রবিবার, জুলাই 21, 2024
spot_img

কেবল নির্দিষ্ট শ্রেণির শিক্ষার্থীই নয়, মাউশি ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন সকল প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরাই অনুদান পাবে

সম্প্রতি, “ব্রেকিং নিউজ এইচএসসি, অনার্স, মাস্টার্স শিক্ষার্থীরা পাবে ১০ হাজার টাকা সহায়তা আবেদন শুরু ৪ ই ফেব্রুয়ারি” শীর্ষক দাবিতে একটি তথ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হচ্ছে। 

অনুদান

ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, কেবল এইচএসসি, অনার্স ও মাস্টার্স শিক্ষার্থীরাই অনুদান পাবেনা। প্রকৃতপক্ষে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের (মাউশি) ওয়েবসাইটে প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ এবং শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের আওতাধীন যেকোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী অনুদানের জন্য আবেদন করতে পারবে। তবে অনুদান প্রদানের ক্ষেত্রে দুস্থ, প্রতিবন্ধী, অসহায়, রোগগ্রস্ত, গরীব, মেধাবী ও অনগ্রসর এলাকার ছাত্রছাত্রীদের অগ্রাধিকার প্রদান করা হবে। পাশাপাশি উক্ত আবেদন এর জন্য কোনো ফি এর প্রয়োজন নেই। 

দাবিটি নিয়ে অনুসন্ধানের শুরুতে আলোচিত পোস্টগুলো পর্যবেক্ষণ করে রিউমর স্ক্যানার টিম। উক্ত পোস্টগুলোতে (আর্কাইভ) তথ্যসূত্র হিসেবে ‘শিক্ষাবার্তা’ নামক একটি পেজের নাম উল্লেখ পাওয়া যায়। 

উক্ত সূত্র ধরে অনুসন্ধানে ‘শিক্ষাবার্তা’ নামক পেজে “ব্রেকিং নিউজ এইচএসসি, অনার্স, মাস্টার্স শিক্ষার্থীরা পাবে ১০ হাজার টাকা অনুদান আবেদন শুরু” শীর্ষক তথ্য সম্বলিত একটি পোস্ট (আর্কাইভ) খুঁজে পাওয়া যায়। 

Screenshot College : Rumor Scanner 

উক্ত পোস্টের কমেন্ট সেকশনে আবেদন করার জন্য শিক্ষার্থীদের পেজটিতে মেসেজ দেওয়ার জন্য বলা হয়েছে এবং আবেদনকরার ক্ষেত্রে ফি প্রযোজ্য বলে উল্লেখ করা হয়েছে। এছাড়া মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের (মাউশি) একটি বিজ্ঞপ্তি ও ওয়েবসাইট লিংকও যুক্ত করা দেওয়া হয়েছে। 

পরবর্তীতে বিজ্ঞপ্তিটিতে থাকা তথ্যের সূত্র ধরে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের ওয়েবসাইটে গত ২৪ জানুয়ারি মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের বাজেট অধিশাখার যুগ্মসচিব নূর-ই আলমের স্বাক্ষরিত অনুরূপ বিজ্ঞপ্তিটি খুঁজে পাওয়া যায়।

উক্ত বিজ্ঞপ্তিতে অনুদান দেওয়ার ক্ষেত্রে কিছু শর্তের উল্লেখ করে বলা হয়, ২০২৩-২৪ অর্থ বছরের পরিচালন বাজেট থেকে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ (মাউশি)  শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, শিক্ষক-কর্মচারী ও ছাত্র-ছাত্রীদের বিশেষ অনুদান দেওয়া হবে।

বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখিত শর্ত অনুযায়ী সরকারি বা বেসরকারি সাধারণ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের (এম.পি.ও ভুক্ত ও নন এম.পি.ও. ভুক্ত) ছাত্র- ছাত্রীরা দুরারোগ্য ব্যধি, দৈব দুর্ঘটনা এবং শিক্ষা গ্রহণ কাজে ব্যয়ের জন্য আবেদন করতে পারবেন। এ অনুদান প্রদানের ক্ষেত্রে দুস্থ, প্রতিবন্ধী, অসহায়, রোগগ্রস্থ, গরীব, মেধাবী ও অনগ্রসর এলাকার ছাত্র-ছাত্রীদের অগ্রাধিকার প্রদান করা হবে তবে বিজ্ঞপ্তির কোথাও কোনো নির্দিষ্ট শ্রেণি অর্থাৎ এইচএসসি, অনার্স কিংবা মাস্টার্স এর শিক্ষার্থীদের কথা উল্লেখ করা হয়নি।

