শনিবার, মে 18, 2024
spot_img

বাংলাদেশী চিকিৎসক ডা. রায়ান সাদী কি এ বছরের নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন পেয়েছেন?

সম্প্রতি “এ বছরের নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনীত হয়েছেন ঢাকা মেডিকেল কলেজের (ঢামেক) সাবেক শিক্ষার্থী ডা. রায়ান সাদী” শীর্ষক একটি তথ্য দেশীয় গণমাধ্যম সহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে।

গণমাধ্যমে প্রকাশিত এমন কিছু প্রতিবেদনের আর্কাইভ ভার্সন দেখুন, আরটিভি, একাত্তর, চ্যানেল২৪, বাংলাভিশন, আজকের পত্রিকা, বাংলাদেশ টাইমস, ডেইলি ক্যাম্পাস, ইনকিলাব, প্রতিদিনের সংবাদ, ডেইলি বাংলাদেশDaily Bangladesh English, সময়টিভি, দেশ রুপান্তর, দেশ টিভি, বিজনেস বাংলাদেশ, নয়াশতাব্দী, মানবকন্ঠ, বিডি জার্নাল, এবিনিউজ২৪, জুম বাংলা, ঢাকা মেইল, সময়ের কণ্ঠস্বরঢাকা ট্রিবিউন, বার্তাবাজার, সারা বাংলা, নয়া দিগন্ত, নিউজ২৪, এখন টিভি, ভোরের ডাক, যায়যায়দিন, দৈনিক আমাদের সময়, ভোরের কাগজ, আমার সংবাদ, বিডি২৪রিপোর্ট, বাংলা২৪লাইভ নিউজপেপার, ইনডিপেনডেন্ট টিভি, ঢাকা টাইমস, আলোকিত বাংলাদেশ, বৈশাখী টিভি, নিউজজি২৪ এবং Daily Asian Age

ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে

পোস্টগুলোর আর্কাইভ ভার্সন দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, ঢাকা মেডিকেল কলেজের (ঢামেক) সাবেক শিক্ষার্থী এবং যুক্তরাষ্ট্রের টেভোজেন বায়োর চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ডা. রায়ান সাদীর এ বছরের নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন পাওয়ার বিষয়টি সঠিক নয় বরং গত পহেলা অক্টোবর থেকে “ডা. রায়ান সাদী এ বছরে নোবেল শান্তি পুরষ্কারের জন্য মনোনীত হয়েছে” এরূপ দাবি প্রচার করা হলেও পরবর্তীতে ২ অক্টোবর তারিখে টেভোজেন বায়োর ওয়েবসাইটে ও ৩ অক্টোবর শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির ফেসবুক আইডিতে তা পরিবর্তন করে “তিনি আগামী বছরের নোবেল শান্তি পুরষ্কারের জন্য মনোনীত হয়েছেন” বলে জানানো হয়।

ডা. রায়ান সাদীর এ বছরের নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন পাওয়ার বিষয়টির সত্যতা যাচাইয়ে গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদগুলো বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, প্রতিবেদনগুলোতে ডা. রায়ান সাদীর এ বছরের নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন পাওয়ার বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির অফিশিয়াল ফেসবুক অ্যাকাউন্টে দেওয়া একটি স্ট্যাটাসকে (আর্কাইভ) সূত্র হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে।

Facebook post by Dipu Moni

ডা. দীপু মনির ফেসবুক অ্যাকাউন্টে ১ অক্টোবর দেওয়া এই স্ট্যাটাসটিতে বলা হয়, “আমাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজের কে-৪০ ব্যাচের বন্ধু রায়ান সাদী এমডি, এমপিএইচ, চেয়ারম্যান ও সিইও Tevogen Bio, এ বছরের নোবেল পুরস্কারের জন্য মনোনীত হয়েছেন। আমরা গর্বিত। সাদীর প্রতি প্রাণঢালা অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা। সাদী ও তার পরিবারের প্রতি নিরন্তর শুভকামনা।”

