অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেন মারা যাননি, যেভাবে ছড়ালো মৃত্যুর গুজব

গতকাল (১০ অক্টোবর) অর্থনীতির নোবেল খ্যাত ‘সেভেরিজেস রিক্সব্যাংক প্রাইজ’ বিজয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেন মারা গেছেন শীর্ষক একটি দাবি দেশ এবং দেশের বাইরের একাধিক গণমাধ্যমের খবরে প্রকাশিত হয়। 

অমর্ত্য সেন

উক্ত দাবিতে দেশের গণমাধ্যমগুলোতে প্রকাশিত প্রতিবেদন দেখুন সময় টিভি  সমকাল  ইত্তেফাক, ইনকিলাব, দেশ রূপান্তর, দেশ টিভি, চ্যানেল২৪, বিডি২৪লাইভ (ফেসবুক), আজকালের খবর, দৈনিক করতোয়া, সংবাদ প্রকাশ, ঢাকা পোস্ট (ফেসবুক), সংবাদ, নিউজজি২৪, অধিকার, বার্তা২৪, সিটি নিউজ ঢাকা, সানবিডি২৪। 

তাছাড়া, ‘দ্য ডেইলি স্টার’ একই দাবিতে ফেসবুক পেজে পোস্ট করলেও পরবর্তীতে পোস্টটি সরিয়ে নেয়৷ পোস্টটির স্ক্রিনশট পাওয়া গেলেও আর্কাইভ পাওয়া যায়নি। 

একই দাবিতে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন দেখুন ইটিভি ভারত, ডেকান হেরাল্ড

একই দাবিতে প্রচারিত কিছু ফেসবুক পোস্ট দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ)।

ফ্যাক্টচেক 

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, অমর্ত্য সেন মারা যাননি বরং সুস্থ আছেন ‘সেভেরিজেস রিক্সব্যাংক প্রাইজ’ বিজয়ী এই অর্থনীতিবিদ, যা তার পরিবারের পক্ষ থেকেই নিশ্চিত করা হয়েছে। 

এ বিষয়ে অনুসন্ধানের শুরুতে দেশের একাধিক সংবাদমাধ্যমে আলোচিত দাবিটির সূত্র হিসেবে নোবেলজয়ী মার্কিন ইতিহাসবিদ ক্লডিয়া গোল্ডিন টুইটের বরাত দেওয়া হয়েছে।  

আমরা অনুসন্ধানে দেখেছি, চলতি বছর (২০২৩) অর্থনীতির নোবেল খ্যাত ‘সেভেরিজেস রিক্সব্যাংক প্রাইজ’ পেয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনৈতিক ইতিহাসবিদ ক্লডিয়া গোল্ডিন। গোল্ডিন হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন অধ্যাপক। এখানে উল্লেখ প্রয়োজন, অমর্ত্য সেন নিজেও হার্ভার্ডের অধ্যাপক। 

গোল্ডিন অমর্ত্য সেনকে নিয়ে সাম্প্রতিক সময়ে কোনো টুইট করেছেন কিনা এমন তথ্যের বিষয়ে অনুসন্ধানে রিউমর স্ক্যানার টিম ক্লডিয়া গোল্ডিনের এক্স (সাবেক টুইটার) অ্যাকাউন্ট খুঁজে পায়৷ ২০১৩ সালে চালু করা এই অ্যাকাউন্ট থেকে অবশ্য ২০২১ সালে সর্বশেষ টুইট করা হয়। 

Screenshot: X

তবে এটিই যে গোল্ডিনের অফিশিয়াল অ্যাকাউন্ট তা নিশ্চিত হওয়া যায় যুক্তরাষ্ট্রের Princeton University Press এর অফিশিয়াল এক্স অ্যাকাউন্টের একটি টুইট থেকে। উক্ত টুইটে গোল্ডিনের অ্যাকাউন্টকে মেনশন করে নোবেল (আদতে ‘সেভেরিজেস রিক্সব্যাংক প্রাইজ’) পুরস্কার পাওয়ায় তাকে অভিনন্দন জানানো হয়। 

এই অ্যাকাউন্টে অমর্ত্য সেনের বিষয়ে কোনো টুইট না পাওয়ায় আমরা বিষয়টি নিয়ে আরো অনুসন্ধান করে ইন্টারনেট আর্কাইভে Claudia Goldin নামে আরেকটি এক্স অ্যাকাউন্ট থেকে প্রকাশিত টুইটের সন্ধান পাই। 

১০ অক্টোবর সকালে প্রকাশিত এই টুইটে অমর্ত্য সেন মারা গেছেন বলে দাবি করা হয়। 

Screenshot: X

তবে উক্ত টুইট এবং অ্যাকাউন্টটি এই প্রতিবেদন প্রকাশের সময় সচল ছিল না৷ কিন্তু আমরা এই অ্যাকাউন্ট থেকেই গতকাল প্রকাশিত আরেকটি টুইট থেকে জানতে পারি, অ্যাকাউন্টটি গোল্ডিনের নয়। এটি তৈরি করেছেন ইতালির সাংবাদিক তমাসো ডেবেনেডেটি। 

Screenshot: X

ইতালির এই সাংবাদিকের বিষয়ে খোঁজ নিয়ে জানা যাচ্ছে, তিনি অন্তত ২০১২ সাল থেকেই বিভিন্ন ব্যক্তির মৃত্যুর বিষয়ে গুজব ছড়িয়ে আসছেন। ২০১২ সালে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম The Guardian এর ওয়েবসাইটে ডেবেনেডেটিকে নিয়ে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে ডেবেনেডেটি জানান, মিডিয়ার দুর্বলতা ধরিয়ে দিতে এই কাজটি তিনি করে থাকেন। 

