আমেরিকায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সামনে ‘ভোট চোর’ স্লোগান দেওয়া হয়েছে দাবিতে প্রচারিত এই ভিডিওটি এডিটেড

সম্প্রতি, আমেরিকায় একটি হোটেলে বক্তব্যের সময় জনগনের তোপের মুখে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বক্তব্য না দিয়ে চলে যান দাবিতে একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হয়েছে। প্রচারিত ভিডিওতে প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে ‘ভুয়া ভুয়া’ এবং ‘ভোট চোর’ স্লোগান দিতে শোনা যায়।

শেখ হাসিনা

ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, নিউইয়র্কে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সামনে কেউ ‘ভোট চোর’ স্লোগান দেয়নি এবং প্রধানমন্ত্রীও মঞ্চ ছেড়ে চলে যাননি বরং গত ২২ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্কের নাগরিক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া বক্তব্যের কিছু অংশ ডিজিটাল প্রযুক্তির সহায়তায় সম্পাদনার মাধ্যমে তাতে ভিন্ন অডিও যুক্ত করে আলোচিত ভিডিওটি তৈরি করা হয়েছে।

অনুসন্ধানের শুরুতে আলোচিত ভিডিওটি পর্যবেক্ষণ করে রিউমর স্ক্যানার টিম। ৩৫ সেকেন্ডের এই ভিডিওটিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হাসিমুখে মঞ্চে বক্তব্য দিতে দেখা যায়। তিনি বলেন, উনিশ তম ভাষণ দিচ্ছি, বিশতম ভাষণ দিতে আসছি, খোদা হাফেজ। জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু, বাংলাদেশ চিরজীবী হোক।” এরপর প্রধানমন্ত্রীকে হাসিমুখে মঞ্চ থেকে চলে যেতে দেখা যায়। তবে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য দেওয়ার সময় থেকে মঞ্চ ছেড়ে যাওয়ার পুরোটা সময়জুড়ে “ভুয়া ভুয়া” এবং “ভোট চোর” স্লোগান শোনা যায় যা ভিডিওটির সাথে অপ্রাসঙ্গিক। 

বিষয়টি অনুসন্ধানে কি ওয়ার্ড সার্চ পদ্ধতি ব্যবহার করে TBN24 নামের একটি ইউটিউব চ্যানেলে গত ২৩ সেপ্টেম্বর ‘নিউ ইয়র্কে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নাগরিক সংবর্ধনা’ শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত ১ ঘণ্টা ১০ মিনিট ৩২ সেকেন্ডের একটি ভিডিও খুঁজে পাওয়া যায়। 

Screenshot: YouTube

এই ভিডিওটির কিছু অংশের সাথে আলোচিত ভিডিওটির মিল খুঁজে পাওয়া যায়। ভিডিওটির শেষের দিকে ১ ঘণ্টা ৯ মিনিট ৫২ সেকেন্ড অংশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বলতে শোনা যায়, “উনিশ তম ভাষণ দিচ্ছি, বিশতম ভাষণ দিতে আসছি, খোদা হাফেজ।” এর আগে তিনি জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু, বাংলাদেশ চিরজীবী হোক” কথাটিও বলেন। তবে এসময় কাউকে ‘ভুয়া ভুয়া’ বা ‘ভোট চোর’ স্লোগান দিতে শোনা যায়নি বরং উপস্থিত কর্মী সমর্থকরা সেসময় প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে করতালি দিচ্ছিলেন।

Video Comparison by Rumor Scanner

পরবর্তীতে প্রাসঙ্গিক কি ওয়ার্ড অনুসন্ধানের মাধ্যমে ভয়েস অফ আমেরিকার বাংলা সংস্করণে একই তারিখে ‘আগামী নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও বিশ্বাসযোগ্য হবে: নিউইয়র্কে নাগরিক সংবর্ধনায় শেখ হাসিনা’ শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, গত ২২ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় নিউইয়র্কের একটি হোটেলে নিউইয়র্ক সিটি আওয়ামী লীগ আয়োজিত নাগরিক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। প্রতিবেদনের কোথাও প্রধানমন্ত্রীকে উক্ত অনুষ্ঠানে ভুয়া সম্বোধন করা হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়নি।

অর্থাৎ, উপরোক্ত বিষয়গুলো পর্যালোচনা করলে এটা স্পষ্ট যে, নিউইয়র্কের একটি হোটেলে নিউইয়র্ক সিটি আওয়ামী লীগ আয়োজিত নাগরিক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বক্তব্য দেওয়ার সময় উপস্থিত কর্মী সমর্থকরা ‘ভোট চোর’ বা ‘ভুয়া ভুয়া’ বলে কোনো স্লোগান দেয়নি।

মূলত, গত ১৭ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘের ৭৮ অধিবেশনে যোগদানের উদ্দেশ্যে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে যান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেখানে গত ২২ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্ক আওয়ামী লীগ কর্তৃক আয়োজিত নাগরিক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে বক্তব্য দেন প্রধানমন্ত্রী। সেই বক্তব্যের শেষের দিকে শেখ হাসিনার বলা “উনিশ তম ভাষণ দিচ্ছি, বিশতম ভাষণ দিতে আসছি, খোদা হাফেজ” শীর্ষক অংশের কয়েক সেকেন্ডের ভিডিও কাট করে তাতে ‘ভুয়া ভুয়া’এবং ‘ভোট চোর’ শীর্ষক স্লোগান যুক্ত করে আলোচিত ভিডিওটি তৈরি করে উক্ত ভুয়া দাবিতে ফেসবুকে প্রচার করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, যুক্তরাষ্ট্র সফর শেষে গত ৩০ সেপ্টেম্বর লন্ডনে পৌছান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি আগামী ৩ অক্টোবর পর্যন্ত লন্ডনে অবস্থান করবেন। লন্ডন সফর শেষে আগামী ৪ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঢাকায় পৌঁছানোর কথা রয়েছে।

উল্লেখ্য, চলতি সফরে যুক্তরাষ্ট্রে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওপর হামলার দাবিতে ভিন্ন ঘটনার ভিডিও প্রচার করা হলে তা শনাক্ত করে ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে রিউমর স্ক্যানার।

সুতরাং, আমেরিকার নিউইয়র্কের একটি হোটেলে  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বক্তব্য দেওয়ার সময় তাঁর সামনে ‘ভুয়া ভুয়া’ এবং ‘ভোট চোর’ শীর্ষক স্লোগান দেওয়া হয়েছে দাবিতে প্রচারিত ভিডিওটি এডিটেড বা বিকৃত।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img