চটকদার থাম্বনেইল ব্যবহার করে প্রধানমন্ত্রীর উপর হামলার দাবিতে ভিন্ন ভিডিও প্রচার 

সম্প্রতি, “লন্ডনে পুলিশের সামনেই জুতাপিটা করলো বিএনপির নেতাকর্মীরা” শীর্ষক শিরোনাম এবং থাম্বনেইলে একটি ভিডিও ইন্টারনেটে প্রচার করা হচ্ছে। 

হামলা

ইউটিউবে প্রচারিত ভিডিওটি দেখুন এখানে (আর্কাইভ)।

ফ্যাক্টচেক 

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, লন্ডনে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিএনপির নেতাকর্মীদের মধ্যে এমন কোনো ঘটনা ঘটেনি বরং অধিক ভিউ পাওয়ার আশায় ভিন্ন ভিন্ন একাধিক ভিডিও যুক্ত করে কোনরূপ তথ্যসূত্র ছাড়াই চটকদার থাম্বনেইল এবং ক্যাপশন ব্যবহার করে ভিত্তিহীনভাবে উক্ত তথ্যটি প্রচার করা হচ্ছে। 

তথ্য যাচাই

অনুসন্ধানের শুরুতে প্রচারিত ভিডিওটি পর্যবেক্ষণ করে রিউমর স্ক্যানার টিম। ২ মিনিট ২ সেকেন্ডের উক্ত ভিডিওটি পর্যবেক্ষণ করে দেখা যায়, ভিডিওটিতে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদ সেচ্ছাসেবক দল, যুক্তরাজ্য ব্যানারে যুক্তরাজ্যে বিএনপির কিছু নেতাকর্মী বিক্ষোভ মিছিল করছে। 

ভিডিওটির শুরুতে নেতাকর্মীদের বলতে শোনা যায় ‘আমাদের কোনো নেত্রী আছে? আছে’। হাসিনা আমেরিকা থেকে পালিয়ে এসেছে লন্ডনে। তাকে আমরা বিদায় জানাবো। হাসিনা অবৈধ সরকার। 

পরবর্তীতে ৩৯ সেকেন্ড থেকে একটি লাইভ ভিডিওর অংশ দেখা যায়। সেখানে বলা হয়, আমরা এখন হোয়াইটচেপেল রেলস্টেশনে আছি। বিএনপির নেতৃবৃন্দরা, বিরোধী দলের নেতৃবৃন্দরা এখানে অপেক্ষা করছে ট্রেনের জন্য। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী লন্ডন আসছেন আজকে। 

৫৫ সেকেন্ডে একজনকে বক্তব্য দিতে শোনা যায়। বক্তব্যে বলতে শোনা যায়, বাংলাদেশের অবৈধ প্রধানমন্ত্রী আসতেছে বিকেলে। আমেরিকা থেকে ধাওয়া করে দিয়েছে। এখান থেকেও ইনশাআল্লাহ ধাওয়া করবো। গো ব্যাক হাসিনা। 

পরবর্তীতে আবারও লাইভের হোস্ট বলেন, এখন আমরা হোয়াইটচেপেলে আছি। হোয়াইটচেপেল স্টেশন থেকে প্রধানমন্ত্রী যে হোটেলে আছে সেই হোটেলের দিকে যাচ্ছি। সেচ্ছাসেবক দল বিএনপির..। 

পরবর্তীতে ১ মিনিট ২৬ সেকেন্ড থেকে আরেকটি ভিডিও যুক্ত করা হয়। সেখানে ‘খালেদা জিয়া, খালেদা জিয়া’ স্লোগান দিতে শোনা যায়।

ভিডিও যাচাই 

প্রচারিত ভিডিও থেকে ব্যানারের সূত্র ধরে প্রাসঙ্গিক কি-ওয়ার্ড সার্চ করে বিএনপির ভেরিফাইড ফেসবুক পেজে গত ২ অক্টোবর “লন্ডন থেকে সরাসরি ২ অক্টোবর ২০২৩, সোমবার অবৈধ সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার যুক্তরাজ্য সফরের প্রতিবাদে এবং সরকারের পদত্যাগ ও সংসদ বিলুপ্ত করে নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির লক্ষ্যে ১ দফা দাবিতে যুক্তরাজ্য বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশ।” শীর্ষক ক্যাপশনে প্রচারিত একটি লাইভ ভিডিও পাওয়া যায়। 

১ ঘন্টা ২৭ মিনিট ৩৯ সেকেন্ডের লাইভ ভিডিওতে কোথাও শেখ হাসিনা বা অন্য কোনো ব্যক্তির সাথে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেনি। 

পাশাপাশি, দেশীয় ও আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমেও উক্ত দাবি সংক্রান্ত কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি। 

অন্যদিকে একটি দেশের প্রধানমন্ত্রীর সাথে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটলে তা গণমাধ্যমে সংবাদ হওয়ার কথা। কিন্তু উক্ত দাবি সংক্রান্ত কোনো তথ্যপ্রমাণ পাওয়া না যাওয়ায় প্রতীয়মান হয় যে এধরনের কোনো ঘটনা ঘটেনি। এছাড়া প্রচারিত ভিডিটিতেও সংঘর্ষের কোনো দৃশ্য ছিলো না। 

মূলত, গত ০২ অক্টোবর যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদ সেচ্ছাসেবক দলের নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল করেন। পরবর্তীতে সেই বিক্ষোভ মিছিলের কিছু ভিডিও কেটে ডিজিটাল প্রযুক্তির সহায়তায় একসাথে করে “লন্ডনের পুলিশের সামনেই শেখ হাসিনাকে জুতাপিটা করলো” শীর্ষক ক্যাপশনে ইন্টারনেটে প্রচার করা হয়েছে। তবে, রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, লন্ডনের বিএনপির সেচ্ছাসেবক দলের বিক্ষোভে এমন কোনো ঘটনা ঘটেনি। 

প্রসঙ্গত, পূর্বেও জাপানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওপর বিএনপি নেতাকর্মীদের হামলার দাবিতে একটি ভিডিও প্রচার করা হলে বিষয়টি মিথ্যা শনাক্ত করে ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে রিউমর স্ক্যানার।

সুতরাং, লন্ডনে হাসিনাকে জুতাপিটা করলো বিএনপির নেতাকর্মীরা শীর্ষক দাবিটি সম্পূর্ণ মিথ্যা। 

তথ্যসূত্র

  • Bangladesh Nationalist Party- BNP Facebook Page 
  • Rumor Scanner’s Own Analysis
RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img