ব্রাজিল কোচ তিতে কি বলেছিলেন বাংলাদেশি সাংবাদিককে?

কাতার বিশ্বকাপে চলছে গ্রুপ পর্বের লড়াই শেষে দ্বিতীয় পর্ব তথা নক আউটের খেলা। গ্রুপ পর্বের বাধা পেরিয়ে  নক আউটে আসা ১৬ টি দলের জন্যেই এই পর্ব বাঁচা-মরার লড়াই। কারণ, এখানে হারলেই করতে হবে বাড়ি ফেরার টিকেট।

গত ২ ডিসেম্বরে বাঁচা-মরার এই লড়াইয়ে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে নামার আগে আর্জেন্টিনার কোচ লিওনেল স্কালোনি ম্যাচ পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশি আর্জেন্টাইন সমর্থকদের ধন্যবাদ জানিয়েছিলেন। তার এই ধন্যবাদের সূত্রে সদ্যই শেষ হওয়া ব্রাজিল-দক্ষিণ কোরিয়ার নক আউটের ম্যাচের আগে ব্রাজিলের কোচ তিতের একটি ভিডিও বাংলাদেশের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে। ভিডিওটির শিরোনামে দাবি করা হয়, ব্রাজিল কোচ তিতে বাংলাদেশী ব্রাজিলিয়ান ফ্যানদের অগ্রাহ্য করেছেন। 

এমন কিছু ভিডিও দেখুন এখানে(আর্কাইভ), এখানে(আর্কাইভ), এখানে(আর্কাইভ)।

তিতে কি আসলেই বাংলাদেশি ব্রাজিলিয়ান ফ্যানদের অগ্রাহ্য করেছিলেন? ভিডিওটি কখনের? কি কথোপকথন হয়েছিল ভিডিওটিতে?

চলুন জানা যাক!

ভিডিওটি কোন সময়ের?

রিউমর স্ক্যানারের অনুসন্ধানে দেখা যায়, ভিডিওটি গত ২০ নভেম্বরের, যেদিন কাতার বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচে আল বাইত স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হয়েছিল আয়োজক দেশ কাতার ও ইকুয়েডর।

ঐ ম্যাচ শেষে স্টেডিয়াম থেকে বের হয়ে গাড়ির উদ্দেশ্যে হেঁটে আসছিলেন ব্রাজিলের কোচ তিতে। সে সময়েই তার সাক্ষাৎকার নেওয়ার চেষ্টা করেন বাংলাদেশের খেলাধুলা ভিত্তিক টিভি চ্যানেল T Sports এর সাংবাদিক Rifat Masud। যা তিনি গত ২১ নভেম্বর তার ফেসবুক আইডিতে প্রথম প্রকাশ করেন৷ ভিডিওটি দেখুন এখানে (আর্কাইভ)।

অর্থাৎ, ভিডিওটি আর্জেন্টিনার কোচ লিওনেল স্কালোনি কর্তৃক বাংলাদেশি সমর্থকদের ধন্যবাদ জানানো ও একইসাথে ব্রাজিল-দক্ষিণ কোরিয়ার নক আউটের ম্যাচের পূর্বের ভিডিও।

কি কথোপকথন হয়েছিল ভিডিওটিতে?

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ও ইউটিউবে ছড়িয়ে পড়া রিফাত মাসুদের ২৯ সেকেন্ডের এই ভিডিওটিতে দেখা যায়, রিফাত মাসুদ তিতেকে ইংরেজিতে বলছেন, ‘Anything for the Bangladeshi fans… এবং Say Hi to Bangladesh।’ প্রত্যুত্তরে তিতেকে পর্তুগিজ ভাষায় কিছু বলতে শোনা যায়।

কি বলেছিলেন ব্রাজিলের কোচ তিতে?

