রাষ্ট্রপতির ছবি ব্যবহার করে ১৭ হাজার টাকা অনুদানের ভুয়া ক্যাম্পেইন

সম্প্রতি, রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ শাহাবুদ্দিন চুপ্পুর ছবি সহ একটি ওয়েবসাইট থেকে ১৭ হাজার টাকা সহায়তা এবং নগদ অনুদান দেওয়ার দাবিতে একটি তথ্য ইন্টারনেটে প্রচার করা হচ্ছে প্রচার করা হচ্ছে।

রাষ্ট্রপতি

যা দাবি করা হচ্ছে

রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ শাহাবুদ্দিন চুপ্পুর ছবিসহ একাধিক ওয়েবসাইটের লিংক ফেসবুকে শেয়ার করে সীমিত আয় এবং নিয়মিত বা অনিয়মিত কর্মীদের জন্য ১৭ হাজার টাকা সহায়তা এবং নগদ অনুদান দিচ্ছে দাবিতে প্রচার করছে। ওয়েবসাইটে একটি রেজিস্ট্রেশন লিংকে গিয়ে রেজিস্ট্রেশন করার পর প্রার্থীর কাছে যোগাযোগ করা হবে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু পোস্ট দেখুন পোস্ট (আর্কাইভ), পোস্ট (আর্কাইভ), পোস্ট (আর্কাইভ) এবং পোস্ট (আর্কাইভ)।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, সীমিত আয় এবং নিয়মিত বা অনিয়মিত কর্মীদের জন্য ১৭ হাজার টাকা সহায়তা দেওয়ার দাবিটি সত্য নয় বরং ভুয়া ওয়েবসাইট তৈরি করে প্রতারণার উদ্দেশ্যে অনুদান প্রদানের এমন প্রলোভন দেখানো হচ্ছে।

অনুসন্ধানের শুরুতে ১৭ হাজার টাকা অনুদানের প্রলোভন দেখানো ওয়েবসাইটটিতে প্রবেশ করে রিউমর স্ক্যানার টিম।

Screenshot: Scam Website

ওয়েবসাইটটিতে প্রবেশ করলে ‘আপনার ফোন নম্বর লিখুন, তারপর ২৪ ঘণ্টার মধ্যে যোগাযোগ করার জন্য একটি পাঠ্য বার্তায় পাঠানো যাচাইকরণ কোডটি লিখুন’ এমন কিছু তথ্য আসে এবং পরবর্তী ধাপে যেতে বলা হয়।

ক্লিক করার পর ‘w.elephantparkcm.com’ নামক ওয়েবসাইটে ফোন নাম্বার দিয়ে সাইন আপ করতে বলা হয়।

Screenshot: Scam Website

ওয়েবসাইটে থাকা তথ্যানুযায়ী ফোন নাম্বার প্রবেশ করলে এসএমএসের মাধ্যমে মোবাইল ফোনে একটি ওটিপি পিন কোড আসে।

Screenshot: Scam Website

তবে গোপন পিন কোডটি প্রবেশ করে পরের ধাপে যেতে চাইলে আবার চেষ্টা করতে বলা হয়। কিন্তু ফোনে কোনো টাকা আসেনি।

Screenshot: Scam Website

এছাড়া বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি কর্তৃক এমন কোনো অনুদান প্রদানের তথ্য পাওয়া যায়নি।

অর্থাৎ, উপরোক্ত তথ্য উপাত্ত পর্যালোচনা করলে এটা স্পষ্ট যে, এটি একটি ভুয়া ক্যাম্পেইন।

মূলত, রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ শাহাবুদ্দিনের ছবি ব্যবহার করে ১৭ হাজার টাকার অনুদান প্রদানের নামে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি ক্যাম্পেইন পরিচালনা করা হচ্ছে। তবে উক্ত ক্যাম্পেইনের লিংকে ঢুকে প্রদত্ত সকল ধাপ অতিক্রম করে দেখা যায় সেখানে অনুদান দেওয়া হচ্ছে না। প্রকৃতপক্ষে রাষ্ট্রপতির ছবি দিয়ে ভুয়া ওয়েবসাইট তৈরি করে প্রতারণার উদ্দেশ্যে এই ক্যাম্পেইনটি পরিচালনা করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, ইতিপূর্বে বিকাশের ওয়েবসাইট নকল করে প্রতারণার উদ্দেশ্যে প্রলোভন দেখানো হলে সে সময় উক্ত বিষয়টিকে মিথ্যা শনাক্ত করে ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদন প্রকাশ করে রিউমর স্ক্যানার। 

সুতরাং, রাষ্ট্রপতির মোহাম্মদ সাহাবুদ্দিনের ছবি ব্যবহার করে বেকার ও নিম্ন আয়ের লোকদের ১৭ হাজার টাকা অনুদান দেওয়ার দাবিতে প্রচারিত ওয়েবসাইটটি ভুয়া এবং দাবিটি সম্পূর্ণ প্রতারণামূলক।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img