এছাড়া, বিজ্ঞপ্তিতে কোথাও আবেদন ফি লাগবে এমন কোনো তথ্যের উল্লেখ নেই। উক্ত আবেদনের জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের পদ্ধতি সম্পর্কিত নির্দেশনা থেকে বাংলাদেশ সরকারের ‘মাইগভ’ নামক ডিজিটাল সেবা প্রদানকারী একটি কেন্দ্রীয় প্ল্যাটফর্মের ইউটিউব চ্যানেল থেকেও একই তথ্য জানা যায়। চ্যানেলটিতে ২০২২ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি “শিক্ষার্থীদের আর্থিক অনুদানের আবেদন পদ্ধতি। মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বিভাগ। মাইগভ। myGov” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত ভিডিওর ২২ সেকেন্ড সময়ে আবেদন করতে কোনো ফি প্রদান করতে হবে না বলে স্পষ্ট উল্লেখ করা হয়।

অর্থাৎ আলোচিত দাবিতে প্রচারিত পোস্টে উল্লেখিত নির্দিষ্ট কোনো শ্রেণি কিংবা অনুদানের নির্দিষ্ট পরিমাণ ও আবেদন ফির দাবির বিষয়ে বিজ্ঞপ্তিতে কোনো তথ্য খুঁজে পাওয়া যায়নি। 

মূলত, গত ২৪ জানুয়ারি মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের ওয়েবসাইটে (মাউশি) ২০২৩-২৪ অর্থ বছরের পরিচালন বাজেট থেকে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ (মাউশি) শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, শিক্ষক-কর্মচারী ও ছাত্র-ছাত্রীদের বিশেষ অনুদান দেওয়া হবে শীর্ষক একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। এরই পরিপ্রেক্ষিতে সম্প্রতি, ‘ব্রেকিং নিউজ এইচএসসি, অনার্স, মাস্টার্স শিক্ষার্থীরা পাবে ১০ হাজার টাকা সহায়তা আবেদন শুরু ৪ ই ফেব্রুয়ারি’ শীর্ষক দাবিতে একটি তথ্য প্রচার করা হয়। তবে রিউমর স্ক্যানার যাচাই করে দেখেছে যে, কেবল এইচএসসি, অনার্স, মাস্টার্স শিক্ষার্থীরাই অনুদান পাবেনা। প্রকৃতপক্ষে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ এবং শিক্ষামন্ত্রনালয়ের আওতাধীন

সরকারি, বেসরকারি কিংবা সাধারণ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের যেকোনো শিক্ষার্থী অনুদানের জন্য আবেদন করতে পারবে তবে অনুদান প্রদানের ক্ষেত্রে দুস্থ, প্রতিবন্ধী, অসহায়, রোগগ্রস্ত, গরীব, মেধাবী ও অনগ্রসর এলাকার ছাত্রছাত্রীদের অগ্রাধিকার প্রদান করা হবে। এছাড়া আবেদন করার ক্ষেত্রে ফি প্রদান করার বিষয়টিও সত্য নয়।

উল্লেখ্য, গত ৪ ফেব্রুয়ারি থেকে এ আবেদন শুরু হয়েছে যা আগামী ২৯ ফেব্রুয়ারি রাত ১১ টা ৫৯ মিনিট পর্যন্ত চলমান থাকবে।

সুতরাং, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ (মাউশি) এবং শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন এইচএসসি, অনার্স, মাস্টার্সের শিক্ষার্থীরা ১০ হাজার টাকা অনুদান পাবে দাবিতে ফেসবুকে প্রচারিত তথ্যটি বিভ্রান্তিকর।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img