মেট্রোরেলে উত্তরা থেকে মতিঝিল যেতে কত সময় লাগবে?

সম্প্রতি “প্রতি স্টেশনে ১০ মিনিট দাঁড়ালে উত্তরা থেকে মতিঝিল ১৬ টি স্টেশন আছে তারমানে ১৬০ মিনিট (২ ঘন্টা ৪০ মিনিট বা প্রায় ৩ ঘন্টা) স্টেশনে দাঁড়িয়েই থাকবে এর সাথে যাওয়ার সময় আরও ১ ঘন্টা যোগ দিলে  টোটাল ৪ ঘন্টা লাগবে মতিঝিল পৌছাইতে। ভাই তোরাই মেট্রোতে চড় আমি হেঁটেই যাবো।” শীর্ষক শিরোনামে একটি ছবি সম্বলিত তথ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে। 

ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে
পোস্টগুলোর আর্কাইভ ভার্সন দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, মেট্রোরেলের প্রতি স্টেশনে ১০ মিনিট করে দাঁড়ানোর ফলে উত্তরা থেকে মতিঝিলে পৌঁছাতে ৪ ঘন্টা লাগার তথ্যটি সঠিক নয় বরং মেট্রোরেলের প্রতি স্টেশনে ১০ মিনিট করে দাঁড়ানোর বিষয়টি সাময়িক এবং মেট্রোরেল পুরোদমে চালু হলে উত্তরা থেকে মতিঝিলে পৌঁছাতে সময় লাগবে ৩৮ মিনিট৷

দাবি: একটি স্টেশনে মেট্রোরেল ১০ মিনিট দাঁড়াবে

কি-ওয়ার্ড অনুসন্ধানের মাধ্যমে মূলধারার জাতীয় দৈনিক প্রথম আলোতে গত ২৬ ডিসেম্বর “শুরুতে মাঝের কোনো স্টেশনে থামবে না মেট্রোরেল” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়। 

প্রতিবেদনটিতে ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেড (ডিএমটিসিএল) কর্তৃপক্ষকে উদ্ধৃত করে বলা হয়, ‘শুরুর দিকে মেট্রোরেল স্টেশনে যাত্রীদের ওঠানামার জন্য ১০ মিনিট করে থেমে থাকবে ট্রেন। এর উদ্দেশ্য যাত্রীদের অভ্যস্ত করা। ডিএমটিসিএল কর্তৃপক্ষ ট্রেন চালিয়ে এতে যাত্রী ওঠানামা, ট্রেনের দরজা খোলা ও বন্ধ করার পরীক্ষা চালিয়েছে। দেখা গেছে, টিকিট কেটে যাত্রীদের ট্রেনে উঠতে ও নামতে একটু সময় বেশি লাগছে। তাই আপাতত ১০ মিনিট করে অপেক্ষার সিদ্ধান্ত হয়েছে। ১৫ দিন পর পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’

পাশাপাশি একই গণমাধ্যমে গত ২৮ ডিসেম্বর “প্রস্তুত আগারগাঁও স্টেশন, তিনতলায় থামবে মেট্রোরেল” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে ডিএমটিসিএল কর্মকর্তাদের উদ্ধৃত করে বলা হয়, প্রথম তিন মাস মেট্রোরেল মাঝের কোনো স্টেশনে থামবে না। মাঝের স্টেশনে যাত্রাবিরতির সময় হবে ৩০ সেকেন্ড।

পরবর্তীতে মূলধারার অনলাইন গণমাধ্যম বিডিনিউজ২৪ এ গত ২৮ ডিসেম্বর “ফুরাচ্ছে অপেক্ষা, দুয়ার খুলছে মেট্রো ট্রেন” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে ডিএমটিসিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম এ এন ছিদ্দিকের সংবাদ সম্মেলনকে উদ্ধৃত করে বলা হয়, আপাতত সকাল ৮টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত চলবে মেট্রোরেল। প্রতি ১০ মিনিট অন্তর ট্রেন ছাড়বে। সরাসরি চললে উত্তরা উত্তর থেকে আগারগাঁও স্টেশন পর্যন্ত সময় লাগবে ১০ মিনিট ১০ সেকেন্ড। যাত্রীদের অভ্যস্ত করতে প্রথম দিকে ১০ মিনিট থেমে যাত্রী ওঠানামার কাজ করা হবে।  

প্রতিবেদনটিতে ডিএমটিসিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম এ এন ছিদ্দিককে উদ্ধৃত করে আরও বলা হয়, প্রথম দিকে চার মিনিট পরপর ট্রেন চালালে জনসাধারণ এটার সাথে অভ্যস্ত হতে বা সেভাবে পরিচিত হতে পারবে না। আবার আমরা দাঁড়ানোর সময়টাকে হয়ত এক সময় ৩০ সেকেন্ডে নিয়ে আসব।

উপরিউক্ত তথ্যসমূহ পর্যালোচনা করে দেখা যায়, মেট্রোরেলের স্টেশনে ১০ মিনিট করে ট্রেন থামার বিষয়টি একটি প্রাথমিক সিদ্ধান্ত। মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষ যাত্রীদের অভ্যস্ত করতে ১০ মিনিট থেমে  মেট্রোরেলে যাত্রী ওঠানামার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।  পরবর্তীতে ধাপে ধাপে এই সময়টিকে কমিয়ে ৩০ সেকেন্ডে নিয়ে আসা হবে।

