রোগাক্রান্ত শিশু তাসফিয়ার জন্য আর্থিক সহায়তা দাবিতে প্রতারক চক্রের বিকাশ নাম্বার ব্যবহার

যা দাবি করা হচ্ছে

সম্প্রতি, “আমার মেয়ের চিকিৎসা সম্পন্ন করতে ভাই একটু দয়া করুন প্লিজ ভাই আমি একজন এতিম অসহায় বাবা হয়ে আপনাদের সবার দুটি পায়ে ধরে আমার মেয়ের জীবন বাঁচাতে একটু ভিক্ষা চাইছি ভাই দয়া করুন প্লিজ সবাই মিলে ভাই আমার মেয়ের জীবন বাঁচাতে ভাই যে যতো টুকু পারেন একটু ভিক্ষা দেন ভাই” শীর্ষক শিরোনামে এক শিশুর কয়েকটি ছবি সংযুক্ত করে একটি মানবিক সাহায্যের আবেদন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে।

ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে এবং এখানে। এবং আর্কাইভ ভার্সন দেখুন এখানে, এখানে এবং এখানে

ফ্যাক্ট

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, প্রচারিত আর্থিক সহায়তার আবেদনটি সত্য হলেও এতে উল্লিখিত বিকাশ নাম্বারটি তাসফিয়ার চিকিৎসার আর্থিক সাহায্য পাঠানোর জন্য প্রকৃত নাম্বার নয় বরং তাসফিয়ার জন্য সহায়তা পাঠানোর মূল বিকাশ নাম্বারটি পরিবর্তন করে প্রতারণার উদ্দেশ্যে সাম্প্রতিক সময়ে প্রচারিত পোস্টে নতুন বিকাশ নাম্বার সংযুক্ত করা হয়েছে।

এছাড়া, একই আইডিতে ঐ শিশুর চিকিৎসার জন্য একাধিক আর্থিক সাহায্যের আবেদন শীর্ষক পোস্টের অস্তিত্ব পাওয়া যায়।

মূলত, বগুড়ার সোনাতলা থানার মোঃ ফরিদুল ইসলামের কন্যা সন্তান তাসফিয়া। জন্মগতভাবেই শিশুটি পায়ুপথ সংক্রান্ত জটিলতায় আক্রান্ত। ঢাকা শিশু হাসপাতালে চিকিৎসাধীন শিশুটির ইতোমধ্যে দুইটি অপারেশন সম্পন্ন হয়েছে এবং তার চিকিৎসার জন্য আরো অর্থের প্রয়োজন যা বাবা ফরিদুলের পক্ষে একা জোগাড় করা সম্ভব হচ্ছিলো না।

পরবর্তীতে, বাবা ফরিদুল চলতি বছরের ১ ফেব্রুয়ারি তার ফেসবুক একাউন্টে তার মেয়ে তাসফিয়ার চিকিৎসার জন্য আর্থিক সহায়তা প্রয়োজন উল্লেখ করে একটি মানবিক সাহায্যের আবেদন জানিয়ে নিজের বিকাশ নাম্বার (01905360398, 01313615355), নগদ নাম্বার (01313615355) এবং ব্যাংক একাউন্ট নাম্বারসহ (0200017590984) একটি পোস্ট করেন এবং পোস্টটিতে তাসফিয়ার একাধিক মেডিক্যাল রিপোর্টও সংযুক্ত করেন। এরপরই তাসফিয়ার জন্য মানবিক সাহায্যের আবেদনের পোস্টটি ফেসবুকে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ে।

তবে, সাম্প্রতিক সময়ে তাসফিয়ার চিকিৎসার তথ্য ও ছবি ব্যবহার করে কেবলমাত্র বিকাশ, নগদ নাম্বার পরিবর্তন করে কিছু ফেসবুক আইডি থেকে তাসফিয়ার জন্য আর্থিক সহায়তা প্রয়োজন দাবিতে সামাজিক মাধ্যমে প্রচার করা হচ্ছে।

বিষয়টি পূর্বেও মিথ্যা হিসেবে শনাক্ত করে ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে রিউমর স্ক্যানার।

তাসফিয়া নামের রোগাক্রান্ত শিশুর তথ্যে ভিন্ন নাম্বার যুক্ত করে আর্থিক প্রতারণা

RS Team
RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img