তবে ৩ অক্টোবর বিকালে এই স্ট্যাটাসটি সম্পাদনা করে এ বছর শব্দটি বাদ দেওয়া হয়।

Facebook post by Dipu Moni

পাশাপাশি কমেন্টবক্সে জানানো হয়, তার এই মনোনয়নটি মূলত আগামী বছর অর্থাৎ ২০২৩ সালের জন্য।

পরবর্তীতে ডা. রায়ান সাদীর প্রতিষ্ঠান যুক্তরাষ্ট্রের টেভোজেন বায়োর ওয়েবসাইট ঘুরেও দেখা যায়, সেখানে লেখা রয়েছে, ‘2023 Nobel Peace Prize Nominee’

Screenshot Source: Tevogen

তবে ওয়েবসাইটটিতে ২ অক্টোবর সন্ধ্যা পর্যন্ত ২০২৩ এর বিষয়টি উল্লেখ ছিল না। আর্কাইভ দেখুন এখানে। 

Screenshot Source: Tevogen

অর্থাৎ, বর্তমান বা সংশোধিত দাবি অনুযায়ী “রায়ান সাদী ও তার প্রতিষ্ঠান টেভোজেন বায়ো এ বছরের জন্য নয় বরং ২০২৩ নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন পেয়েছেন”।

নোবেল শান্তি পুরস্কারের এ মনোনয়ন কারা দেয়? 

মূলত, নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনয়নের দায়িত্বে রয়েছে নরওয়ে নোবেল কমিটি। তবে নোবেল ফাউন্ডেশন কর্তৃক অনুমোদিত যেকোনো ব্যক্তি যে কারো জন্য নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন আবেদন করতে পারেন। তবে কোনো ব্যক্তি নিজের জন্য আবেদন করতে পারেন না।

নোবেল ফাউন্ডেশন কর্তৃক অনুমোদিত ব্যক্তিদের মধ্যে আছেন সার্বভৌম রাষ্ট্রের জাতীয় পরিষদের সদস্য, মন্ত্রিপরিষদের সদস্য বা মন্ত্রী পাশাপাশি বর্তমান রাষ্ট্রপ্রধানরা, নেদারল্যান্ডসের আন্তর্জাতিক বিচার আদালত এবং স্থায়ী সালিশি আদালতের সদস্য, উইমেনস ইন্টারন্যাশনাল লিগ ফর পিস অ্যান্ড ফ্রিডম-এর আন্তর্জাতিক বোর্ডের সদস্য, বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক, এমিরেটস অধ্যাপক এবং ইতিহাস, সামাজিক বিজ্ঞান, আইন, দর্শন, ধর্মতত্ত্ব এবং ধর্মের সহযোগী অধ্যাপকগণ,  শান্তি গবেষণা ইনস্টিটিউট এবং পররাষ্ট্র নীতি ইনস্টিটিউটের পরিচালক, যারা নোবেল শান্তি পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন এমন ব্যক্তিবর্গ, নোবেল শান্তি পুরস্কারে ভূষিত বা এর সমতুল্য সংস্থার প্রধান পরিচালনা পর্ষদের সদস্য, নরওয়ের নোবেল কমিটির বর্তমান এবং প্রাক্তন সদস্য ও সাবেক উপদেষ্টারা।

নোবেল শান্তি পুরস্কারের এ মনোনয়ন প্রক্রিয়াটি কি?