দাবি: উত্তরা থেকে মতিঝিলে পৌঁছাতে ৪ ঘন্টা লাগবে

দাবিটির সত্যতা যাচাইয়ে দেশীয় মূলধারার জাতীয় দৈনিক সমকালে গত ২৮ ডিসেম্বর “স্বপ্নের মেট্রোরেল যুগে বাংলাদেশ” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, ‘উত্তরার দিয়াবাড়ি থেকে আগারগাঁও যেতে মোট সময় লাগবে ১৭ মিনিট। এ পথে মাঝের সাত স্টেশনে যাত্রাবিরতি থাকবে ১০ মিনিট। বিপরীতে দিয়াবাড়ি থেকে মতিঝিল যেতে সময় লাগবে ৩৮ মিনিট। এ পথে স্টেশনে যাত্রাবিরতি হবে ১৫ মিনিট।’

পরবর্তীতে মেট্রোরেলের সমন্বয়কারী সংস্থা ডিএমটিসিএলের ওয়েবসাইট থেকে জানা যায়, ‘এমআরটি লাইন-৬ বা বাংলাদেশের প্রথম উড়াল মেট্রোরেলে ঘন্টায় ৬০ হাজার এবং দিনে ৫ লক্ষ যাত্রী যাতায়াত করতে পারবেন। ৬টি কোচ সম্বলিত প্রতিটি একমুখী মেট্রো ট্রেন প্রতিবারে ৩৮ মিনিটে উত্তরা থেকে মতিঝিল পর্যন্ত ১৬ টি স্টেশনে থেমে সর্বোচ্চ ২,৩০৮ জন যাত্রী পরিবহন করতে পারবে।’

অর্থাৎ, উত্তরা থেকে মতিঝিলে পৌঁছাতে ৪ ঘন্টা লাগার দাবিটি সঠিক নয় বরং এ পথে ৩৮ মিনিটেই ১৬ টি স্টেশনে থেমে উত্তরা থেকে মতিঝিল পর্যন্ত পৌঁছানো যাবে।

মূলত, গত ২৮ ডিসেম্বর বুধবার মেট্রোরেলের এমআরটি-৬ লাইনের দিয়াবাড়ী থেকে আগারগাঁও অংশের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তবে এই উদ্বোধনের আগে মেট্রোরেল নির্মাণ ও পরিচালনার দায়িত্বে থাকা ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেড (ডিএমটিসিএল) কিছু সিদ্ধান্ত নেয়। এর মধ্যে প্রাথমিকভাবে সকাল ৮টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত মেট্রোরেল চালানো, সপ্তাহে এক দিন মঙ্গলবার বন্ধ রাখা,  উত্তরা ও আগারগাঁও ছাড়া আর কোথাও না থামা ও একটি স্টেশনে ট্রেন ১০ মিনিট থামিয়ে রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। পরবর্তীতে একটি স্টেশনে ট্রেন ১০ মিনিট থামিয়ে রাখার এই সিদ্ধান্তটিকেই কেন্দ্র করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে যে, একটি স্টেশনে ১০ মিনিট করে ট্রেন দাঁড়ালে  উত্তরা থেকে মতিঝিল যেতে ১৬ টি স্টেশন পেরুতে ৪ ঘন্টা সময় লাগবে৷ তবে রিউমর স্ক্যানারের অনুসন্ধানে দেখা যায়, একটি স্টেশনে ট্রেন ১০ মিনিট থামিয়ে রাখার এই সিদ্ধান্তটি একটি প্রাথমিক সিদ্ধান্ত। মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষ যাত্রীদের অভ্যস্ত করতেই ১০ মিনিট থেমে  মেট্রোরেলে যাত্রী ওঠানামার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।  পরবর্তীতে ধাপে ধাপে এই সময়টিকে কমিয়ে ৩০ সেকেন্ডে নিয়ে আসা হবে। এছাড়া মেট্রোরেলের ওয়েবসাইটে প্রদত্ত তথ্যানুযায়ী, উত্তরা থেকে মতিঝিল পর্যন্ত ১৬ টি স্টেশনে থেমে মেট্রোরেলের পৌঁছাতে সময় লাগবে ৩৮ মিনিট।

উল্লেখ্য, মেট্রোরেলের এমআরটি-৬ লাইনের দিয়াবাড়ী থেকে আগারগাঁও অংশে আগামী ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসের দিন পুরোদমে ট্রেন চলার কথা রয়েছে৷ অপরদিকে রাজধানীর উত্তরার দিয়াবাড়ী থেকে মতিঝিল পর্যন্ত ২০ কিলোমিটার পথে মেট্রোরেল লাইন নির্মাণ করা হচ্ছে।

সুতরাং, মেট্রোরেলের প্রতি স্টেশনে ১০ মিনিট দাঁড়ালে উত্তরা থেকে মতিঝিল যেতে ৪ ঘন্টা লাগার তথ্যটি সঠিক নয়; এটি সম্পূর্ণ মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img