রবিবার, জুলাই 21, 2024
spot_img

সিরিয়ার পুরোনো ভিডিওকে হামাস কর্তৃক ইসরায়েলি ট্যাঙ্ক ধ্বংসের ভিডিও দাবিতে প্রচার

সম্প্রতি, হামাস কর্তৃক ইসরায়েলি ট্যাঙ্ক ধ্বংসের দৃশ্য দাবিতে একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হয়েছে।

ট্যাঙ্ক ধ্বংসের

ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, ভিডিওটি ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী সশস্ত্র সংগঠন হামাস কর্তৃক ইসরায়েলি ট্যাঙ্ক ধ্বংসের নয় বরং ভিডিওটি প্রায় দশ বছর আগে ২০১৩ সালে সিরিয়ার সেনাবাহিনী এবং বিদ্রোহীদের মধ্যকার সংঘর্ষের সময়ে ধারণকৃত।

এবিষয়ে অনুসন্ধানে আলোচিত ভিডিওটি থেকে কিছু স্থিরচিত্র নিয়ে রিভার্স ইমেজ সার্চের মাধ্যমে RANE নামের একটি ইউটিউব চ্যানেলে ২০১৩ সালের ২৬ জানুয়ারি ‘Syrian Tank Allegedly Attacked and Airstrikes (raw footage)’ শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি ভিডিও খুঁজে পাওয়া যায়।

Screenshot: YouTube

এই ভিডিওটি’র সাথে আলোচিত ভিডিওটি’র মিল পাওয়া যায়।

Video Comparison by Rumor Scanner 

সেখানে উল্লেখিত বিস্তারিত বিবরণী থেকে জানা যায়, এটি ২০১০ সালে সিরিয়ার সেনাবাহিনী এবং বিদ্রোহীদের মধ্যকার সংঘর্ষের সময়ে সরকারি ট্যাঙ্ক ধ্বংসের ভিডিও।

পরবর্তীতে ভিডিও শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম DailyMotion এর ওয়েবসাইট থেকেও ভিডিওটি’র ব্যাপারে একই তথ্য জানা যায়।

Screenshot: DailyMotion

অর্থাৎ, আলোচিত ভিডিওটি হামাস কর্তৃক ইসরায়েলি ট্যাঙ্ক ধ্বংসের নয়।

মূলত, ২০১০ সালে সিরিয়ার সেনাবাহিনী এবং বিদ্রোহীদের মধ্যকার সংঘর্ষের সময়ে সরকারি ট্যাঙ্ক ধ্বংসের একটি ভিডিও সেসময় ইন্টারনেটে প্রচার করা হয়। সম্প্রতি সেই ভিডিওটি ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহ করে হামাস কর্তৃক ইসরায়েলি ট্যাঙ্ক ধ্বংসের ভিডিও দাবিতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, কাতারের মধ্যস্থতায় গত ২৪ নভেম্বর থেকে ফিলিস্তিনের মুক্তিকামী সশস্ত্র সংগঠন হামাস ও ইসরায়েলের মধ্যকার যুদ্ধবিরতি শুরু হয়েছে। গত শুক্রবার (২৪ নভেম্বর) স্থানীয় সময় সকাল ৭টা থেকে এ যুদ্ধবিরতি শুরু হয়। এর আগে গত ০৭ অক্টোবর ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী সশস্ত্র সংগঠন হামাস ইসরায়েলে ‘অপারেশন আল-আকসা ফ্লাড’ নামে হামলা শুরু করে। এই হামলার প্রেক্ষিতে ইসরায়েলও হামাস নিয়ন্ত্রিত গাজা উপত্যকায় পাল্টা হামলা চালায়। এতে দেশ দুইটির মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে চলা সংঘাত নতুন মাত্রা পায়৷

উল্লেখ্য, পূর্বেও ভিন্ন ঘটনার ভিডিওকে হামাস কর্তৃক ইসরায়েলি জাহাজ জব্দের দাবিতে প্রচার করা হলে তা নিয়ে ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে রিউমর স্ক্যানার।

সুতরাং, ২০১০ সালে সিরিয়ায় ট্যাঙ্ক ধ্বংসের একটি ভিডিওকে সাম্প্রতিক সময়ে হামাস কর্তৃক ইসরায়েলি ট্যাঙ্ক ধ্বংসের ভিডিও দাবিতে ফেসবুকে প্রচার করা হয়েছে; যা সম্পূর্ণ মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img