নোবেল শান্তি পুরস্কার নির্বাচনের পুরো প্রক্রিয়াটি একটি দীর্ঘ মেয়াদী প্রক্রিয়া। যেটি শুরু হয় মূলত প্রতি বছরের সেপ্টেম্বর মাস থেকে। এই সময় নরওয়ের নোবেল কমিটি অনুমোদিত ব্যক্তিদের কাছ থেকে মনোনয়ন চায়। যা পহেলা ফেব্রুয়ারির আগে নরওয়ের অসলোতে নরওয়েজিয়ান নোবেল কমিটিতে পাঠানো হয়। এরপর ফেব্রুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত মনোনয়নের জন্য পাঠানো ব্যক্তিদের মধ্য থেকে প্রার্থীদের কাজের মূল্যায়ন করে এবং একটি সংক্ষিপ্ত তালিকা প্রস্তুত করে।

Image Source: Nobelprize

তারপর মার্চ থেকে আগস্ট মাস পর্যন্ত সংক্ষিপ্ত তালিকার উপর উপদেষ্টা পর্যায়ে পর্যালোচনা হয় এবং অক্টোবরে এসে নোবেল পুরস্কার বিজয়ীদের বেছে নেওয়া হয়। এই মাসের শুরুতে, নোবেল কমিটি সংখ্যাগরিষ্ঠ ভোটের মাধ্যমে নোবেল শান্তি পুরস্কার বিজয়ীদের নির্বাচন করে। এরপর নোবেল শান্তি পুরস্কার বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হয় এবং বিজয়ীদের হাতে ডিসেম্বরের ১০ তারিখ নরওয়ের অসলোতে পুরস্কার তুলে দেওয়া হয়।

তবে, এ দীর্ঘ প্রক্রিয়ায় কখনোই নোবেল কর্তৃপক্ষ মনোনীত প্রার্থীদের নাম প্রকাশ করে না। যেমন, নোবেল পুরস্কারের ওয়েবসাইটে গিয়ে দেখা যায়, এ বছর শান্তিতে মোট ৩৪৩ জনকে মনোনয়নের জন্যে বাছাই করা হয়েছে। যাদের মধ্যে ২৫১ জন ব্যক্তি ও ৯২টি সংস্থা রয়েছে। কিন্তু কারো নাম নেই।

Screenshot Source: Nobelprize

কারণ, নোবেল ফাউন্ডেশনের বিধি অনুযায়ী মনোনয়ন সম্পর্কিত কোনো তথ্য জনসম্মুখে বা ব্যক্তিগতভাবে ৫০ বছরের আগে কখনো প্রকাশ করা হয় না। এ বিধির আওতায় পুরস্কারের জন্য মনোনীত ব্যক্তি, মনোনয়ন বাছাইকারী ও মনোনয়নকারী, পাশাপাশি এ পুরস্কার সম্পর্কিত তদন্ত এবং মতামত সবই অন্তর্ভুক্ত।

Screenshot Source: Nobelprize

এ বিধিতে বলা হয়েছে, নোবেল কমিটি গণমাধ্যম বা প্রার্থীদের কাছে কখনোই তাদের নাম প্রকাশ করে না। প্রদত্ত পুরস্কার কাকে দেওয়া হবে এ নিয়ে আগাম জল্পনা-কল্পনা করা হয়। এটি করা হয় নিছক অনুমান থেকে অথবা মনোনয়নের পিছনে থাকা ব্যক্তি বা ব্যক্তিবর্গের থেকে পাওয়া তথ্য নিয়ে।

চলতি বছরের নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য কাদের নাম শোনা যাচ্ছে? 

নোবেল কর্তৃপক্ষ মনোনীত প্রার্থীদের নামের তালিকা প্রকাশ না করলেও নরওয়ের সংসদ সদস্যরা নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য প্রার্থীদের নাম প্রকাশ করে থাকেন। যেমন, আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম আল জাজিরার চলতি বছরের পহেলা ফেব্রুয়ারিতে “Attenborough, WHO, Pope Francis among Nobel Peace Prize nominees” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, চলতি বছরের নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য নরওয়ের সংসদ সদস্যদের পছন্দের তালিকায় আছেন পোপ ফ্রান্সিস, ব্রিটিশ প্রকৃতি বিষয়ক সাংবাদিক ডেভিড অ্যাটেনবরো, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এবং বেলারুশিয়ান ভিন্নমতাবলম্বী সভিয়াতলানা সিখানৌসকায়া। এছাড়া প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছেন আরেক পরিবেশবাদী আন্দোলনকারী গ্রেটা থানবার্গ, ২০২১ সালে মায়ানমারে অভ্যুত্থানের বিরোধীদের দ্বারা গঠিত দেশটির জাতীয় ঐক্য সরকার এবং টুভালুর পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাইমন কোফে।

কবে জানাবে চূড়ান্ত বিজয়ীর নাম?

