ইলন মাস্ক শিশু হত্যার দায়ে ইসরায়েলে হোয়াটসঅ্যাপ ও এক্স বন্ধের সিদ্ধান্ত নেননি

ফিলিস্তিনি শিশুদের হত্যার দায়ে সম্প্রতি, টুইটারের (বর্তমান এক্স) বর্তমান প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ইলন মাস্ক ইসরায়েলে হোয়াটসঅ্যাপ ও টুইটার বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে শীর্ষক দাবিতে টিকটকে গত ২৫ মে একটি ভিডিও প্রচার করা হয়েছে।

ইলন মাস্ক শিশু হত্যার

উক্ত দাবিতে প্রচারিত ভিডিও দেখুন এখানে (আর্কাইভ)।

ভিডিওটি এখন পর্যন্ত ১ লক্ষ ৬৫ হাজারেরও বেশিবার দেখা হয়েছে এবং প্রায় সাড়ে ৯ হাজার একাউন্ট থেকে প্রতিক্রিয়া জানানো হয়েছে।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, ইলন মাস্ক ফিলিস্তিনি শিশুদের হত্যার দায়ে ইসরায়েলে হোয়াটসঅ্যাপ ও টুইটার বন্ধের সিদ্ধান্ত সংক্রান্ত কোনো মন্তব্য করেননি। তাছাড়া হোয়াটসঅ্যাপের মালিকানাও তার নয়। বরং সম্পূর্ণ ভিত্তিহীনভাবে উক্ত দাবিটি প্রচার প্রচার করা হচ্ছে।

হোয়াটসঅ্যাপের সাথে ইলন মাস্কের কোনো যোগসূত্র নেই। ইয়াহুতে ২০ বছর একত্রে কাজ করার পর জান কোম এবং ব্রায়ান অ্যাক্টন হোয়াটসঅ্যাপ প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। পরবর্তীতে হোয়াটসঅ্যাপ ২০১৪ সাল থেকে মার্ক জাকারবার্গের মেটা-র মালিকানাধীন। 

পরবর্তীতে, প্রাসঙ্গিক কি-ওয়ার্ড অনুসন্ধান করে ইলন মাস্কের একটি পডকাস্ট ভিডিও খুঁজে পাওয়া যায়। আমেরিকান কম্পিউটার বিজ্ঞানী লেক্স ফ্রিডম্যানের ২ ঘন্টা ১৬ মিনিটের ঐ পডকাস্টের ৮ মিনিট ৩৯ সেকেন্ডে মাস্ককে বলতে দেখা যায়, ‘আপনি যদি গাজায় কারো সন্তানকে হত্যা করেন, আপনি অন্তত কিছু হামাস সদস্য তৈরি করেছেন যারা শুধুমাত্র একজন ইসরায়েলিকে হত্যা করার জন্য মারা যাবে।’ এছাড়া, পুরো পডকাস্টে কোথাও তিনি ইসরায়েলে হোয়াটসঅ্যাপ বা টুইটার (বর্তমান নাম এক্স) বন্ধের বিষয়ে কিছু বলেননি।

Screenshot collage: Rumor Scanner

এছাড়াও, ইলন মাস্কের এক্স একাউন্টে ২০২৩ সালের কিছু পোস্ট (, ) পাওয়া যায় যেখানে তিনি হামাস কর্তৃক ইসরায়েলে আক্রমণের কারণে দুঃখ প্রকাশ করেন ও ইসরায়েলের সকল টেসলা সুপার চার্জার ফ্রি করে দেন। 

Screenshot collage: Rumor Scanner

এছাড়াও, উল্লিখিত দাবি সংক্রান্ত তার কোনো পোস্ট বা কোনো প্রথম সারির সংবাদ মাধ্যমে কোনো সংবাদ খুঁজে পাওয়া যায়নি। তবে ইসরায়েল সফরকালে তাকে বরং হামাসের সমালোচনা করতে দেখা যায়।  

মূলত, ফিলিস্তিন-ইসরায়েল সংঘাত ও ইসরায়েল কর্তৃক ফিলিস্তিনি শিশুদের হত্যার দায়ে ইলন মাস্ক ইসরায়েলে হোয়াটসঅ্যাপ ও টুইটার বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন শীর্ষক একটি দাবি ইন্টারনেটে প্রচার করা হয়েছে। তবে, রিউমর স্ক্যানারের অনুসন্ধানে জানা যায়, ইলন মাস্কের সাথে হোয়াটসঅ্যাপের কোনো যোগসাজশ নেই এবং তিনি হোয়াটসঅ্যাপ বা টুইটার (বর্তমানে এক্স) বন্ধের বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত বা মন্তব্য করেননি।

সুতরাং, ফিলিস্তিনি শিশুদের হত্যার দায়ে ইলন মাস্ক ইসরায়েলে হোয়াটসঅ্যাপ ও টুইটার বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে দাবিতে প্রচারিত তথ্যটি মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img