শুক্রবার, সেপ্টেম্বর 22, 2023
spot_img

টিউশন ফি দিতে না পারায় ছাত্রীকে শিক্ষকের বিয়ের ঘটনাটি ভারতের, বাংলাদেশের নয়

সম্প্রতি, “টিউশন ফি দিতে না পারায়, ছাত্রীকে বিয়ে করে নিয়েছে স্যার” শীর্ষক শিরোনামে একটি তথ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে।

ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে। আর্কাইভ ভার্সন দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, সাম্প্রতিক সময়ে টিউশন ফি দিতে না পারায় ছাত্রীকে শিক্ষকের বিয়ে করে নেওয়ার ঘটনাটি বাংলাদেশের কোনো স্থানের নয় বরং উক্ত ঘটনাটি ভারতের।

ফেসবুকে প্রকাশিত পোস্টগুলোর সূত্র ধরে কি-ওয়ার্ড সার্চের মাধ্যমে ভারতীয় গণমাধ্যম আনন্দবাজার অনলাইন, এই সময় এর ওয়েবসাইটে ঘটনাটি খুঁজে পাওয়া যায়। গণমাধ্যমগুলোতে ঘটনাটি ভারতের বলে জানা যায়৷ তবে ভারতের কোনো এলাকায় ঘটেছে, তা গণমাধ্যমগুলো নিশ্চিত করতে পারেনি।

টিউশন
Screenshot anandabazar website

এছাড়া বাংলাদেশী গণমাধ্যম Ekushey-tv.com এর ওয়েবসাইটেও এই বিষয়ে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়। প্রতিবেদনটিতে ঘটনাটি ভারতের বলে উল্লেখ করা হয়েছে। 

এদিকে বাংলাদেশের অনেক ফেসবুক ব্যবহারকারীরা বিষয়টি যথাযথ যাচাই না করে শুধুমাত্র শিরোনামটি কপি-পেস্ট করে ফেসবুকে প্রচার করছেন। ফলে ঘটনাটি ভারতের হলেও ভারত শব্দটি উল্লেখ না করে বাংলাদেশে প্রচার করায় ঘটনাটি বাংলাদেশের কোনো স্থানের ভেবে বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়। 

এদের মধ্যে সাবরিন জাহান মোহনা নামে একজন লিখেন, “এটাই বাংলাদেশ, মানে শিক্ষক ছাত্রীর বাংলাদেশ”, ফারহানা ফারিন নামে একজন লিখেন, “এমন জনদরদি হৃদয়বান ব্যক্তি শুধু বাংলার মাটিতেই পাওয়া যায়। সাবাশ বাংলাদেশ, এগিয়ে যাও”,  নাহিদ হাসান নামে একজন লিখেন, বাংলাদেশে  জন্মগ্রহণ না করলে এমন বিনোদন পাইতাম না। কেউ কেউ ঘটনাটির উৎস সম্পর্কে জানতে চান। 

মূলত, ভারতে একজন  ছাত্রী শিক্ষকের টিউশন ফি দিতে না পারায় সেই শিক্ষক তাকে বিয়ে করেন। 

এ ঘটনায় ঐ শিক্ষক জানান, ‘‘ও আমার কাছেই পড়ত। আমি কোচিং ক্লাস চালাই। দীর্ঘ দিন ধরে ও টিউশন ফি দিতে পারছিল না। টিউশন ফি দিতে না পারার জন্য আমি ওকে বিয়ে করে নিয়েছি। এখন ও কেবল আমার ছাত্রী নয়, স্ত্রীও বটে।’’

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইনস্টাগ্রামে এই ঘটনার একটি ভিডিওও রয়েছে। ভিডিওটি দেখুন এখানে। 

উল্লেখ্য, রিউমর স্ক্যানার টিম পূর্বেও ভিনদেশের ঘটনাকে বাংলাদেশের ঘটনা দাবি করে প্রচারিত তথ্যকে বিভ্রান্তিকর হিসেবে শনাক্ত করে একাধিক ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

অর্থাৎ, ভারতে টিউশন ফি দিতে না পারায় ছাত্রীকে শিক্ষকের বিয়ে করে নেওয়ার ঘটনাটি বাংলাদেশে ‘ভারত’ শব্দ উল্লেখ না করে সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হচ্ছে; যা সম্পূর্ণ বিভ্রান্তিকর।

তথ্যসূত্র

anandabazar Online: Bizarre story: টিউশন ফি দিতে পারেননি ছাত্রী, বিয়ে করতে বাধ্য করলেন শিক্ষক
eisamay.com: টিউশন ফি দিতে না পারায়, ছাত্রীকে বিয়ে করে নিয়েছি!” ভাইরাল শিক্ষকের আজব যুক্তি

RS Team
RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img