শনিবার, জুলাই 13, 2024
spot_img

কাবা শরীফের ছাদে ফেরেশতা দেখা যাওয়ার গুজব 

২০২৩ সাল থেকে পবিত্র কাবা শরীফের ছাদে হঠাৎ ফেরেশতা দেখা গিয়েছে দাবিতে একটি ভিডিও ইন্টারনেটে প্রচার হয়ে আসছে।

ইউটিউবে প্রচারিত এমন ভিডিও দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)।

ফেরেশতা

টিকটকে প্রচারিত এমন ভিডিও দেখুন এখানে (আর্কাইভ)।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, পবিত্র কাবা শরীফের ছাদে হঠাৎ ফেরেশতা দেখা যাওয়ার দাবিটি সঠিক নয়। এছাড়া আলোচিত ভিডিওর থাম্বনেইলে সময় টিভি লোগোর আদলে ‘সয়ম’ ও একজন সংবাদ পাঠকের ছবি যুক্ত করা হলেও সময় টিভি বা অন্য কোনো গণমাধ্যম এ সংক্রান্ত কোনো সংবাদও প্রচার করেনি। প্রকৃতপক্ষে, জেসন কার্লোস নামের এক ব্যক্তির বানানো পুরোনো সিজিআই বা অ্যানিমেশন ভিডিওকে উক্ত দাবিতে প্রচার করা হচ্ছে। 

এ বিষয়ে অনুসন্ধানের শুরুতে আলোচিত ভিডিওর থাম্বনেইলটি পর্যালোচনা করে রিউমর স্ক্যানার টিম। এতে দেখা যায়, সময় টিভির থাম্বনেইলের আদলে তৈরি থাম্বনেইলটির লোগোর স্থানে সময় লেখাটির পরিবর্তে ‘সয়ম’ লেখা রয়েছে। এছাড়াও আলোচিত থাম্বনেইলটিতে একজন সংবাদ পাঠক, আকাশে ফেরেশতা দাবিতে অস্পষ্ট দুটি বস্তু এবং কাবা শরীফের একটি ছবি দেখতে পাওয়া যায়। 

পরবর্তীতে সময় টিভি বা অন্য কোনো গণমাধ্যম এমন কোনো সংবাদ প্রকাশ করেছে কিনা তা জানতে এবং আলোচিত থাম্বনেইলে ব্যবহৃত সংবাদ পাঠকের ছবিটি অনুসন্ধানে প্রাসঙ্গিক কি-ওয়ার্ড সার্চ ও সময় টিভির ইউটিউব চ্যানেল পর্যবেক্ষণের মাধ্যমেও এমন কোনো সংবাদ খুঁজে পাওয়া যায়নি।

আলোচিত ভিডিওতে আকাশে ফেরেশতার ছবি দাবিতে ব্যবহৃত দৃশ্যটি পূর্বেও ইসরায়েলের মসজিদে ফেরেশতা নেমে আসার দৃশ্য দাবিতে প্রচার হলে সেসময় তা মিথ্যা শনাক্ত করে ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদন প্রকাশ করে রিউমর স্ক্যানার। 

প্রতিবেদনটি থেকে জানা যায়, উক্ত ভিডিওটি একটি সিজিআই বা অ্যানিমেটেড ভিডিও। ২০১৪ সালের ১৯ ফেব্রুয়ারী জেসন কার্লোস নামক একজন ইউটিউবার তার ইউটিউব চ্যানেলে ব্রাজিলের আকাশে দুটি ফেরেশতা ক্যামেরা বন্দী করার দাবিতে উক্ত ভিডিও প্রচার করেন। কিন্তু তিনি যখন জানতে পারেন তার ভিডিওটি স্যোশাল মিডিয়ায় সত্য ঘটনা দাবিতে প্রচার করা হচ্ছে তখন তিনি তার আপলোড করা ভিডিওটি কিভাবে তৈরি করা হয়েছে তা বিস্তারিত জানিয়ে আরেকটি ভিডিও প্রকাশ করেন।  ভিডিওটি তৈরির বিভিন্ন প্রক্রিয়া বিস্তারিত দেখিয়ে ২০১৪ সালে ৬ ডিসেম্বর তিনি দ্বিতীয় ভিডিওটি পোস্ট করেন।

সর্বোপরি, কাবা শরীফের ছাদে ফেরেশতার ছবি দাবিতে উপস্থাপিত ছবিটির বিষয়ে অনুসন্ধানে রয়েল্টি ফ্রি স্টকে ইমেজ সংরক্ষণকারী প্রতিষ্ঠান Dreamstime এর ওয়েবসাইটে আলোচিত ছবিটির প্রায় কাছাকাছি একটি ছবি পাওয়া গেলেও মূল ছবিটি পাওয়া যায়নি। 

 Comparison by Rumor Scanner

তবে বিভিন্ন সময় ইন্টারনেটে উক্ত ছবিটি প্রচারিত হতে দেখা যায় (), (), ()। ছবিটি সূক্ষ্মভাবে পর্যালোচনা করলে স্পষ্টভাবেই বোঝা যায় উক্ত এটি ডিজিটাল প্রযুক্তির সহায়তায় তৈরি করা হয়েছে।

পরবর্তীতে কাবা শরীফের ছাদে কখনো ফেরেশতা দেখা গিয়েছে কিনা তা জানতে বিভিন্ন প্রাসঙ্গিক কি-ওয়ার্ড সার্চের মাধ্যমেও আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম কিংবা কোনো নির্ভরযোগ্য সূত্রে কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

মূলত, পবিত্র কাবা শরীফের ছাদে হঠাৎ ফেরেশতা দেখাতে পাওয়ায় লক্ষ লক্ষ মানুষের ভিড় জড়ো হয়েছে দাবিতে একটি ভিডিও ২০২৩ সাল থেকে  ইন্টারনেটে প্রচার হয়ে আসছে। তবে রিউমর স্ক্যানারের অনুসন্ধানে দেখা যায়, আলোচিত দাবিটি সত্য নয়। প্রকৃতপক্ষে, সিজিআই বা অ্যানিমেশনের মাধ্যমে তৈরি পুরোনো একটি ভিডিওকে আলোচিত দাবিতে প্রচার করা হচ্ছে।

সুতরাং, কাবা শরীফের ছাদে ফেরেশতা দেখতে পাওয়ার দাবিতে ইন্টারনেটে প্রচারিত তথ্যটি মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img