শনিবার, জুলাই 20, 2024
spot_img

ভাইরাল ছবিতে বিএসএফের কাঁধে ঝুলন্ত লাশটি কোনো বাংলাদেশির নয়

সম্প্রতি, ‘ভারতীয় সীমান্ত রক্ষীবাহিনী বিএসএফ এর কাঁধে ঝুলছে বাংলাদেশের লাশ!’ শীর্ষক দাবিতে একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। 

বিএসএফের কাঁধে

উক্ত দাবিতে ফেসবুকে প্রচারিত কিছু পোস্ট দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ)।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, ছবিতে ভারতীয় সীমান্ত রক্ষীবাহিনী (বিএসএফ) এর কাঁধে থাকা ঝুলন্ত লাশটি কোনো বাংলাদেশি নাগরিকের নয় বরং লাশটি গত এপ্রিলে ভারতের ছত্তিশগড়ের কাঁকেরে বিএসএফের অভিযানে নিহত এক মাওবাদীর।

এ বিষয়ে অনুসন্ধানের শুরুতে রিভার্স ইমেজ সার্চ করে বিএসএফের অফিশিয়াল এক্স (টুইটার) একাউন্টে গত ১৭ এপ্রিল প্রকাশিত এক পোস্টে আলোচিত ছবিটি খুঁজে পাওয়া যায়। উক্ত পোস্টে এই ছবির পাশাপাশি আরও তিনটি ছবি পাওয়া যায়। পোস্টের ক্যাপশনে ছবিগুলোকে ভারতের ছত্তিশগড়ের কাঁকেরে বিএসএফের অভিযানে ২৯ জন মাওবাদী মারা যাওয়ার ঘটনার বলে উল্লেখ  করা হয়। বাংলাদেশির লাশ দাবি করা ছবিটি মূলত এই অভিযানের মাওবাদীর লাশের। 

পরবর্তীতে প্রাসঙ্গিক কি-ওয়ার্ড সার্চ করে বিভিন্ন ভারতের একাধিক সংবাদ মাধ্যমে উক্ত ঘটনার সংবাদ খুঁজে পাওয়া যায়। দ্যা টেলিগ্রাফের সংবাদে বলা হয়, গত ১৬ এপ্রিল ভারতের ছত্তিশগড়ের কাঁকের জেলার হিদুর এবং কালপার গ্রাম সংলগ্ন পাহাড়ে মাওবাদীদের বিরুদ্ধে একটি বড় ক্র্যাকডাউনে বিএসএফ এবং ডিআরজি দ্বারা একটি যৌথ অভিযান পরিচালিত হয়। উক্ত ঘটনায় ২৯ জন নকশালের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করা হয়। তবে কোনো বাংলাদেশি নাগরিকের মৃত্যুর খবর বলা হয়নি। টেলিগ্রামের উক্ত প্রতিবেদনের ফিচারেও আলোচিত ছবিটি ব্যবহার করা হয়। ছবির ক্যাপশনে এটিকে মারওবাদীদের বিরুদ্ধে অভিযানে নিহত এক ব্যক্তির লাশ বলে উল্লেখ করা হয়।

Screenshot collage: Rumor Scanner

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম হিন্দুস্থান সমাচারের একটি সংবাদে মাওবাদীদের তরফ থেকে প্রকাশিত উক্ত ঘটনায় মৃতদের একটি তালিকা পাওয়া যায়। ঐ তালিকায়ও কোনো বাংলাদেশির নাম খুঁজে পাওয়া যায়নি। 

মূলত, গত ১৬ এপ্রিল ভারতের ছত্তিশগড়ের কাঁকের জেলার হিদুর এবং কালপার গ্রাম সংলগ্ন পাহাড়ে মাওবাদীদের বিরুদ্ধে একটি বড় ক্র্যাকডাউনে ভারতীয় সীমান্ত রক্ষীবাহিনী (বিএসএফ) এবং ডিআরজি দ্বারা একটি যৌথ অভিযানে ২৯ জন মাওবাদী মারা যায়। উক্ত ঘটনা পরবর্তী বিএসএফের অফিসিয়াল এক্স অ্যাকাউন্টে অভিযান সম্পর্কিত চারটি ছবি প্রকাশ করা হয়। যার মধ্যে একটি ছবিতে বিএসএফের সদস্যের কাঁধে এক মাওবাদীর লাশ দেখা যায়। সম্প্রতি এই  ছবিকে বিএসএফের কাঁধে বাংলাদেশির লাশ দাবিতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হয়েছে। 

সুতরাং, বিএসএফের কাঁধে মাওবাদীর লাশের ছবিকে বাংলাদেশির লাশের ছবি দাবিতে প্রচার করা হয়েছে; যা মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img