বৃহস্পতিবার, জুলাই 25, 2024
spot_img

শেখ হাসিনা ভারতকে ৫০টি আসন দেওয়ার দাবিতে আল জাজিরা কোনো সংবাদ প্রকাশ করেনি  

সম্প্রতি, কাতার ভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা বাংলাদেশের নির্বাচনের বিষয়ে শেখ হাসিনা ও ভারতকে জড়িয়ে একটি অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে বলে দাবি করা হচ্ছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। ফেসবুকের এ সংক্রান্ত ভিডিও সম্বলিত পোস্টগুলোতে দাবি করা হচ্ছে, আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভারতকে ৫০টি আসন দিয়েছেন।  

হাসিনা

ফেসবুকে প্রচারিত ভিডিও দেখুন এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)।

ইউটিউবে প্রচারিত ভিডিও দেখুন এখানে (আর্কাইভ)।

ফ্যাক্টচেক 

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভারতকে ৫০টি আসন দিয়েছেন শীর্ষক দাবিতে আল জাজিরা কোনো সংবাদ প্রকাশ করেনি বরং কোনো তথ্যপ্রমাণ ছাড়া ভিন্ন একটি ভিডিও এবং আল জাজিরার সাংবাদিক জুলকারনাইন সায়েরের এ সংক্রান্ত একটি মন্তব্য সম্বলিত ভিডিও সম্পাদনার মাধ্যমে যুক্ত করে আলোচিত দাবিতে প্রচার করা হচ্ছে। 

ভিডিও যাচাই ০১

আলোচিত ভিডিওটির প্রথম ক্লিপে বিএনপি’র সহ- আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক রুমিন ফারহানাকে বক্তব্য দিতে দেখা যায়। বক্তব্যের সূত্র ধরে প্রাসঙ্গিক কি-ওয়ার্ড সার্চ করে Rumeen’s Voice নামক একটি ইউটিউব চ্যানেলে গত ২৫ ডিসেম্বর “’আমি ভারতের প্রার্থী’; নিক্সন ‘ন্যাংটা করে মান্দার গাছে তুলবেন’ জাফরুল্লাহকে”- শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি ভিডিও (আর্কাইভ) খুঁজে পাওয়া যায়। 

উক্ত ভিডিওতে দেওয়া রুমিন ফারহানার বক্তব্যের সাথে আলোচিত ভিডিওতে থাকা রুমিন ফারহানার বক্তব্যের মিল রয়েছে।  

উক্ত ভিডিও পর্যবেক্ষণ করে জানা যায়, মেহেরপুর-১ (মুজিবনগর, সদর উপজেলা) আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী ও সাবেক দুই মেয়াদের সংসদ সদস্য প্রফেসর আব্দুল মান্নান জেলার সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. অলোক কুমার দাসের সঙ্গে ফোনালাপে বলেন, আমি শেখ হাসিনার প্রার্থী, আমি ভারতের প্রার্থী। আমি এখানে হারার জন্য আসিনি।’ 

প্রফেসর আব্দুল মান্নানের এই বক্তব্যের সমালোচনা করে রুমিন ফারহানা বক্তব্য দেন। তবে, এখানে রুমিন ফারহানা আল-জাজিরার সংবাদ প্রতিবেদন বা ভারতকে শেখ হাসিনা ৫০ টি আসন দেওয়া সংক্রান্ত কোনো তথ্য উল্লেখ করেননি।

পরবর্তীতে দাবিটির বিষয়ে অনুসন্ধানে প্রাসঙ্গিক কি-ওয়ার্ড সার্চ করে জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে এসংক্রান্ত কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি। 

“আমি ভারতের প্রার্থী, হারার জন্য আসিনি”- শীর্ষক তথ্যে সংবাদ প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে বেশ কয়েকটি গণমাধ্যম।  দেখুন- বিবিসি, দেশ রূপান্তর এবং দৈনিক জনকণ্ঠ। 

ভিডিও যাচাই ০২ 

একই ভিডিওতে আরেকটি ক্লিপে সাংবাদিক কনক সারওয়ার এবং আল জাজিরার সাংবাদিক জুলকারনাইন সায়েরকে কথা বলতে দেখা যায়। জুলকারনাইন সায়েরকে বলতে শোনা যায়, 

