সোমবার, এপ্রিল 22, 2024
spot_img

বিএনপি-জামায়েত এক হয়েছে দাবিতে জামায়াত নেতার পুরোনো বক্তব্য প্রচার

সম্প্রতি, আলহামদুল্লিাহ। বিএনপি জামায়াত অভিমান ভুলে এক কাতারে চলে আসলো। বিএনপির প্রোগ্রামে জামায়াতকে আমন্ত্রন করে নজীর সৃষ্টি করলো।  সময়ের সাহসি পদক্ষেপ। আগামি কমসূচি গুলোও এককাতারে দেখতে চাই জনগণ। সুদিন খুব নিকটে। খালেদা জিয়া এমন দ্বায়ীত্বশীল ব‍্যক্তি, যিনি দলমত নির্বিশেষে সবার কছে স্মরণীয় ও বরনীয়।– শীর্ষক ক্যাপশনে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী দলের কেন্দ্রীয় সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মাওলানা আব্দুল হালিমের বক্তব্য দেওয়ার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হচ্ছে। 

ভিডিওটিতে মাওলানা আব্দুল হালিমকে তার বক্তব্যে বলতে শোনা যায়, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার অবিলম্বে মুক্তি প্রদান এবং উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশ প্রেরণের দাবিতে আয়োজিত আজকের এই গণঅনশন কর্মসূচীর সম্মানিত সভাপতি বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) সম্মানি মহাসচিব, রাজপথের অকুতোভয় যোদ্ধা মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের স্থায়ী কমিটির সম্মানিত নেতৃবৃন্দ ও সদস্যবৃন্দ, অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। বিভিন্ন দলের প্রধানগণ উপস্থিত জনতা। আজকে আমরা অন্তত মনভাঙা হয়ে এখানে উপস্থিত হয়েছি। বাংলাদেশের মানুষের দলমত নির্বিশেষে… দেশদ্রোহী নেতা বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের চেয়ারপার্সন, তিনবারের প্রধানমন্ত্রী, বারবার নির্বাচিত সংসদ সদস্য, বিএনপি দলের প্রধান বেগম খালেদা জিয়ার আজকে জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে। আমরা বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর পক্ষ থেকে জামায়াতে ইসলামীর সম্মানীয় আমির ড. শফিকুল আলমের পক্ষ থেকে মহান আল্লাহ তা আলার কাছে দোয়া করেছি দোয়া করছি আল্লাহ তা আলা যেন দেশনেত্রীকে দ্রুত সুস্থতা দান করেন। সংগ্রামী জনতা… দেশের জন্যে, মানুষের জন্যে, মানুষের দোয়ায় আল্লাহ তা আলা দেশনেত্রীকে সুস্থতা দান করে আবারও রাজপথে ফিরিয়ে আনার তৌফিক করে দিতে পারেন৷ আমরা আল্লাহ তা আলার কাছে দোয়া করি, তিনি সুস্থ হয়ে যাবেন। গতকাল বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য…  সাথে কথা হইতেছিলো যে আমরা উদ্বিগ্ন। প্রতিদিনেই ভাবি কোন সময় আবার দুঃসংবাদ এসে যায় কি না। আল্লাহ তা আলা কাছে আমরা দোয়া করি, আল্লাহ এই দেশের জন্যে, দেশের মানুষের জন্যে, দেশের মানুষের মুক্তির জন্যে… মানুষের মুক্তির জন্যে বাংলাদেশের মানুষের গণমানুষের নেত্রী সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে সুস্থতার সাথে আমাদের কাছে ফিরিয়ে দাও। সংগ্রামী জনতা বাংলাদেশের বেগম খালেদা জিয়া এমন দায়িত্বশীল নেত্রী তিনি দলমত নির্বিশেষে সকলের কাছে শ্রদ্ধীয় এবং বরণীয়। বেগম খালেদা জিয়া শুধুমাত্র বিএনপির চেয়ারপার্সন নয়, এই দেশের ১৬ কোটি মানুষের নন্দিত নেত্রী তিনি। বেগম খালেদা জিয়া তিনবার পাঁচটি আসনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন।… তিনবার তিনটি আসনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন৷ এতে প্রমানিত হয় বাংলাদেশের মানুষের দলমত নির্বিশেষে সকলের নন্দিত নেত্রী হচ্ছেন বেগম খালেদা জিয়া। আমরা আজকে দাবী জানাবো মানবিক দিক বিবেচনা করে রাষ্ট্র এবং সরকার যেকোনো নাগরিককে সুস্থতার জন্যে মুক্তি দিতে পারে। বেগম খালেদা জিয়া সাধারণ একজন নাগরিক নন। তিনি বাংলাদেশের তিনবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী। বেগম খালেদা জিয়া এই দেশের সবচেয়ে জনসমর্থক গোষ্ঠী একটি দলের প্রধান। বেগম খালেদা জিয়া এদেশের মানুষের মুক্তির জন্যে গণতন্ত্রের নেতৃত্ব দিয়ে তিনি গণতন্ত্রকে মুক্ত করেছেন। আপোষহীন নেত্রীর খেতাব তিনি অর্জন করেছিলেন। চার দলীয় জোট, আঠারো দলীয় জোট সকলের তীর্থনীয় জেট গঠন করে দুইশ আসনের বিরুদ্ধে তিনি মানুষের নিয়ে মুক্তির নেতৃত্ব দিয়েছেন। আসুন তার জন্যে আমরা আল্লাহ তা আলার কাছে দোয়া করি এবং সরকারের কাছে আমরা দাবী জানাবো, জোর দাবী অবিলম্বে, কাল বিলম্ব না করে বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিতে হবে৷ সাথে সাথে তার উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশ পাঠানোর জন্য কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ করার জন্যে আমরা দাবি জানাচ্ছি। আইনমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী একেক সময় একেক ব্যাখ্যা দিতে পারেন। কিন্তু বাংলাদেশের সংবিধানের আলোকে বেগম খালেদা জিয়া শুধু নাগরিক নন, তিনি বাংলাদেশের সাবেক প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্ব দিয়েছেন। বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবর্তক, শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের সহধর্মিণী। তিনি রাষ্ট্রপতিয় শাসনব্যবস্থা থেকে সংসদীয় শাসনব্যবস্থায় গণতন্ত্রকে নিয়ে গিয়েছেন।…  আসুন তার মুক্তির দাবিতে আমরা ঐক্যবদ্ধভাবে সবাই সংগ্রাম করি এবং তার মুক্তি নিশ্চিত করে তার সুচিকিৎসার জন্য ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্যে সরকারকে বাধ্য করি। আল্লাহ হাফেজ, বাংলাদেশ জিন্দাবাদ, বিশ দলীয় জোট জিন্দাবাদ। 

ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু ভিডিও দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, সম্প্রতি  বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী দল বিএনপির সাথে জোট গঠন করেনি এবং জামায়াতে ইসলামী দলের কেন্দ্রীয় সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মাওলানা আব্দুল হালিমও সাম্প্রতিক সময়ে বিএনপির কোনো কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করে বক্তব্য দেননি বরং ২০২১ সালের বিএনপির কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করে মাওলানা আব্দুল হালিমের বক্তব্যকে সাম্প্রতিক দাবিতে প্রচার করা হয়েছে। 

রিভার্স ইমেজ সার্চ করে Jamaat Dhaka City South নামক একটি ইউটিউব চ্যানেলে ২০২১ সালের ২১ নভেম্বর “বেগম খালেদা জিয়াকে দ্রুত মুক্তি দিয়ে উন্নত চিকিৎসার সুযোগ করে দিন- মাওলানা আবদুল হালিম” শীর্ষক শিরোনামে প্রচারিত মূল ভিডিওটি (আর্কাইভ) খুঁজে পাওয়া যায়।  

৫ মিনিট ৩৩ সেকেন্ডের ভিডিওটি পর্যবেক্ষণ করে দেখা যায়, ২০২১ সালের ২০ নভেম্বর বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুচিকিৎসার নিশ্চিত করার লক্ষ্যে বিএনপির ডাকা অনশন কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী দলের কেন্দ্রীয় সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মাওলানা আব্দুল হালিম।

বিএনপি-জামায়েত

আলোচিত ভিডিওটির সাথে উক্ত ভিডিওটির হুবহু মিল রয়েছে। 

পরবর্তীতে কী-ওয়ার্ড সার্চ করে বিবিসি বাংলায় ২০২১ সালের ২০ নভেম্বর “খালেদা জিয়া: অসুস্থ চেয়ারপার্সনকে বিদেশে চিকিৎসার দাবিতে গণঅনশন করছে বিএনপি” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন পাওয়া যায়।

প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, বিএনপির অসুস্থ চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি ও চিকিৎসার জন্য বিদেশে নেয়ার দাবিতে ঢাকা, জেলা ও মহানগরগুলোয় অনশন কর্মসূচী করছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি। ২০ নভেম্বর ঢাকায় নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে অনশন কর্মসূচীতে বসেছেন দলটির নেতা-কর্মীরা।

অর্থাৎ, ২০২১ সালের ২০ নভেম্বর বিএনপির ডাকা কর্মসূচিতে বক্তব্য দেন জামায়াতে ইসলামী দল কেন্দ্রীয় সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মাওলানা আব্দুল হালিম।

মূলত, ২০২১ সালের ২০ নভেম্বর ঢাকার নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে অসুস্থ চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি ও চিকিৎসার জন্য বিদেশে নেয়ার দাবিতে গণঅনশনের ডাক দেয়। পরবর্তীতে বিএনপির বিশ দলীয় জোটে থাকা বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী দলের কেন্দ্রীয় সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মাওলানা আব্দুল হালিম সেখানে একমত পোষণ করে বক্তব্য দেন। সম্প্রতি প্রায় দুই বছর পুরোনো সেই বক্তব্যের ভিডিও যুক্ত করে দাবি করা হচ্ছে, বিএনপির প্রোগ্রামে জামায়াতকে আমন্ত্রণ করা হয়েছে এবং বিএনপি জামায়াত এক হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত বছরের ডিসেম্বর মাসে জামায়াতে ইসলামী দলের সাথে বিএনপির বিশ দলীয় জোট ভেঙে যায়৷ এরপর থেকে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী দল এবং বিএনপি আলাদাভাবে কর্মসূচী পালন করে আসছে। 

সুতরাং, বিএনপি-জামায়েত এক হয়েছে দাবিতে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নেতার পুরোনো বক্তব্যের ভিডিও ফেসবুকে প্রচার করা হচ্ছে; যা মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img