নোবেল শান্তি পুরস্কারের ওয়েবসাইট থেকে জানা যায়, চলতি বছরের চূড়ান্ত বিজয়ীর নাম ঘোষণা করা হবে আগামী ৭ অক্টোবর।

Screenshot Source: Nobelprize

মূলত, নোবেল পুরস্কারের মনোনয়ন প্রক্রিয়া শুরু হয় প্রতি বছরের সেপ্টেম্বর মাস থেকে। এ সময় থেকে ফেব্রুয়ারি মাস পর্যন্ত নোবেল কমিটি কর্তৃক অনুমোদিত ব্যক্তিরা নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য প্রার্থীদের নাম পাঠান৷ এরপর নোবেল কমিটি যাচাই-বাছাই শেষে অক্টোবরে এসে চূড়ান্ত বিজয়ীর নাম ঘোষণা করে। এ দীর্ঘ প্রক্রিয়ায় নোবেল কমিটি প্রার্থীদের নাম প্রকাশ করে না। এমনকি মনোনয়ন সম্পর্কিত কোনো তথ্য জনসম্মুখে বা ব্যক্তিগতভাবে ৫০ বছরের আগে কখনো প্রকাশ না করার বিধিবিধান আছে নোবেল কমিটির। তবে প্রার্থীদের নাম পাঠানোর সাথে সম্পৃক্ত ব্যক্তিরা কখনো কখনো তাদের মনোনীত প্রার্থীদের নাম প্রকাশ করে থাকে। ফলে গণমাধ্যমে মনোনীত প্রার্থীদের নাম পাওয়া যায়। অর্থাৎ, ঢাকা মেডিকেল কলেজের (ঢামেক) সাবেক শিক্ষার্থী ও যুক্তরাষ্ট্রের টেভোজেন বায়োর চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ডা. রায়ান সাদীর নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনয়নের বিষয়টিও এভাবেই প্রকাশ্যে এসেছে। তবে সংশোধিত তথ্য অনুযায়ী যেহেতু তিনি এ বছরের নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনীত হননি, তাই তিনি আগামী বছর অর্থাৎ ২০২৩ সালের জন্য নোবেল ফাউন্ডেশন কর্তৃক অনুমোদিত কোনো ব্যক্তি কর্তৃক মনোনীত হয়েছেন কিনা তা আগামীতে কোনো তালিকা প্রকাশ করা হলে এবং সেখানে তার নাম থাকলে তবেই নিশ্চিতভাবে জানা সম্ভব।

সুতরাং, ঢাকা মেডিকেল কলেজের (ঢামেক) সাবেক শিক্ষার্থী ও যুক্তরাষ্ট্রের টেভোজেন বায়োর চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ডা. রায়ান সাদীর এ বছরের নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন পাওয়ার তথ্যটি তথ্যটি সঠিক নয় তাই এবছর উল্লেখ করে গণমাধ্যম সহ সামাজিক মাধ্যমে প্রচারিত তথ্যগুলো সম্পূর্ণ বিভ্রান্তিকর।

তথ্যসূত্র

  1. Nobel Prize website: Details about nobel prize
  2. Al Jazeera: Attenborough, WHO, Pope Francis among Nobel Peace Prize nominees
  3. Dipu Moni Facebook Post: Dr. Rayan Sadi Nobel Peace Nominee (আর্কাইভ)
  4. Tevogen Bio Website: https://tevogen.com/
RS Team
RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img