বাংলাদেশে কী হবে, কোন সরকার আসবে, কোন বিরোধীদলকে কীভাবে কী করতে হবে এটার মূল ডিসিশন আসে নয়া দিল্লি থেকে। এবারের ইলেকশনে কমপক্ষে প্রায় ৪০ জনের মতো ক্যান্ডিডেটকে ভারতের গোয়েন্দা সংস্থা সিলেক্ট করে দিয়েছে এবং এদের কাছ থেকে তারা টাকা পয়সাও নিচ্ছে। 

আমরা ভিডিওটির বিষয়ে অনুসন্ধানে কনক সারওয়ারের অফিশিয়াল ফেসবুক পেজে গত ১২ ডিসেম্বর প্রকাশিত এ সংক্রান্ত মূল ভিডিওটি খুঁজে পেয়েছি। “৪০ জনকে এম.পি নমিনেশন দিয়েছে ভারতের RAW-জুলকারনাইন” শিরোনামের এই ভিডিওতে আল জাজিরার সাংবাদিককে ভারতের পক্ষ থেকে অন্তত ৪০ জনকে নির্বাচনে প্রার্থী হিসেবে ঠিক করে দেওয়ার কথা বললেও তিনি আলোচিত দাবি অর্থাৎ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভারতকে ৫০টি আসন দিয়েছেন শীর্ষক কোনো মন্তব্য করেননি। এমনকি আল জাজিরা এ সংক্রান্ত কোনো সংবাদ প্রকাশ করেছে বলেও তিনি কোনো মন্তব্য করেননি। 

অধিকতর নিশ্চয়তার জন্য শেখ হাসিনা কর্তৃক ভারতকে আসন দেওয়া সংক্রান্ত কোনো প্রতিবেদন আল জাজিরা প্রকাশ করেছে কি না সে বিষয়ে অনুসন্ধান করে রিউমর স্ক্যানার টিম। অনুসন্ধানে আল-জাজিরার ওয়েবসাইট, ফেসবুক পেজ এবং ইউটিউব চ্যানেল পর্যবেক্ষণ করে এ সংক্রান্ত কোনো প্রতিবেদন পাওয়া যায়নি। 

পাশাপাশি, আলোচিত ভিডিওটিতে উল্লেখ করা আল জাজিরার সাংবাদিক জুলকারনাইন সায়েরের ভেরিফায়েড ফেসবুক অ্যাকাউন্টে এ সংক্রান্ত কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি। 

মূলত, সম্প্রতি মেহেরপুর-১ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী ও সাবেক দুই মেয়াদের সংসদ সদস্য প্রফেসর আব্দুল মান্নানের একটি ফোনালাপ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়৷ ফোনালাপে তাকে বলতে শোনা যায়, ‘আমি শেখ হাসিনার প্রার্থী, আমি ভারতের প্রার্থী। আমি এখানে হারার জন্য আসিনি।’ পরবর্তীতে এটি নিয়ে ব্যাপক সমালোচনার সৃষ্টি হয়। এরই মধ্যে ফেসবুকের কিছু পোস্টে দাবি করা হয়,  শেখ হাসিনা ভারতকে ৫০টি আসন দেওয়ার দাবিতে আল জাজিরা সংবাদ প্রকাশ করেছে। তবে, রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, আলোচিত দাবিটি সঠিক নয় বরং আল জাজিরা এমন কোনো সংবাদ প্রতিবেদন প্রকাশ করেনি। তবে সংবাদমাধ্যমটির সাংবাদিক জুলকারনাইন সায়ের একটি ওয়েবিনারে বলেছেন, এবারের ইলেকশনে কমপক্ষে প্রায় ৪০ জনের মতো ক্যান্ডিডেটকে ভারতের গোয়েন্দা সংস্থা সিলেক্ট করে দিয়েছে এবং এদের কাছ থেকে তারা টাকা পয়সাও নিচ্ছে। 

সুতরাং, শেখ হাসিনা ভারতকে ৫০টি আসন দেওয়ার দাবিতে আল জাজিরা  সংবাদ প্রকাশ করেছে শীর্ষক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারিত দাবিটি সম্পূর্ণ মিথ্যা। 

তথ্যসূত্র 

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img