উত্তরে তিতে কি বলেছিলেন তা বোঝার জন্য রিউমর স্ক্যানার টিম ব্রাজিলের একটি ফ্যাক্টচেকিং প্রতিষ্ঠানের সহায়তা নেয়।

E-Farsas নামের ফ্যাক্টচেক প্রতিষ্ঠানটি রিউমর স্ক্যানারকে পর্তুগীজ ভাষায় দেওয়া তিতের উত্তরটি ‘”Nós temos expectativa de fazer uma grande Copa” লিখে পাঠায়। যার অনুবাদ করলে অর্থ দাঁড়ায়,  “We expect to have a great (world) cup।” অর্থাৎ আমরা একটি দারুণ বিশ্বকাপ চাই।

তিতে কি ইংরেজি বুঝেন?

রিউমর স্ক্যানারের অনুসন্ধানে দেখা যায়, তিতে ইংরেজিতে কথা বলেন না। ব্রিটিশ গণমাধ্যম The Guardian পত্রিকায় ২০১৭ সালের ১৩ নভেম্বর “Patient Tite has brought swagger and pragmatism back to Brazil” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, তিতে ইংরেজি বলেন না৷ ব্রাজিল ফুটবল দলে কাজ করা অন্যান্য কোচ যেমন, লিভারপুলের জার্গেন ক্লপের সঙ্গে অন্যান্যদের মধ্যস্থতায় যোগাযোগ করেন। 

অর্থাৎ তিতে ইংরেজি জানেন না এবং তিনি ব্রাজিল ফুটবল দলে কাজ করা অন্যান্য কোচদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে মধ্যস্থতার সাহায্য নেন। এছাড়া তিনি কখনো ইংরেজি শেখার চেষ্টা করেছেন এমন কোনো তথ্যও পাওয়া যায় না।

তিতে কি আসলেই বাংলাদেশি ব্রাজিলিয়ান ফ্যানদের অগ্রাহ্য করেছিলেন?

এ পর্যন্ত সার্বিক পর্যালোচনায় দেখা যায়, ব্রাজিলের কোচ তিতে যেহেতু ইংরেজি বুঝেন না, তাই বাংলাদেশি সাংবাদিক রিফাত মাসুদের তিতেকে ইংরেজিতে করা বাংলাদেশি সমর্থকদের কিছু বলার প্রশ্নটিও স্বাভাবিকভাবে তিনি বুঝেননি৷ তাই রিফাত মাসুদের প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন অনুমানের উপর ভিত্তি করে। অর্থাৎ তিতের উত্তর থেকেই স্পষ্ট তিনি বাংলাদেশি সাংবাদিকের ইংরেজিতে করা প্রশ্নটি বুঝেননি এবং তিনি না বুঝেই আনুমানিক একটা প্রশ্ন ধরে নিয়ে উত্তর দিয়েছেন।

সর্বোপরি সার্বিক পর্যালোচনায় এটা প্রতীয়মান হয় যে, তিতে বাংলাদেশি সমর্থকদের অগ্রাহ্য করেননি।

তিতেকে প্রশ্ন করা সেই সাংবাদিক ভাইরাল ভিডিওটি নিয়ে কি বলছেন?

গত ২১ নভেম্বরের ভিডিওটি ব্রাজিল-দক্ষিণ কোরিয়ার ম্যাচের আগে ভাইরাল হওয়ার পর ভিডিওটি নিয়ে মুখ খুলেছেন সেদিন তিতেকে প্রশ্ন করা সাংবাদিক রিফাত মাসুদ।

গত ৫ ডিসেম্বর রিফাত মাসুদের কর্মস্থল টি-স্পোর্টসের ফেসবুক পেইজে ‘সত্যিই কি বাংলাদেশ চেনেন না ব্রাজিল কোচ তিতে (আর্কাইভ)’ শীর্ষক শিরোনামে একটি ভিডিও প্রতিবেদন প্রচার করা হয়।

