মক্কায় সৌদির জাতীয় দিবস উদযাপনের প্রস্তুতিকে ঈদে মিলাদুন্নবীর দাবিতে প্রচার    

সম্প্রতি, ঈদে মিলাদুন্নবীর পতাকা দিয়ে সৌদি আরবের মক্কা নগরীর পবিত্র হারাম শরীফ সাজানো হয়েছে শীর্ষক দাবিতে একটি ভিডিও ইন্টারনেটের বিভিন্ন মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়তে দেখেছে রিউমর স্ক্যানার। 

উক্ত দাবিতে ফেসবুকের কিছু ভিডিও দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ)। 

জাতীয় দিবস

একই দাবিতে ইউটিউবের কিছু ভিডিও দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ)।

একই দাবিতে টিকটকের কিছু ভিডিও দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ)।

তাছাড়া, ধর্মীয় বক্তাদের ওয়াজেও একই ভিডিওর প্রসঙ্গ টেনে উক্ত দাবিটি করা হয়েছে। এমন একটি ভিডিও দেখুন এখানে (আর্কাইভ)।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, ঈদে মিলাদুন্নবীর পতাকা দিয়ে মক্কার পবিত্র হারাম শরীফ সাজানোর দাবিটি সঠিক নয় বরং সৌদি আরবের জাতীয় দিবস উদযাপনের লক্ষ্যে উক্ত ছোট পতাকা বা নিশানাগুলো লাগানো হয়েছে। 

এ বিষয়ে অনুসন্ধানের শুরুতে উক্ত দাবিতে ছড়িয়ে পড়া আলোচিত ভিডিওটি পর্যবেক্ষণ করে দেখা যায়, এক ব্যক্তি মক্কায় হারাম শরীফের আশেপাশের এলাকায় (তার দাবি অনুযায়ী) পতাকাসদৃশ নিশানা লাগানোর ভিডিও করছেন। তাকে উর্দু/হিন্দি ভাষায় বলতে শোনা যায়, মক্কায় খানায়ে কাবার সামনে আছেন তিনি এবং ছোট পতাকা বা নিশানা লাগানোর আয়োজনকে ঈদে মিলাদুন্নবীর আয়োজনের প্রস্তুতি বলে দাবি করছেন তিনি৷ 

এ বিষয়ে অনুসন্ধান করতে গিয়ে আমরা দেখেছি (, , , ), সৌদি আরবে সাধারণত ঈদে মিলাদুন্নবী আয়োজন করে পালিত হয় না। সরকারের পক্ষ থেকেও এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিক কোনো আয়োজন থাকে না৷ এমনকি সৌদিতে এটি সরকারি ছুটির দিনও নয়। চলতি বছরও এই ধারার ব্যতিক্রম হওয়ার কোনো সংবাদ গণমাধ্যমে আসেনি। 

অর্থাৎ, আলোচিত ভিডিওতে ছোট পতাকা বা নিশানা লাগানোর বিষয়টির সাথে ঈদে মিলাদুন্নবী উদযাপনের সম্পর্ক থাকার যে দাবি করা হয়েছে তা সঠিক বলে প্রতীয়মান হচ্ছে না। 

কিন্তু ছোট পতাকা বা নিশানাগুলো কী উদ্দেশ্য লাগানো হচ্ছিল এ বিষয়ে অনুসন্ধানে ফেসবুকেই Mairaj Uddin নামে এক ব্যক্তি কর্তৃক প্রকাশিত একটি ভিডিও খুঁজে পাওয়া যায়। আলোচিত ভিডিওটি যে স্থানে ধারণ করা হয়েছিল, এটিও একই স্থানে ধারণকৃত।  

Screenshot: Facebook 

ভিডিওর ক্যাপশন থেকে জানা যাচ্ছে, ২৪ সেপ্টেম্বর সৌদি আরবের জাতীয় দিবস উদযাপন করা হয়। এই নিশানাগুলোও ঈদে মিলাদুন্নবীর নয় এবং এটি হারাম শরীফও নয়। এটি মক্কার একটি হোটেলের বাইরের দৃশ্য। 

ভিডিওতে ছোট পতাকা বা নিশানাগুলো জুম করে দেখিয়ে সৌদি জাতীয় দিবসের বিষয়টি উল্লেখ করেন ভিডিও ধারণকারী ব্যক্তি। 

Screenshot: Facebook 

এই ছবির সূত্র ধরে অনুসন্ধানে মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম The National News এর ওয়েবসাইটে গত ২২ সেপ্টেম্বর প্রকাশিত এক প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, সৌদি আরবে ২৩ সেপ্টেম্বর জাতীয় দিবস পালন করা হয়৷ এদিন রাস্তায় জাতীয় দিবসের কাপড়ের তৈরি বিশেষ নিশানা লাগানোসহ বিভিন্ন সাজসজ্জা করা হয়৷ প্রতিবেদনে থাকা এ সংক্রান্ত একটি নিশানার লেখা এবং ডিজাইনের সাথে আলোচিত দাবিতে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে থাকা ছোট পতাকা বা নিশানার ডিজাইনের মিল পাওয়া যায়। 

Screenshot: The National News

আরো অনুসন্ধান করে অনলাইনে পণ্য কেনাবাচাকারী প্রতিষ্ঠান Amazon এর সৌদি আরব শাখার ওয়েবসাইটে সৌদির জাতীয় দিবসের ছোট পতাকার ছবির সাথে আলোচিত দাবির পতাকা বা নিশানার হুবহু মিল পরিলক্ষিত হয়। 

Screenshot: Amazon

দুটে ছবির মিল দেখুন – 

Screenshot comparison: Rumor Scanner 

এ বিষয়ে আরো নিশ্চিত হতে সৌদি আরবের ফ্যাক্টচেকিং প্রতিষ্ঠান No Rumors এর সাথে যোগাযোগ করলে তারাও আমাদের নিশ্চিত করেন যে এই আয়োজন মূলত সৌদি আরবের জাতীয় দিবসের জন্য। এর সাথে ঈদে মিলাদুন্নবীর কোনো সম্পর্ক নেই। 

মূলত, সম্প্রতি ঈদে মিলাদুন্নবীর পতাকা দিয়ে সৌদি আরবের মক্কা নগরীর পবিত্র হারাম শরীফ সাজানো হয়েছে শীর্ষক দাবিতে একটি ভিডিও ইন্টারনেটের বিভিন্ন মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। কিন্তু রিউমর স্ক্যানারের অনুসন্ধানে জানা যায়, দাবিটি সঠিক নয়। প্রকৃতপক্ষে, সৌদি আরবের ২৩ সেপ্টেম্বরের জাতীয় দিবসের উদযাপনের জন্য ছোট পতাকা বা নিশানা লাগানো হয়েছিল। এই ঘটনাকেই ঈদে মিলাদুন্নবীর আয়োজনের প্রস্তুতি দাবিতে প্রচার করা হয়েছে। 

সুতরাং, মক্কায় সৌদি আরবের জাতীয় দিবস উদযাপনের প্রস্তুতিকে ঈদে মিলাদুন্নবীর দাবিতে ইন্টারনেটে প্রচার করা হয়েছে; যা বিভ্রান্তিকর। 

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img