ekattor Catona’ নাম দেওয়া হলেও চলতি বছরের জানুয়ারিতে নাম বদলে রাখা হয় ‘Binodon – বিনোদন’। পরবর্তীতে গত ২২ মার্চ পেজটির নাম বদলিয়ে করা হয় ‘Tanha’। সর্বশেষ আজ ১৫ জুন বর্তমান নাম রাখা হয়। পেজটি মালয়েশিয়া থেকে একজন ব্যক্তি পরিচালনা করছেন। সাম্প্রতিক সময়ে উক্ত পেজ থেকে প্রচারিত একাধিক ভুয়া খবর(, ২, ৩) শনাক্ত করে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে রিউমর স্ক্যামার।

মূলত, সাম্প্রতিক সময়ে Joni Sing নামের একটি ফেসবুকে পেজে ‘পরীমনির সন্তান বড় হয়ে সাংবাদিক হতে চায়’ শীর্ষক শিরোনামে যমুনা টিভির ডিজাইনের আদলে একটি ফটোকার্ড প্রচার করা হয়েছে। তবে অনুসন্ধানে জানা যায়, যমুনা টেলিভিশন কিংবা অন্যকোনো কোনো গণমাধ্যম এরূপ কোনো ফটোকার্ড বা সংবাদ প্রকাশ করেনি এবং অভিনেত্রী পরীমনি বা তার ছেলেও এমন কোনো মন্তব্য করেননি। ফটোকার্ডটি পর্যবেক্ষণ করে দেখা যায়, এটি যমুনা টিভির ফেসবুক পেজে প্রচারিত ফটোকার্ডের ডিজাইন নকল করে তৈরি করা হয়েছে। ফটোকার্ডটিতে যমুনা টিভির আদলে গ্রাফিক্যাল ডিজাইনের পাশাপাশি তারিখ উল্লেখ করা হলেও ফটোকার্ডের শিরোনামে ব্যবহৃত ফন্টটি যমুনা টিভির প্রচারিত ফটোকার্ডের ফন্টের সাথে মিল নেই। 

সুতরাং, ‘পরীমনির সন্তান বড় হয়ে সাংবাদিক হতে চায়’ শীর্ষক শিরোনামে প্রচারিত মন্তব্যটি বানোয়াট এবং উক্ত দাবিতে যমুনা টিভির নামে প্রচারিত ফটোকার্ডটি এডিটেড বা সম্পাদিত।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img