শনিবার, এপ্রিল 13, 2024
spot_img

পুরোনো ভিডিওকে জামায়াতের হরতালে পুলিশের সাথে সংঘর্ষের দাবিতে প্রচার

সম্প্রতি, হরতালের নামে নৈরাজ্য ও বিশৃংখলা করায় জামায়াতে ইসলামী দলের নেতাকর্মীদের সাথে পুলিশের সংঘর্ষ- শীর্ষক দাবিতে একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হচ্ছে। 

ফেসবুকে প্রচারিত এমনকিছু ভিডিও পোস্ট দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)। 

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর ডাকা হরতালে নেতাকর্মীদের সাথে পুলিশের সংঘর্ষ শীর্ষক দাবিটি প্রচারিত ভিডিওটি সঠিক নয় বরং ভিডিও গত ১৫ আগস্ট চট্টগ্রামে হওয়া জামায়াত শিবিরের সাথে পুলিশের সাধারণ সংঘর্ষের ঘটনার এবং সম্প্রতি জামায়াতে ইসলামী দল কোনো হরতাল কর্মসূচী পালন করেনি। 

ভিডিওটির কিছুর স্থিরচিত্র রিভার্স ইমেজ সার্চ করে, Cvoice24.com নামক চট্টগ্রাম ভিত্তিক একটি স্থানীয় নিউজ পোর্টালের ফেসবুক পেজে গত ১৫ আগস্ট “চট্টগ্রামে জামায়াত-শিবিরের সঙ্গে পুলিশের দফায় দফায় সংঘর্ষ” শীর্ষক ক্যাপশনে প্রকাশিত একটি ভিডিও খুঁজে (আর্কাইভ) পাওয়া যায়। 

Screenshot: Facebook 

৭ মিনিট ১০ সেকেন্ডের ভিডিওটি পর্যবেক্ষণ করে দেখা যায় জামায়াতে ইসলামীর ডাকা হরতালে পুলিশের সাথে নেতাকর্মীদের সংঘর্ষ শীর্ষক দাবিতে প্রচারিত ভিডিওটির সাথে হুবহু মিল রয়েছে ও উক্ত দাবিতে প্রচারিত ভিডিওটিতে Cvoice24.com এর লোগো রয়েছে এবং ভিডিওটি ৭ মিনিট ১০ সেকেন্ড দৈর্ঘ্যের।

অর্থাৎ, উক্ত দাবিতে প্রচারিত ভিডিওটি Cvoice24.con পেজ থেকেই সংগৃহীত।

এছাড়া, কী ওয়ার্ড সার্চ করে সম্প্রতি বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী দলের হরতাল কর্মসূচী পালনের কোনো তথ্য গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে খুঁজে পাওয়া যায়নি। 

অন্যদিকে গত ১৫ আগস্ট দৈনিক সমকালে “চট্টগ্রামে পুলিশ-জামায়াত সংঘর্ষ, আটক ৩০” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন পাওয়া যায়। 

প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, চট্টগ্রামে জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার (১৫ আগস্ট) বিকেলে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় আমৃত্যু কারাদণ্ড পাওয়া দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর গায়েবানা জানাজা আয়োজনকে ঘিরে এ সংঘর্ষের সূত্রপাত হয়। নগরের আলমাস মোড় থেকে শুরু হওয়া সংঘর্ষ পরে নগরের ওয়াসা মোড়, কাজির দেউড়ি ও জিইসি পর্যন্ত দেড় কিলোমিটার এলাকাজুড়ে ছড়িয়ে পড়ে। 

Screenshot: Daily Samakal 

মূলত, গত ২২ আগস্ট সরকারের পদত্যাগের দাবিতে দেশজুড়ে দিনব্যাপী ‘অহিংস’ হরতালের ডাক দিয়েছিলেন প্রকৌশলী ম ইনামুল হকের নেতৃত্বাধীন সর্বজন বিপ্লবী দল। এই হরতালের কর্মসূচীকে কেন্দ্র করেই জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের পুরোনো একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যেম প্রচার করা হচ্ছে। তবে ২২ আগস্ট জামায়াতে ইসলামীর কোনো হরতাল কর্মসূচী ছিলো না এবং এইদিন পুলিশের সাথে তাদের কোনো সংঘর্ষের ঘটনাও ঘটেনি।

সুতরাং, ভিন্ন ঘটনার এবং পুরোনো ভিডিওকে সম্প্রতি বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী দলের নেতাকর্মীদের সাথে পুলিশের সংঘর্ষ শীর্ষক দাবিতে প্রচার করা হচ্ছে; যা মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img