প্রতিবেদনে রিফাত মাসুদ বলেন, ‘তিতে ইংরেজিতে দক্ষ নন। ইংরেজি তাদের আসলে দরকারও হয় না। তার সাক্ষাৎকার নেওয়ার সময় সেখানে নানান ভাষার সাংবাদিকেরা ছিলেন এবং তাদের নিজ নিজ ভাষায় প্রশ্ন করছিলেন। সেখানে কলম্বিয়ার একজন প্রশ্ন করেছিলেন, কলম্বিয়াকে ‘হাই’ বলতে৷ কলম্বিয়ার ফুটবল হেরিটেজ তো অনেক বেশি, বাংলাদেশের সেই তুলনায় কম। তাই স্বাভাবিকভাবেই আমি বাংলাদেশকে ঐ জায়গায় হাইলাইট করতে চেয়েছি। আমার মনে হয় না, ঐ জায়গায় ব্রাজিল সংক্রান্ত কিছু জিজ্ঞাসা করলে উনি বুঝতে পারবেন৷’

তিনি আরও বলেন, ‘তিতে বিশ্বের অনেক জায়গায় ঘুরে বেড়িয়েছেন, যারা তিতেকে চিনেন তারা জানেন৷ মোটামুটি তিনি একজন দার্শনিকও বটে। এমন জায়গায় ‘Say Hi to Bangladesh’ তার এই বাক্যটা বা শব্দটা বুঝতে না পারার কোনো কারণ নেই৷ যেটা হয়েছে সেটা হচ্ছে উনি হয়তো ঐ ভীড়ের ভেতরে আমার প্রশ্নটি ঠিকঠাক শুনতে পারেননি৷ তিনি শেষ পর্যন্ত দয়া করে হলেও আমাকে কিছু একটা বলেছেন পর্তুগীজ ভাষায়৷ যেটি অনুবাদ করলে দাঁড়ায়, ব্রাজিলে এই বিশ্বকাপ নিয়ে আগ্রহ অনেক বেশি৷ তারা এখানে বিশ্বকাপ জিততে এসেছেন।’

এছাড়া প্রতিবেদনটিতে রিফাত মাসুদ তার ২০ নভেম্বরের ভিডিওটি বর্তমানে ভাইরাল হওয়ার ব্যাখ্যাও দিয়েছেন।

তিনি বলেন, যেহেতু আর্জেন্টিনার কোচ লিওনেল স্কালোনি বাংলাদেশি সমর্থকদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন। তারই প্রেক্ষিতে বাংলাদেশের ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার সমর্থকদের দ্বৈরথ থেকে তিতের ভিডিওটি প্রচার হচ্ছে৷

মূলত, গত ২০ নভেম্বর বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচের দিন বাংলাদেশি সাংবাদিক রিফাত মাসুদ ব্রাজিলের কোচ তিতের সাক্ষাৎকার নেওয়ার চেষ্টা করেন এবং তিতেকে বাংলাদেশি সমর্থকদের হাই বলতে বলেন। তবে তিতের ইংরেজি না জানার কারণে তিনি রিফাত মাসুদের প্রশ্নটি বুঝতে পারেননি। এছাড়া রিফাত মাসুদ নিজেও বলেছেন, সেদিন সেখানে ভীড় থাকায় তিতে তার প্রশ্নটি বুঝতে পারেননি এবং কিছু একটা বলেছেন পর্তুগীজ ভাষায়৷ যেটি অনুবাদ করলে দাঁড়ায়, ব্রাজিলে এই বিশ্বকাপ নিয়ে আগ্রহ অনেক বেশি৷ তারা এখানে বিশ্বকাপ জিততে এসেছেন।

সুতরাং, তিতে বাংলাদেশি সমর্থকদের অগ্রাহ্য করেছেন দাবিতে যে ভিডিওটি প্রচার হচ্ছে সেটি সঠিক নয় বরং ঘটনাটি মূলত ঘটেছে তিতের ইংরেজি না জানা ও রিফাত মাসুদের প্রশ্নটি না বুঝতে পারার ফলে।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img