পেপসির পূর্ণরূপ Pay Every Penny to Save Israel নয়

দীর্ঘদিন ধরে “পেপসি মানে ‘Pay every penny to save Israel” শীর্ষক একটি দাবি ইন্টারনেটে প্রচার করা হচ্ছে। সাম্প্রতিক সময়ে আবারও দাবিটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচারিত হচ্ছে। 

উক্ত দাবিতে ফেসবুকে প্রচারিত পোস্ট দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিম পেপসির ইতিহাস, পানীয়টির সঙ্গে ইহুদি-ইসরায়েলের সম্পর্ক অনুসন্ধান করে জানতে পারে, পেপসির পূর্ণরূপ দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে প্রচার হয়ে আসা তথ্যটি ভিত্তিহীন। প্রকৃতপক্ষে পেপসি (Pepsi) শব্দটির কোনো পূর্ণরূপ নেই।

মূলত, ১৮৯৮ সালে যুক্তরাষ্ট্রের নর্থ ক্যারোলাইনার নিউ বার্ন শহরে স্থানীয় ফার্মাসিস্ট ক্যালেব ব্র্যাডহামের হাত ধরে যাত্রা শুরু করে কোমল পানীয় পেপসি। শুরুতে পানীয়টি তার উদ্ভাবকের নামে বাজারে এলেও পরবর্তীতে নাম পরিবর্তন করে পেপসি কোলা (Pepsi-Cola) ধারণ করে। প্রতিষ্ঠানটি তাদের এ নামের কোনো পূর্ণরূপ প্রকাশ বা ব্যাখ্যা না করলেও দীর্ঘদিন ধরেই প্রচার হয়ে আসছে, পেপসি শব্দের পূর্ণরূপ ‘Pay every penny to save Israel।’ এ নিয়ে অনুসন্ধানে দেখা যায়, ১৯৮০ এর দশক থেকে পেপসি শব্দের এই পূর্ণরূপটি লোকমুখে প্রচার হয়ে আসছে। যা ইন্টারনেট ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের বর্তমান যুগে এসে আরও ব্যাপকতা লাভ করেছে। তবে পেপসির ইতিহাস ও এর সঙ্গে ইহুদি, ইসরায়েল রাষ্ট্রের সম্পর্ক পর্যালোচনায় দেখা যায়, পেপসি শব্দের দাবিকৃত পূর্ণরূপটি কোনো নির্ভরযোগ্য তথ্যসূত্র ছাড়াই সম্পূর্ণ ভিত্তিহীনভাবে প্রচার হয়ে আসছে। পাশাপাশি ১৮৯৮ সালে পেপসির যখন উদ্ভাবন হয় তখন ইসরায়েল রাষ্ট্রের জন্মও হয়নি। আবার ইসরায়েল রাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠারও দীর্ঘদিন পরে পেপসি ইসরায়েলে ব্যবসা শুরু করেছে। যা পেপসি শব্দের দাবিকৃত পূর্ণরূপটির সাথে সংগতিপূর্ণ নয়। 
উল্লেখ্য, পূর্বেও একই দাবি ইন্টারনেটে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়লে বিষয়টি নিয়ে ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদন প্রকাশ করে রিউমর স্ক্যানার।

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img