তার মতে, সোশ্যাল মিডিয়া হল বিশ্বের সবচেয়ে অপ্রত্যাশিত তথ্যের উৎস কিন্তু সংবাদ মাধ্যমগুলো গতির প্রয়োজনের কারণে এটি বিশ্বাস করে।  

গার্ডিয়ানের প্রতিবেদনে উঠে এসেছে, ডেবেনেডেটির ঝুলিতে ইতালির পত্রিকাগুলোকে বোকা বানিয়ে বিভিন্ন ব্যক্তির ভুয়া ইন্টারভিউ ছাপানোর অভিজ্ঞতাও রয়েছে।

আমরা পরবর্তীতে Claudia Goldin নামক অ্যাকাউন্টটির ইন্টারনেট আর্কাইভ থেকে পাওয়া আর্কাইভ পর্যালোচনা করে দেখতে পাই, অ্যাকাউন্টটি গত মে মাসে চালু করা হয়েছে। তবে অল্প সময়েই অ্যাকাউন্টে যুক্ত হয়েছেন দশ হাজারেরও বেশি মানুষ৷ 

Screenshot: X

অর্থাৎ, অমর্ত্য সেনের মৃত্যুর দাবিটি একটি ভুয়া এক্স অ্যাকাউন্ট থেকে প্রথম প্রকাশ করা হয়। 

অমর্ত্য সেনের মৃত্যু বিষয়ক দাবিটির সত্যতা যাচাইয়ে পরবর্তীতে অনুসন্ধান করে ভারতের সংবাদমাধ্যম India Today এর ওয়েবসাইটে গত ১০ অক্টোবর সন্ধ্যায় প্রকাশিত এক প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, অমর্ত্য সেনের সাথে মৃত্যুর বিষয়টি গুজব। তার মেয়ে নন্দনা দেব সেন এক্স অ্যাকাউন্টে দেওয়া এক টুইটে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। 

নন্দনা দেব সেন তার দেওয়া টুইটে জানান, তার বাবা পুরোপুরি ভালো আছেন। তারা সবেমাত্র কেমব্রিজে পরিবারের সাথে একসাথে একটি চমৎকার সপ্তাহ কাটিয়ে গত রাতে (০৯ অক্টোবর) যখন বিদায় জানান তখন তিনি বরাবরের মতোই শক্তিশালী আলিঙ্গন দিয়ে বিদায় জানিয়েছেন! তিনি হার্ভার্ডে সপ্তাহে টি কোর্স পড়াচ্ছেন, তার ‘জেন্ডার’ নামক বই নিয়ে কাজ করছেন। তিনি বরাবরের মতোই ব্যস্ত!

Screenshot: X

অমর্ত্য সেনের আরেক মেয়ে অন্তরা সেনের সাথে এ বিষয়ে কথা বলেছে ভারতের ফ্যাক্ট চেকিং প্রতিষ্ঠান Newschecker। অন্তরা জানিয়েছেন, বর্তমানে তিনি তার বাবা অমর্ত্য সেনের সাথে কেমব্রিজে আছেন। ঘাবড়ানোর কোনো কারণ নেই, মৃত্যুর খবরটি ভুল।

মূলত, গতকাল (১০ অক্টোবর) অর্থনীতির নোবেল খ্যাত ‘সেভেরিজেস রিক্সব্যাংক প্রাইজ’ বিজয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেন মারা গেছেন শীর্ষক একটি দাবি দেশ এবং দেশের বাইরের একাধিক গণমাধ্যমের খবরে প্রকাশিত হয়। কিন্তু রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, উক্ত দাবিটি সঠিক নয়। অমর্ত্য সেন মারা যাননি বরং সম্পূর্ণ সুস্থ আছেন। প্রকৃতপক্ষে, একটি ফেক এক্স অ্যাকাউন্টের বরাতে উক্ত দাবিটি গণমাধ্যমে প্রকাশিত হলেও পরবর্তীতে অমর্ত্য সেনের পরিবারের পক্ষ থেকে বিষয়টি ভুয়া বলে নিশ্চিত করা হয়েছে। তাছাড়া, ইতালির একজন সাংবাদিকের তৈরি করা উক্ত অ্যাকাউন্টটিও এখন আর সচল নেই। 

প্রসঙ্গত, সেভেরিজেস রিক্সব্যাংক কর্তৃক নোবেল ফাউন্ডেশনকে প্রদানকৃত অনুদানের উপর ভিত্তি করে ১৯৬৯ সাল থেকে প্রতিবছর অর্থনীতিতে একটি পুরস্কার দেওয়া হয়। কিন্তু বহু বছর ধরে এই পুরস্কার ঘোষণার পর গণমাধ্যমে এটিকে অর্থনীতিতে নোবেল পুরস্কার দাবিতে প্রচার হয়ে আসছে। এ বিষয়ে রিউমর স্ক্যানারের ফ্যাক্টচেক দেখুন এখানে। 

সুতরাং, ভারতীয় অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেন মারা গেছেন শীর্ষক একটি দাবি গণমাধ্যমে প্রচার করা হয়েছে; যা সম্পূর্ণ মিথ্যা। 

তথ্যসূত্র 

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img